শীর্ষ খবর

বাঁশখালীতে শ্রমিক বিক্ষোভ: ২ মামলায় সাড়ে ৩ হাজার আসামি

চট্টগ্রামের বাঁশখালী ‍উপজেলার গণ্ডামারায় কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রে বকেয়া বেতন-ভাতার দাবিতে বিক্ষোভকারী শ্রমিকদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। দুটি মামলায় তিন হাজার ৫৬২ জনকে আসামি করা হয়েছে।
Bashkhali_Clash_17Apr21.jpg
গতকাল সকালে চট্টগ্রামের বাঁশখালী ‍উপজেলায় কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রে বকেয়া বেতন-ভাতার দাবিতে বিক্ষোভকারী শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে পাঁচ জন নিহত হন। ছবি: মো. রাজীব রায়হান/স্টার

চট্টগ্রামের বাঁশখালী ‍উপজেলার গণ্ডামারায় কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রে বকেয়া বেতন-ভাতার দাবিতে বিক্ষোভকারী শ্রমিকদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। দুটি মামলায় তিন হাজার ৫৬২ জনকে আসামি করা হয়েছে।

আজ রোববার সকালে বাঁশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিউল কবির দ্য ডেইলি স্টারকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় গতকাল রাতে উপপরিদর্শক (এসআই) রাশেদ বাদী হয়ে আড়াই হাজার অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছে। এ ছাড়া, যানবাহনে অগ্নিসংযোগের অভিযোগে শিল্প গ্রুপ এস আলমের মালিকানায় নির্মাণাধীন এসএস পাওয়ার প্ল্যান্টের প্রধান সমন্বয়ক ফারুক আহমেদ বাদী হয়ে ২২ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতপরিচয় এক হাজার ৪০ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন।’

এখন পর্যন্ত এ ঘটনায় কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। গণ্ডামারার স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, আবারও হয়রানি ও হামলার ভয়ে গতকাল সন্ধ্যায় শ্রমিকদের এলাকা ছেড়ে চলে যেতে দেখা গেছে।

গতকাল সকাল ১১টার দিকে বেতন-ভাতার দাবিতে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়। সে সময় পুলিশের গুলিতে পাঁচ শ্রমিক নিহত হন।

চীনা প্রতিষ্ঠান সেফকো থ্রি পাওয়ার কনস্ট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেডের অর্থায়নে চট্টগ্রামের বাঁশখালী ‍উপজেলার গণ্ডামারায় এসএস পাওয়ার প্ল্যান্ট নামে কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করছে শিল্প গ্রুপ এস আলম।

আরও পড়ুন

বাঁশখালীতে পুলিশের গুলিতে শ্রমিক নিহতের ঘটনার নিন্দা, ৬৮ নাগরিকের বিবৃতি

বাঁশখালী বিদ্যুৎকেন্দ্রের শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ, নিহত ৫

Comments

The Daily Star  | English

Iran's President Raisi, foreign minister killed in helicopter crash

President Raisi, the foreign minister and all the passengers in the helicopter were killed in the crash, senior Iranian official told Reuters

4h ago