‘স্কিলের দিক থেকে পিছিয়ে নেই, প্রক্রিয়ায় ভুল নেই’

বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের সামর্থ্য ও দক্ষতায় কোন ঘাটতি দেখেন না খালেদ মাহমুদ সুজন। এমনকি তাদের প্রস্তুতি প্রক্রিয়াতেও কোন সমস্যা চোখে পড়েনি তার। যদিও এর প্রমাণ হিসেবে মাঠে পারফরম্যান্স নেই।
Bangladesh cricket team
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের সামর্থ্য ও দক্ষতায় কোন ঘাটতি দেখেন না খালেদ মাহমুদ সুজন। এমনকি তাদের প্রস্তুতি প্রক্রিয়াতেও কোন সমস্যা চোখে পড়েনি তার। যদিও এর প্রমাণ হিসেবে মাঠে পারফরম্যান্স নেই। তবে শ্রীলঙ্কায় ইতিবাচক মানসিকতা এনে ভালো পারফরম্যান্সের আশা করছেন তিনি। 

সোমবার খেলোয়াড়, সাপোর্ট স্টাফ কর্মকর্তাসহ ৪১ সদস্যের বিশাল বহর নিয়ে শ্রীলঙ্কায় গেছে বাংলাদেশ দল। দুই টেস্টের এই সিরিজে বিসিবি প্রধানের নির্দেশ অনুযায়ী দলের সঙ্গে ‘টিম লিডার’ হিসেবে থাকছেন মাহমুদ।

লঙ্কা যাওয়ার আগে বিমানবন্দরে গণমাধ্যমকে তিনি জানান, বিগত বেশ কদিনের খারাপ সময় শ্রীলঙ্কায় সরাবেন ক্রিকেটাররা,  ‘যদিও আমরা গত কদিন টেস্টে ভাল করিনি। আমরা জানি আমাদের সামর্থ্য আছে। নিউজিল্যান্ডে তবু ভাল খেলতে পারিনি। শ্রীলঙ্কায় অন্য রকম পরিবেশে খেলব। সেখানকার কন্ডিশন জানা। চেষ্টা থাকবে সেরা ক্রিকেট খেলার।’

২১ ও ২৯ এপ্রিল লঙ্কানদের বিপক্ষে দুটি টেস্টেই ক্যান্ডির পালেকেল্লে স্টেডিয়ামে। এপ্রিল-মে মাসের এই সময়টায় দ্বীপদেশটির আবহাওয়া সম্পর্কে ধারণা আছে বাংলাদেশের। প্রক্রিয়া ঠিক থাকলে তাই সেরা ফল আসবে বলে মত তার, ‘আমরা স্কিলের দিক থেকে পিছিয়ে নেই, ভালো দল। আমরা যদি আমাদের সেরা ক্রিকেট খেলতে পারি, প্রক্রিয়াটা ঠিক রাখতে পারি, তবে আশা করি ভালো করব।’

ঘরে-বাইরে সর্বশেষ ৯ টেস্টের আটটিতেই হেরেছে বাংলাদেশ। ভারত ও পাকিস্তানে গিয়ে হেরেছে ইনিংস ব্যবধানে। ঘরের মাঠে পারেনি আফগানিস্তান ও খর্ব শক্তির ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষেও। এসব ম্যাচে খেলোয়াড়দের প্রক্রিয়াগত কোন ঘাটতি চোখে পড়েনি মাহমুদের,  ‘খেলোয়াড়রা অনেক ফিট। অনেক চেষ্টা করে তারা‌ মাঠে গিয়ে  পারফরম্যান্সটা কেন হচ্ছে না সেটি একটা বড় ব্যাপার। প্রক্রিয়াগুলো কিন্তু খারাপ বলব না আমি। দল হিসেবে খেলতে হবে আমাদের, ব্যক্তিগত পারফরম্যান্স অনেক দেখেছি আমরা। এখনই সময় আমরা বাংলাদেশ দল হিসেবে খেলতে চাই।’

এবার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে অবশ্য মানসিকতার দিক থেকে বাড়তি গুরুত্ব দিচ্ছেন তিনি। তার মতে বাকিসব প্রক্রিয়া ঠিক রাখার সঙ্গে থাকতে হবে ইতিবাচক,  ‘খেলতে হবে ইতিবাচক আক্রমণাত্মক ক্রিকেট। আমি সবসময় ইতিবাচক ক্রিকেট খেলার কথা বলি, মনোভাব অনেক গুরুত্বপূর্ণ। যে মনোভাব আমি দেখেছি দুই বছর আগে। সেরকমটা দেখতে চাই, মাঠে লড়াই করবে, ফল কি হবে পরে দেখা যাবে। কিন্তু আমরা লড়াই করতে চাই।’

Comments

The Daily Star  | English

Student politics, Buet and ‘Smart Bangladesh’

General students of Buet have been vehemently opposing the reintroduction of student politics on their campus, the reasons for which are powerful, painful, and obvious.

1h ago