করোনাভাইরাস

আজও শনাক্ত ৫ হাজারের বেশি, মৃত্যু ৪৫

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও পাঁচ হাজার ৪২ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এ নিয়ে টানা দুই দিন দৈনিক পাঁচ হাজারের বেশি রোগী শনাক্ত হলো।
ছবি: সংগৃহীত

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও পাঁচ হাজার ৪২ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এ নিয়ে টানা দুই দিন দৈনিক পাঁচ হাজারের বেশি রোগী শনাক্ত হলো।

গতকাল একদিনে সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার ১৮১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল। এর আগে রেকর্ড অনুযায়ী, গত বছরের ২ জুলাই এক দিনে চার হাজার ১৯ জনকে শনাক্ত করা হয়েছিল।

আজসহ টানা আট দিন ধরে দৈনিক সাড়ে তিন হাজারের বেশি রোগী শনাক্ত হচ্ছে। এর মধ্যে গত ২৩ মার্চ তিন হাজার ৫৫৪ জনের, ২৪ মার্চ তিন হাজার ৫৬৭ জনের, ২৫ মার্চ তিন হাজার ৫৮৭ জনের, ২৬ মার্চ তিন হাজার ৭৩৭ জনের, ২৭ মার্চ তিন হাজার ৬৭৪ জনের, ২৮ মার্চ তিন হাজার ৯০৮ জনের ও ২৯ মার্চ পাঁচ হাজার ১৮১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল। এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ছয় লাখ পাঁচ হাজার ৯৩৭ জন।

একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরও ৪৫ জন। গতকালও ৪৫ জনের মৃত্যু হয়েছিল। এখন পর্যন্ত করোনায় মারা গেছেন আট হাজার ৯৯৪ জন।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে দেওয়া সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, সোমবার সকাল ৮টা থেকে মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত অ্যান্টিজেন ও আরটি-পিসিআর পদ্ধতিতে ২৬ হাজার ৬২০টি নমুনা পরীক্ষা করে করোনায় আক্রান্ত আরও পাঁচ হাজার ৪২ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৮ দশমিক ৯৪ শতাংশ।

মার্চের শুরু থেকেই দেশে পুনরায় করোনার সংক্রমণ বাড়তে থাকলেও গত কয়েক দিন ধরে তা দ্রুত গতিতে বাড়ছে। গত ২৬ মার্চ শনাক্তের হার ছিল ১৩ দশমিক ৬৯ শতাংশ। ২৭ মার্চ তা বেড়ে ১৪ দশমিক ৯০ শতাংশ, ২৮ মার্চ ১৭ দশমিক ৬৫ শতাংশ ও ২৯ মার্চ ১৮ দশমিক ৩৮ শতাংশে দাঁড়ায়।

আজসহ টানা এক সপ্তাহ যাবৎ গড়ে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা প্রায় ৩৭। গত ২৪ মার্চ মারা গেছেন ২৫ জন, ২৫ মার্চ ৩৪ জন, ২৬ মার্চ ৩৩ জন, ২৭ মার্চ ৩৯ জন, ২৮ মার্চ ৩৫ জন ও ২৯ মার্চ ৪৫ জন।

আজ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৪৫ জনের মধ্যে ২৮ জন পুরুষ ও ১৭ জন নারী। বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে তাদের মধ্যে একজনের বয়স ০-১০ বছরের মধ্যে, দুই জনের বয়স ২১-৩০ বছরের মধ্যে, দুই জনের বয়স ৩১-৪০ বছরের মধ্যে, সাত জনের বয়স ৪১-৫০ বছরের মধ্যে, আট জনের বয়স ৫১-৬০ বছরের মধ্যে ও ষাটোর্ধ্ব ২৫ জন।

২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন দুই হাজার ১৬২ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন পাঁচ লাখ ৪০ হাজার ১৮০ জন। সব মিলিয়ে এ পর্যন্ত ৪৬ লাখ ৪৩ হাজার ৬৪৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, দেশে মোট পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ০৫ শতাংশ। আর মোট শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৯ দশমিক ১৫ শতাংশ ও মৃত্যুর হার এক দশমিক ৪৮ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল মিলিয়ে সারাদেশে মোট আইসিইউ বেডের সংখ্যা ৫৭৮। এর মধ্যে বর্তমানে ফাঁকা রয়েছে ২২০টি। আর ঢাকা মহানগরীতে আইসিইউ বেড রয়েছে ২৯৬টি। এর মধ্যে ফাঁকা রয়েছে ৪৮টি। গতকাল পর্যন্ত সারাদেশে ৫৩ লাখ ১৯ হাজার ৬৭৯ জনকে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন:

একদিনে দেশে সর্বোচ্চ শনাক্ত ৫১৮১ মৃত্যু ৪৫

একদিনে শনাক্তের হার ১৭.৬৫ গতকালের চেয়ে ২.৭৫ শতাংশ বেশি, মৃত্যু ৩৫

সাড়ে তিন মাসের মধ্যে আজ সর্বোচ্চ মৃত্যু ৩৯ শনাক্তের হার ১৪.৯০

আজ টানা চতুর্থ দিন শনাক্ত সাড়ে ৩ হাজারের বেশি, মৃত্যু ৩৩

তিন মাসের মধ্যে আজ সর্বোচ্চ মৃত্যু ৩৪ শনাক্তের হার ১৩.২৬

প্রায় ৯ মাসের মধ্যে আজ সর্বোচ্চ শনাক্ত ৩৫৬৭, মৃত্যু ২৫

সাড়ে ৮ মাসের মধ্যে আজ সর্বোচ্চ শনাক্ত ৩৫৫৪, মৃত্যু ১৮

২৪ ঘণ্টায় ৭ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত ২৮০৯, মৃত্যু ৩০

‘স্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা উচিত’

Comments

The Daily Star  | English
Shipping cost hike for Red Sea Crisis

Shipping cost keeps upward trend as Red Sea Crisis lingers

Shafiur Rahman, regional operations manager of G-Star in Bangladesh, needs to send 6,146 pieces of denim trousers weighing 4,404 kilogrammes from a Gazipur-based garment factory to Amsterdam of the Netherlands.

2h ago