উড়োজাহাজ ঘুরিয়ে সাংবাদিক গ্রেপ্তার, বেলারুশের ওপর ইইউ’র নিষেধাজ্ঞা

বেলারুশের মিনস্কে গত রোববার উড়োজাহাজ ঘুরিয়ে নিয়ে এক সাংবাদিককে গ্রেপ্তারের পর ইউরোপের আকাশে দেশটির উড়োজাহাজ পরিচালনাকারী সংস্থাগুলোকে নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।
রোমান প্রোতাসেভিচ। ছবি: সংগৃহীত

বেলারুশের মিনস্কে গত রোববার উড়োজাহাজ ঘুরিয়ে নিয়ে এক সাংবাদিককে গ্রেপ্তারের পর ইউরোপের আকাশে দেশটির উড়োজাহাজ পরিচালনাকারী সংস্থাগুলোকে নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

ব্রাসেলসে অনুষ্ঠিত বৈঠকে ২৭টি সদস্য রাষ্ট্রের নেতারা ইউরোপীয় ইউনিয়নের উড়োজাহাজ পরিচালনাকারী সংস্থাগুলোকে বেলারুশের আকাশে না উড়ানোর কথা বলেছেন এবং বেলারুশের ওপর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃত সাংবাদিক রোমান প্রোতাসেভিচ (২৬) গ্রীস থেকে লিথুয়ানিয়াগামী একটি ফ্লাইটে ছিলেন। যেটি বোমা বিস্ফোরণে হুমকিতে থাকার কথা বলে মিনস্কে ঘুরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

পশ্চিমা দেশগুলো বেলারুশের বিরুদ্ধে রায়না এয়ারের ফ্লাইটটি ‘হাইজ্যাক’ করার অভিযোগ এনেছে।

আজ সোমবার প্রকাশিত একটি ভিডিওতে ওই সাংবাদিক জানান, তিনি সুস্থ আছেন এবং বেলারুশ তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ এনেছে সম্ভবত তিনি তা স্বীকার করেছেন।

তবে দেশটির প্রধান বিরোধীদলীয় নেতাসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা ভিডিওটির সমালোচনা করে বলেছেন, রোমানকে অন্যায় স্বীকার করার জন্য চাপের মধ্যে রাখা হয়েছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বেলারুশিয়ান কর্তৃপক্ষের এই উদ্যোগকে ‘ভয়ংকর’ বলে বর্ণনা করে বলেছেন, ‘তারা রাজনৈতিক মতবিরোধ এবং গণমাধ্যমের স্বাধীনতা উভয়েরই ওপর লজ্জাজনকভাবে আক্রমণ করেছে।’

রোমান প্রোতাসেভিচের বাবা দিমিত্রি প্রোতাসেভিচ বিবিসিকে জানান তিনি আশঙ্কা করছেন যে তার ছেলের ওপর নির্যাতন করা হতে পারে।

দিমিত্রি সোমবার বলেছিলেন, তার দেশের কর্তৃপক্ষ তার ছেলের সাথে কীভাবে আচরণ করবে সে সম্পর্কে তিনি ‘সত্যই ভয় পেয়েছেন’।

‘আমরা আশা করি রোমান সবকিছু সামলাতে পারবে। আমরা এ নিয়ে ভাবতেও ভয় পাই, সম্ভবত তাকে মারধর ও নির্যাতন করা হতে পারে। আমরা সত্যই খুব ভয়ে আছি,’ বলেন রোমানের বাবা।

‘আমরা সত্যিই বিস্মিত এবং মর্মাহত। এই ধরণের ঘটনা একবিংশ শতাব্দীতে ইউরোপের কেন্দ্রে ঘটা উচিত নয়,’ যোগ করেন তিনি।

দিমিত্রি আরও বলেন, ‘আমরা আশা করি যে ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ পুরো আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় বেলারুশিয়ান কর্তৃপক্ষের ওপর চাপ প্রয়োগ করবে। চাপটি কার্যকর হবে এবং কর্তৃপক্ষ বুঝতে পারবে যে তারা সত্যই বড় ভুল করেছে।’

Comments

The Daily Star  | English

International Mother Language Day: Languages we may lose soon

Mang Pru Marma, 78, from Kranchipara of Bandarban’s Alikadam upazila, is among the last seven speakers, all of whom are elderly, of Rengmitcha language.

9h ago