প্রবাসে

করোনার সংক্রমণ বাড়ায় বাহরাইনে আবারও বিধি-নিষেধ আরোপ

বাহরাইনে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার বেড়ে যাওয়ায় আবারও বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার মধ্যরাত ১২টা থেকে আগামী ১০ জুন রাত ১২টা পর্যন্ত বিধিনিষেধ বহাল থাকবে।
করোনাকালীন বিধি-নিষেধে বাহরাইনের একটি সড়কের দৃশ্য। ২ মে, ২০২০। ছবি: রয়টার্স

বাহরাইনে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার বেড়ে যাওয়ায় আবারও বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার মধ্যরাত ১২টা থেকে আগামী ১০ জুন রাত  ১২টা পর্যন্ত  বিধিনিষেধ বহাল থাকবে।

বুধবার দেশটির  করোনা প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধে নিয়োজিত জাতীয় টাস্কফোর্স নতুন করে দুই সপ্তাহের জন্য বিধিনিষেধ আরোপের ঘোষণা দেয়।

নতুন ঘোষণা অনুযায়ী শপিংমল, খুচরা দোকানে, বেসরকারি জিম, ক্রীড়া সুবিধা, সুইমিংপুল, সৈকত, বিনোদন অঞ্চল, সিনেমা হল, সেলুন, হেয়ার ড্রেসার ও স্পা বন্ধ থাকবে। রেস্তোরাঁ ও ক্যাফেতে পরিষেবা কেবল গ্রহণ ও ডেলিভারির মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে।

এছাড়া, বাড়ির অনুষ্ঠান ও জনসমাগমসহ যে কোনো সম্মেলন, ক্রীড়া ইভেন্টে সমর্থকদের উপস্থিতি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। স্কুল বন্ধ থাকবে, তবে ক্লাস হবে অনলাইনে। সরকারি মন্ত্রণালয়ের কার্যক্রম ৩০ শতাংশ সক্ষমতায়  চলবে।

বিধিনিষেধের  আওতামুক্ত থাকবে সুপার মার্কেট, ফলমূল, শাকসবজি ও টাটকা মাছের দোকান, কসাইখানা, বেকারি, পেট্রোল ও গ্যাস স্টেশন, বেসরকারি হাসপাতাল,  ফার্মেসি, টেলিযোগাযোগ পরিষেবা (ব্যাটেলকো, জেইন ও এসটিসি), ব্যাংক ও মানি এক্সচেঞ্জ, এটিএম বুথ, বেসরকারি সংস্থা এবং অফিস, আমদানি, রপ্তানি,  বিতরণ ব্যবসা, নির্মাণ ও রক্ষণাবেক্ষণ খাত এবং কারখানা।

উপসাগরীয় দেশটির জনসংখ্যার উল্লেখযোগ্য সংখ্যক টিকার আওতায় চলে আসার রমজানের শুরু থেকে বিধিনিষেধ শিথিল করা হয়। ঈদের পর থেকে বন্ধ থাকা অনেক কিছু পর্যায়ক্রমে খুলে দেওয়া শুরু হয়। টিকার সনদ দেখিয়ে মসজিদ,  হোটেল, কফি শপ, জিম সেন্টার, পার্টি সেন্টার, সিনেমা হলে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়। কিন্তু,  হঠাৎ করে করোনা আক্রান্ত ও মৃত্যু বেড়ে যাওয়ায় করোনা ভ্যাকসিন সার্টিফিকেট ছাড়া সরকারি অফিস, সেলুন, শপিং সেন্টারে প্রবেশ নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছিল। এখন সব কিছু বন্ধ করে দেওয়া হলো।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী- বাহরাইনে এ পর্যন্ত দুই লাখ ২৬ হাজার ৪১৬ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৮৮৭ জন এবং সুস্থ হয়েছেন এক লাখ ৯৯ হাজার ৭১৩ জন।

বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় ৬১ জন বাংলাদেশি মারা গেছেন বলে বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্র নিশ্চিত করেছে।

Comments

The Daily Star  | English

No global leader raised any questions about election: PM

Prime Minister Sheikh Hasina today said no global leader raised any concerns or questions about last month's general election during her recent visit to Germany

3h ago