বরিশালে নদীতে ইলিশ নেই, জেলেরা ফিরছেন খালি হাতে

বরিশালের নদ-নদীতে মিলছে না ইলিশ। খালি হাতেই নদী থেকে ফিরতে হচ্ছে জেলেদের। জেলেরা জানায়, গত বছরও তারা কিছু ইলিশ পেয়েছেন, এবার তাও মিলছে না। মৎস্য বিভাগের কর্মকর্তারা বলছেন, অতিরিক্ত তাপমাত্রা ও বৃষ্টি না হওয়ার কারণেই নদ-নদীতে মাছ আসছে না।
সাগরে ইলিশ ধরায় নিষেধাজ্ঞা ও নদীতে ইলিশ মাছ ধরা না পড়ায় অলস সময় কাটাচ্ছেন মাছ শ্রমিকেরা। ছবিটি শনিবার বরিশাল নগরের পোর্টরোড পাইকারী বাজার থেকে তোলা। ছবি: টিটু দাস/স্টার

বরিশালের নদ-নদীতে মিলছে না ইলিশ। খালি হাতেই নদী থেকে ফিরতে হচ্ছে জেলেদের। জেলেরা জানায়, গত বছরও তারা কিছু ইলিশ পেয়েছেন, এবার তাও মিলছে না। মৎস্য বিভাগের কর্মকর্তারা বলছেন, অতিরিক্ত তাপমাত্রা ও বৃষ্টি না হওয়ার কারণেই নদ-নদীতে মাছ আসছে না।

অন্যদিকে মৎস্য গবেষকরাও বলছেন, এই সময়ে এমনিতেই ইলিশ থাকে না। এ ছাড়া গত কয়েক বছরের মধ্যে এবারে বৃষ্টিপাত কম হওয়ায় ইলিশ আসছে না।

ভোলার চরফ্যাশনের জেলে আলাউদ্দিন মাঝি গত ৬ দিন আগে ৭ জন জেলে নিয়ে নদীতে গেলেও মাত্র ৩০ কেজি মাছ নিয়ে ফিরেছেন গত শুক্রবার।

তিনি জানান, একবার নদী থেকে ঘুরে আসতে ২০/২৫ হাজার টাকা খরচ হয়। এবার খরচের টাকাও উঠছে না।

বরিশালে ইলিশের সবচেয়ে বড় পাইকারি বাজার পোর্ট রোড পাইকারি মার্কেটের ইলিশ ব্যবসায়ী জহিরুল শিকদার জানান, দুই মাস আগেও প্রতিদিন ১০০/১৫০ কেজি ইলিশ মাছ এলেও এখন ভোলা-বরিশাল মিলে ৫০ কেজি মাছও আসছে না।

এদিকে ২০ মে থেকে সমুদ্রে ইলিশ মাছ ধরা বন্ধ থাকায় সমুদ্র থেকে ইলিশ আহরণ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এর প্রভাব পড়েছে বাজারে, বলে জানান পোর্ট রোড মৎস্য আড়তদার সমিতির সম্পাদক নীরব হোসেন টুটুল।

তিনি জানান বাজারে মাছ না থাকায় যে কয়েক কেজি ইলিশ আসছে তার দামও চড়া। এক কেজি সাইজের ইলিশ বর্তমানে ২ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

শুধু ইলিশ না অন্যান্য সামুদ্রিক মাছ আহরণ বন্ধ থাকায় বাজারে মাছের সরবরাহ কমে গেছে বলে জানান আরেক ব্যবসায়ী।

বাংলাদেশ ক্ষুদ্র মৎস্যজীবী সমিতির বিভাগীয় সভাপতি ইসরাইল পন্ডিত জানান, নদীতে ইলিশ শুধু নয় কোনো মাছই মিলছে না, জেলেরা আসছে খালি হাতে। গত এপ্রিল থেকে ২ মাসের নিষেধাজ্ঞা শেষে মে মাস থেকে শুরু হয়েছে ৬৫ দিনের নিষেধাজ্ঞা এর ফলে জেলেরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, এখন নদীতেও মিলছে না মাছ।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও  ইলিশ গবেষক আনিসুর রহমান জানান, মে জুন মাস পর্যন্ত ইলিশ না পাওয়া স্বাভাবিক। তবে গত কয়েক বছরের মধ্যে এবার বৃষ্টিপাত সবচেয়ে কম হয়েছে। এর ফলে ইলিশ মাছের পরিমানও কম। বৃষ্টি শুরু হলে অবস্থার পরিবর্তন হবে।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. আসাদুজ্জামান জানান, ইলিশ উপযোগী পরিবেশের অভাবের কারণেই ইলিশ আসছে না। বর্ষা শুরু হলে আবার ইলিশ আসবে আর এটা জুলাই থেকে হতে পারে।

বরিশাল বিভাগীয় মৎস্য অফিস থেকে জানা গেছে গত বছরে সাড়ে ৩ লাখ টন ইলিশ দক্ষিণাঞ্চল থেকে আহরণ করা হয়েছে, এবার টার্গেট ধরা হয়ে ৩ দমশিক ৬ লাখ টন। আগামী জুলাই থেকে অক্টোবর ইলিশের সিজনে সংগ্রহ হবে বলে তারা মনে করেছেন।

Comments