ছোট লক্ষ্য তাড়ায় শেষ ওভারে গিয়ে জয় তামিমদের

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ টি-টোয়েন্টিতে বুধবার রাতের ম্যাচে শাইনপুকুরকে ৩ উইকেটে হারিয়েছে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব। আগে ব্যাট করে শাইনপুকুর করেছিল মাত্র ১১৯ রান। ৩ বল আগে ওই রান পেরিয়ে টানা দ্বিতীয় জয় পায় তামিমের দল।
Rony Talukder & Tamim Iqbal
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

ব্যবহৃত উইকেট মন্থর হয়ে পড়েছিল। তাতে লড়াইয়ের পুঁজি আনতে পারেনি শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাব। তবে অল্প পুঁজি নিয়েই তারা তামিম ইকবালদের শক্ত ব্যাটিং লাইনআপ কাঁপিয়ে দিল। জিততে না পারলেও খেলা নিয়ে গেল শেষ ওভার পর্যন্ত।

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ টি-টোয়েন্টিতে বুধবার রাতের ম্যাচে শাইনপুকুরকে ৩ উইকেটে হারিয়েছে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব। আগে ব্যাট করে শাইনপুকুর করেছিল মাত্র ১১৯ রান। ৩ বল আগে ওই রান পেরিয়ে টানা দ্বিতীয় জয় পায় তামিমের দল।

দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৩২ রান করেছেন তামিম। তবে তা করতে তার লেগেছে ২৭ বল। মাত্র ১৫ বলে ৩ চার, ১ ছক্কায় ২৬ রান করে দলের জয়ে বরং বড় ভূমিকা রনি তালুকদারের।

১২০ রানের লক্ষ্যে অধিনায়ক এনামুল হক বিজয়কে দ্বিতীয় ওভারেই হারিয়ে ফেলে প্রাইম। টানা দ্বিতীয় ম্যাচে ব্যর্থ এনামুল সুমন খানের বলে খোঁচা মেরে উইকেটের পেছনে দেন ক্যাচ। তার ব্যাট থেকে আসে ৭ বলে ৫ রান।

দ্বিতীয় উইকেটেই খেলার নাটাইটা হাতে পেয়ে গিয়েছিল প্রাইম। রনিকে নিয়ে তামিম পেয়ে যান ৫২ রানের জুটি। যাতে রনির অবদানই ছিল বেশি। মন্থর উইকেটে স্পিনারদের বিপক্ষে দ্রুত রান আনতে ভুগছিলেন তামিম। তার ইনিংস অবশ্য শেষ হয়েছে রান আউটে। ২৭ বলে ৪ চার, ১ ছক্কায় ৩২ করে যান প্রাইমের সবচেয়ে বড় তারকা।

রানআউটের ভূত যেন পেয়ে যায় প্রাইমকে।খানিক পর  চারে নামা মোহাম্মদ মিঠুনেরও একই পরিণতি।  পরিস্থিতি বিচারে দারুণ খেলতে থাকা রনি ফেরেন ইনিংসের দশম ওভারে। হঠাৎ করেই যেন উলটোপথে হাঁটতে থাকে শিরোপা প্রত্যাশীদের ইনিংস। অলক কাপালি, নাহিদুল ইসলামও তড়িঘড়ি বিদায় নিলে ৭৫ রানে ৬ উইকেট পড়ে যায়।

শরিফুল ইসলাম উঠে ১০ বলে ১২ করে আউট হলে ম্যাচ হেলে যায় শাইনপুকুরের দিকে। কিন্তু অভিজ্ঞ রকিবুল হাসান ছিলেন টিকে। এক প্রান্ত আগলে রেখে অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার নাঈম হাসানকে দিয়ে তিনি খেলা বের করে নেন। রকিবুল করেন ৩৪ বলে ১৮, ১৬ বলে ১৮ করে ম্যাচ জিতিয়ে আসেন নাঈম।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ধুঁকতে থাকে শাইনপুকুর। রান বের করতেই যেন তাদের হাঁসফাঁস দশা। ওপেনার সাব্বির হোসেন করেন ১৪ বলে ১৫। তানজিদ হাসান তামিম ২১ রান করতেই লাগিয়ে ফেলেন ২৮ বল।

মোস্তাফিজুর রহমান, শরিফুল ইসলামদের আদর্শ কন্ডিশনের সঙ্গে মনির হোসেন, নাঈম হাসানের স্পিন বিষময় করে দেয় শাইনপুকুরের এগিয়ে চলা। শেষ পর্যন্ত অধিনায়ক তৌহিদ হৃদয়ের ২৫ বলে ২৯, রবিউল হকের ১৩ বলে ১৬ রানে একশো পার হয় দলের রান। তবে উইকেট বিচারে অন্তত আরও ২০ রানের ঘাটতি থেকে যায় তাদের।

 

 

Comments

The Daily Star  | English
Israel bombing of Rafah

Column by Mahfuz Anam: Another veto prolongs genocide in Gaza

The goal of the genocide in Gaza is to take over what's left of Palestinian land.

9h ago