বরগুনা

করোনায় মৃত পুলিশ সদস্যের পরিবার পেল পাকা ঘর

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আবদুল খালেকের পরিবার বাংলাদেশ পুলিশের পক্ষ থেকে পাকা ঘর পেয়েছে।
ছবি: সোহরাব হোসেন

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আবদুল খালেকের পরিবার বাংলাদেশ পুলিশের পক্ষ থেকে পাকা ঘর পেয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার বেতাগী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী শাখাওয়াত হোসেন মৃত আবদুল খালেকের স্ত্রী ও সন্তানদের কাছে ঘরটি হস্তান্তর করেন।

এর আগে, গত বছরের ৩০ এপ্রিল করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন এএসআই) আবদুল খালেক। তিনি বরগুনার বেতাগী উপজেলার বাসিন্দা। দীর্ঘ ১৬ বছর তিনি বাংলাদেশ পুলিশে কর্মরত ছিলেন।

ওসি কাজী শাখাওয়াত হোসেন দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘ঢাকার মিরপুর পুলিশ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে কর্মরত অবস্থায় আবদুল খালেক করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তিকে হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়ে তার পরিবার। তাদের বাসযোগ্য ভালো ঘর ছিল না। তাই বাংলাদেশ পুলিশের উদ্যোগে বেতাগী উপজেলার বেতাগী ইউনিয়নের ঝোঁপখালী গ্রামের নিজ বাড়িতে পাকা একটি পাকা ঘর নির্মাণ করে দেওয়া হয়েছে।’

মৃত আবদুল খালেকের স্ত্রী ফাতিমা বেগম বলেন, ‘দায়িত্বপালন করতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান আমার স্বামী। এরপর তিন সন্তান নিয়ে চরম বিপাকে পড়ি। বসবাসের জন্য ভালো ঘর না থাকার দুশ্চিন্তা ছিল আমার সবচেয়ে বেশি। যা আজ দূর হয়েছে। আমি বাংলাদেশ পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।’

Comments