মেসির দেওয়া উপদেশ এবার মেসিকেই দিলেন আলভেজ

২০১৬ সালে তৎকালীন ক্লাব সভাপতি জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউর উপর রাগ করেই বার্সেলোনা ছেড়েছিলেন ব্রাজিলিয়ান তারকা দানি আলভেজ। তখন তাকে দল না ছেড়ে বার্সায় থেকে যাওয়ার উপদেশ দিয়েছিলেন লিওনেল মেসি। এবার সেই উপদেশ মেসিকে দিলেন এ ব্রাজিলিয়ান।
ফাইল ছবি: সংগৃহীত

২০১৬ সালে তৎকালীন ক্লাব সভাপতি জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউর উপর রাগ করেই বার্সেলোনা ছেড়েছিলেন দানি আলভেজ। তখন তাকে দল না ছেড়ে বার্সায় থেকে যাওয়ার উপদেশ দিয়েছিলেন লিওনেল মেসি। এবার সেই উপদেশ উল্টো মেসিকেই দিলেন এ ব্রাজিলিয়ান।

সাম্প্রতিক সময়ে দল বদলের বাজারে সবচেয়ে গরম খবর মেসির ভবিষ্যৎ নিয়ে। মৌসুমের শুরুতে তো এ নিয়ে তুলকালাম কাণ্ড হয়। যদিও শেষ পর্যন্ত বার্তোমেউর জেদে থেকে যেতে হয় বার্সাতেই। ৭০০ মিলিয়ন ইউরোর রিলিজ ক্লজে মেসিকে বেঁধে রাখেন তৎকালীন সভাপতি।

তবে বার্সায় বার্তোমেউ যুগের অবসান হয়েছে। এসেছেন নতুন সভাপতি হুয়ান লাপোর্তা। যার সঙ্গে আবার মেসির সম্পর্কটাও বেশ ভালো। কিন্তু তারপরও নতুন চুক্তির আভাস মিলেনি। এমনকি পিএসজি, ম্যানচেস্টার সিটিসহ বেশ কিছু দলের প্রস্তাব দেওয়া সংবাদ মিলছে।

তবে বার্সাই মেসির জন্য সেরা জায়গা তা মনে করিয়ে দিলেন আলভেজ, 'আমি মেসিকে বেশ কয়েকবার বলেছি যে সে বার্সেলোনার খেলোয়াড় হয়ে জন্মগ্রহণ করেছে এবং বার্সেলোনাও তার ক্লাব হওয়ার জন্য তৈরি হয়েছে। সে আমাকে আগে পরামর্শ দিয়েছিল তাই আমিও তাকে সেটাই করতে পারি। এর চেয়ে ভালো কোনো জায়গা হবে না জানিয়ে সে আমাকে একবার বার্সেলোনায় থেকে যেতে বলেছিল, 'তুমি কোথায় সুখী হবে?'"

আর মেসির সে উপদেশের কথা এবার মেসিকেই মনে করিয়ে দিলেন আলভেজ। তার সঙ্গে যুক্তিটাও তুলে ধরেছেন তিনি, 'এখন আমি তাকে সেই কথোপকথনের কথা মনে করিয়ে দিচ্ছি। একজন ভালো বন্ধু হিসেবে সে আমাকে পরামর্শ দিয়েছিল যে বার্সেলোনা সর্বকালের সেরা জায়গা। তাকে তখন আমি এ নিয়ে কোনো উত্তর দেয়নি, তবে আপনি যখন বার্সেলোনা ছেড়ে চলে যাবেন, বুঝতে পারবেন এটি কতটা ভালো।'

বার্সা ছেড়ে যারাই চলে গিয়েছে তারাই আফসোস করেছে বলে জানান আলভেজ, 'যে সকল খেলোয়াড়, আমি বোঝাতে চাইছি, যারা বার্সেলোনা ছেড়ে গেছে তারা সবাই দুঃখিত। কারণ ছাড়াই দল ছাড়ায় সকলেই আফসোস করেছে। আমি যখন ক্লাব ছেড়েছি, ফিরে আসার জন্য দেখাতে চেয়েছিলাম আমার মূল্য কতো। কিন্তু দুর্ভাগ্যক্রমে, যাদের কারণে ক্লাব ছেড়েছিলাম একই ব্যক্তিরা রয়ে গেছে। তবে আমি দেখিয়েছিলাম যে আমি বার্সেলোনার হয়ে খেলতে পেরেছি। আরও ১০ বছর অনায়াসেই।'

'আমি বার্সেলোনায় ফিরে যাওয়ার চেষ্টা করেছি। আমি বার্সেলোনায় ফিরে যেতে চেয়েছি। আমি বার্সেলোনায় ফিরে যাওয়ার জন্য খেলেছি, কিন্তু তারা আর আমাকে চায়নি।' -যোগ করেন আলভেজ।

মূলত, বার্তোমেউর উপর রাগ করেই বার্সেলোনা ছেড়েছিলেন আলভেজ। ক্লাবের সভাপতি হওয়ার পর থেকেই তাকে উপেক্ষা করতে থাকেন বার্তোমেউ। আলভেজ চাইলেও নতুন কোনো চুক্তির ব্যাপারে আগ্রহ দেখাননি তিনি। আর এরমাঝেই দল-বদলের বাজারে নিষেধাজ্ঞায় পড়ে ক্লাবটি। এরপর বাধ্য হয়েই আলভেজের সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করতে চেয়েছিলেন বার্তোমেউ। কিন্তু অভিমানে তখন আর আগ্রহ দেখাননি এ ব্রাজিলিয়ান।

যখন বার্সা ছাড়েন আলভেজ তখন তার বয়স ছিল ৩৩। এ বয়সী একজন খেলোয়াড় কতদিন উঁচু পর্যায়ে খেলতে পারবেন এ নিয়া দ্বিধায় ছিলেন বার্তোমেউ। কিন্তু এ চ্যালেঞ্জটা নিয়েছিলেন আলভেজ। যোগ দেন জুভেন্টাসে। অসাধারণ খেলে নিজেকে প্রমাণও করেই ফিরতে চেয়েছিলেন বার্সায়। কিন্তু নিজেদের ভুল মেনে নিয়ে তার সঙ্গে চুক্তি করার সাহস দেখাননি বার্তোমেউ।

Comments

The Daily Star  | English
Impact of poverty on child marriages in Rasulpur

The child brides of Rasulpur

As Meem tended to the child, a group of girls around her age strolled past the yard.

13h ago