সালথায় সহিংসতা: অজ্ঞাতনামা ৪ হাজার আসামি

ফরিদপুরের সালথায় গত সোমবার রাতের সহিংসতার ঘটনায় ৮৮ জনের নামে ও তিন থেকে চার হাজার অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা করেছে পুলিশ।
সালথা উপজেলা কমপ্লেক্সের ভেতরে এবং ইউএনও ও এসিল্যান্ডের গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। এছাড়াও পুড়িয়ে দেওয়া হয় পুলিশের দুটি মোটরসাইকেল। ছবি: সংগৃহীত

ফরিদপুরের সালথায় গত সোমবার রাতের সহিংসতার ঘটনায় ৮৮ জনের নামে ও তিন থেকে চার হাজার অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা করেছে পুলিশ।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে সালথা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. মিজানুর রহমান বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

এসআই মিজান সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সালথার সোনাপুর ইউনিয়নের ফুকরা বাজার এলাকায় সংঘর্ষের ঘটনায় আহত হয়েছিলেন।

পুলিশ এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

করোনা লকডাউনের বিষয়ে প্রশাসনের কড়াকড়িকে কেন্দ্র করে গুজব ছড়িয়ে গত সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত সালথা থানা ও উপজেলার পরিষদসহ ওই এলাকায় বিভিন্ন সরকারি স্থাপনায় সহিংসতা চালানো হয়।

গুলি, রাবার বুলেট, কাঁদানে গ্যাস ও সাউন্ড গ্রেনেড ছুড়ে রাত ১২টার দিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ।

পুলিশের দায়ের করা মামলায় ৮৮ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে এবং আরও তিন থেকে চার হাজার অজ্ঞাতনামা আসামি রয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সালথা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান বলেন, ‘থানায় হামলা ও সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে পুলিশ বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেছে। মামলার এজাহারভুক্ত ১৩ আসামিকে ইতোমধ্যে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সালথার বর্তমান সার্বিক পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশ ও র‌্যাবের পাশাপাশি টহল দিচ্ছে বিজিবি।’

Comments

The Daily Star  | English

For now, battery-run rickshaws to keep plying on Dhaka roads: Quader

Road, Transport and Bridges Minister Obaidul Quader today said the battery-run rickshaws and easy bikes will ply on the Dhaka city roads

1h ago