বিশাল জয়ে জার্মানির ইউরো প্রস্তুতি

সময়টা ভালো যাচ্ছিল না জার্মানির। প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে ডেনিশদের সঙ্গে ড্র। এর আগে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ম্যাচে তো উত্তর মেসেডোনিয়ার কাছে হেরেই বসে তারা। তবে সব ছাপিয়ে ছন্দের দেখা পেয়েছে তারা। লাটভিয়ার জালে রীতিমতো গোল উৎসবে মেতেছে দলটি। তাতে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের প্রস্তুতিটা ভালোভাবেই সারল তিনবারের চ্যাম্পিয়নরা।
ছবি: সংগৃহীত

সময়টা ভালো যাচ্ছিল না জার্মানির। প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে ডেনিশদের সঙ্গে ড্র। এর আগে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ম্যাচে তো উত্তর মেসেডোনিয়ার কাছে হেরেই বসে তারা। তবে সব ছাপিয়ে ছন্দের দেখা পেয়েছে তারা। লাটভিয়ার জালে রীতিমতো গোল উৎসবে মেতেছে দলটি। তাতে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের প্রস্তুতিটা ভালোভাবেই সারল তিনবারের চ্যাম্পিয়নরা।

সোমবার ডুসেলডর্ফের মার্কার স্পিয়েল অ্যারেনায় আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে লাটভিয়াকে ৭-১ গোলের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছে জার্মানি। দলের হয়ে একটি করে গোল করেছেন রবিন গোজেন্স, ইকাই গুন্দোগান, টমাস মুলার, সার্জ নাব্রি, টিমো ভের্নার ও লেরয় সানে। অপর গোলটি আত্মঘাতী। লাটভিয়ার বিপক্ষে সান্ত্বনাসূচক গোলটি করেন আলেকসেজ সেভেলিয়াভজ।

এদিন ম্যাচের শুরু থেকেই একের পর এক আক্রমণ লাটভিয়াকে কোণঠাসা করে ফেলে জার্মানি। মোট ২৪টি শট নেয় তারা। অবশ্য এর সিংহভাগই আসে প্রথমার্ধে। এ অর্ধে ১৫টি শট নেয় তারা। গোলও পায় পাঁচটি। তবে দ্বিতীয়ার্ধে নিজেদের কিছুটা গোছাতে পারে লাটভিয়া। 

ম্যাচের প্রথম তিন মিনিটে দুটি গোল পেতে পারতো জার্মানি। তবে ১৯তম মিনিটেই এগিয়ে যায় দলটি। বাঁ প্রান্ত থেকে কাই হাভার্টজের কাটব্যাক থেকে দলের প্রথম গোলটি করেন গোজেন্স। ক্যারিয়ারে এটাই প্রথম আন্তর্জাতিক গোল এ আতালান্তা ডিফেন্ডারের।

দুই মিনিট পরই ফের গোল পায় দলটি। ডান প্রান্তে মুলারকে পাস দিতে গেলে প্রতিপক্ষ এক খেলোয়াড়ের পায়ে লেগে ফের বল পেয়ে যান গুন্দোগান। ফাঁকায় জায়গা করে নিয়ে জোরালো শটে লক্ষ্যভেদ করেন এ ম্যানচেস্টার সিটি মিডফিল্ডার।

২৬তম মিনিটেই ব্যবধান আরও বাড়াতে পারতো জার্মানি। ইয়াশুয়া কিমিখের শট বারপোস্টে লেগে বেরিয়ে যায়। তবে পরের মিনিটেই ডি-বক্সে গোজেন্সের কাটব্যাক থেকে লক্ষ্যভেদ করে ব্যবধান ৩-০ করেন মুলার। ৩৯তম মিনিটে দুরূহ কোণ থেকে কাই হাভার্টজের নেওয়া শট ঠেকাতে গেলে গোলরক্ষক ওজলসের পায়ে লেগে বল জালে প্রবেশ করে।

বিরতির আগে নিজেদের অর্ধ থেকে ম্যাট হ্যামেলসের অসাধারণ এক থ্রু পাস থেকে একেবারের ফাঁকায় বল পেয়ে যান নাব্রি। দারুণভাবে বল নিয়ন্ত্রণ করে গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে জোরালো শটে লক্ষ্যভেদ করেন এ বায়ার্ন মিউনিখ তারকা।

বিরতির পরপরই ফের গোল পায় জার্মানি। কিমিখের পাস থেকে দারুণভাবে বলের দিক পরিবর্তন করে জালে পাঠান বদলি খেলোয়াড় ভের্নার। ৭৫তম মিনিটে অসাধারণ এক গোলে ব্যবধান কমায় লাটভিয়ার বদলি খেলোয়াড় সেভেলিয়াভজ। ডান প্রান্ত থেকে ডি-বক্সের বাইরে থেকে বুলেট গতির শট বাঁক খেয়ে জালে প্রবেশ করে।

পরের মিনিটেই দলের শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন সানে। মুলারের কাছ থেকে বল পেয়ে জালে পাঠান বদলি নামা এ বায়ার্ন মিউনিখ তারকা।

উল্লেখ্য, আগামী ১৫ জুন বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে জার্মানির ইউরো অভিযান। ‘এফ’ গ্রুপে তাদের অপর দুই প্রতিপক্ষ বর্তমান চ্যাম্পিয়ন পর্তুগাল ও হাঙ্গেরি।

Comments