ভিজিএফ’র টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যান আটক

ভিজিএফ’র টাকা আত্মসাৎ ও নানা অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার গুনাইগাছ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ খোকাকে আটক করেছে পুলিশ।
আবুল কালাম আজাদ খোকা। ছবি: সংগৃহীত

ভিজিএফ’র টাকা আত্মসাৎ ও নানা অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার গুনাইগাছ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ খোকাকে আটক করেছে পুলিশ।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে তাকে তার নিজ কার্যালয় থেকে আটক করা হয়।

উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইমতিয়াজ কবির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে চেয়ারম্যানকে আটকের খবর পেয়ে ইউনিয়ন পরিষদে ছুটে এসে চেয়ারম্যানের শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ দেখান ভুক্তভোগীরা।

আটককৃত চেয়ারম্যানের নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ তুলে ওই ইউনিয়নের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য মমতাজ পারভীন দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘ঈদুল ফিতর উপলক্ষে গুনাইগাছ ইউনিয়নে ছয় হাজার ১৭৮ পরিবারের জন্য ৪৫০ টাকা করে ২৭ লাখ ৮০ হাজার ১০০ টাকা এবং সরকারের করোনাকালীন বিশেষ সহায়তা হিসেবে ৬২৫ পরিবারের প্রত্যেকের জন্য ৪০০ টাকা করে আড়াই লাখ টাকা বরাদ্দ আসে। কিন্তু চেয়ারম্যান কয়েকজনকে কিছু টাকা দিয়ে অধিকাংশ টাকাই আত্মসাৎ করেন।’

তিনি আরও অভিযোগ করেন, ‘চেয়ারম্যান বয়স্ক ও বিধবা ভাতার কার্ড করে দেওয়ার কথা বলে ইউপি সদস্যদের কাছ থেকে তালিকা নেন এবং তার লোকজন দিয়ে তালিকা অনুযায়ী হতদরিদ্রদের কাছ থেকে টাকা আদায় করেন।’ ‘দরিদ্রদের মধ্যে যারা টাকা দিতে পারেনি তাদেরকে বাদ দিয়ে তুলনামূলক সচ্ছলদের টাকার বিনিময়ে তিনি কার্ড করে দিয়েছেন। ভুক্তভোগীদের অভিযোগ চেয়ারম্যানের কাছে তুলে ধরলে তিনি আমাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করতেন এবং ইউনিয়ন পরিষদ থেকে তাড়িয়ে দিতেন,’ যোগ করেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেছিলাম।’

গুনাইগাছ গ্রামের হতদরিদ্র রোমেলা বেওয়া (৫৬) দ্য ডেইলি স্টারকে অভিযোগ করে জানান, ঈদ উপলক্ষে ভিজিএফ’র টাকা দেওয়ার কথা বলে জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি নিয়েও কিছুই দেননি চেয়ারম্যান।

একই গ্রামের আখের আলী (৬৮) অভিযোগ করে বলেন, দাবিকৃত ঘুষের টাকা চেয়ারম্যানকে দিতে না পারায় তাকে বয়স্কভাতার কার্ড করে দেননি চেয়ারম্যান।

উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইমতিয়াজ কবির দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগগুলোর প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেছে। এজন্য তাকে আটক করা হয়েছে। চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।’

উলিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নুরে জান্নাত রুমি দ্য ডেইলি স্টারকে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে গুনাইগাছ ইউপি চেয়ারম্যানকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের প্রমাণ পাওয়া গেছে। এখন আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

Comments