প্রবাসে

ফিলিস্তিনিদের ওপর হামলার প্রতিবাদে স্পেনে বাংলাদেশিদের বিক্ষোভ

ফিলিস্তিনে ইসরাইলের বর্বরোচিত হামলার প্রতিবাদে স্পেনে বিক্ষোভ করেছেন হাজার হাজার মানুষ। রাজধানী মাদ্রিদ এবং গ্রানাদাসহ বিভিন্ন শহরে ওই বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। স্প্যানিশ এবং অন্যদেশের অভিবাসীদের সঙ্গে বাংলাদেশিরাও বিক্ষোভে অংশ নেন।
গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি হামলার প্রতিবাদে স্পেনের মাদ্রিদে বিক্ষোভ-সমাবেশে বাংলাদেশিরা। ছবি: স্টার

ফিলিস্তিনে ইসরাইলের বর্বরোচিত হামলার প্রতিবাদে স্পেনে বিক্ষোভ করেছেন হাজার হাজার মানুষ। রাজধানী মাদ্রিদ এবং গ্রানাদাসহ বিভিন্ন শহরে ওই বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। স্প্যানিশ এবং অন্যদেশের অভিবাসীদের সঙ্গে বাংলাদেশিরাও বিক্ষোভে অংশ নেন।

স্থানীয় সময় শনিবার সকালে রাজধানী মাদ্রিদের প্রাণকেন্দ্র সোল (জিরো পয়েন্ট) এলাকায় অনুষ্ঠিত বড় সমাবেশে হাজার হাজার বিক্ষোভকারী ফিলিস্তিনের পতাকা নিয়ে সংহতি জানায়।

এ সময় ‘ইসরাইল বের হও’ এবং ‘ফিলিস্তিনের জন্য স্বাধীনতা’ লেখা প্ল্যাকার্ড, ফেস্টুন ও ব্যানার নিয়ে বিক্ষোভকারীরা স্লোগান দেন।

স্পেনের নাগরিকদের সঙ্গে বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন, রাজনৈতিক নেতা, বাংলাদেশ, মরক্কো, সিরিয়া, আলজেরিয়া, আফ্রিকানসহ অভিবাসীরাও ইসরাইলের বর্বরোচিত হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি হামলার প্রতিবাদে স্পেনের মাদ্রিদে বিক্ষোভ-সমাবেশ। ছবি: স্টার

সমাবেশে বক্তারা ফিলিস্তিনের ওপর ইসরাইলের হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, এ হামলা মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ। গোটা বিশ্ব যখন করোনা মহামারিতে ক্লান্ত, তখন অবৈধ দখলদার ইসরাইল আবারও দানবীয় রূপে আবির্ভূত হয়েছে।

বিক্ষোভকারীরা ইসরায়েলের এই আক্রমণকে গণহত্যা বলে আখ্যা দেন। এ সময় ফিলিস্তিনি কয়েকজন নাগরিক সমাবেশে উপস্থিতি হয়ে তাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানান।

বিক্ষোভে বাংলাদেশি কমিউনিটি নেতাদের মধ্যে বাংলাদেশ এসোসিয়েশন ইন স্পেনের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান সুন্দর, মানবাধিকার সংগঠন ভালিয়ান্তে বাংলার সভাপতি মো. ফজলে এলাহী, সাধারণ সম্পাদক  রমিজ উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

লেখক: স্পেন প্রবাসী সাংবাদিক

Comments

The Daily Star  | English

Extreme heat sears the nation

The scorching heat continues to disrupt lives across the country, forcing the authorities to close down all schools and colleges till April 27.

8h ago