একটিমাত্র প্রতিষ্ঠানকে দায়িত্ব দেওয়ায়, টিকা পেতে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে: টিআইবি

একটিমাত্র প্রতিষ্ঠানকে করোনাভাইরাসের টিকা সংগ্রহের দায়িত্ব দেওয়ার কারণে, ভ্যাকসিন পাওয়ায় অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান।

একটিমাত্র প্রতিষ্ঠানকে করোনাভাইরাসের টিকা সংগ্রহের দায়িত্ব দেওয়ার কারণে, ভ্যাকসিন পাওয়ায় অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান।

ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘যার ফলে সরকার এখন বিভিন্ন উৎস থেকে ভ্যাকসিন সংগ্রহের চেষ্টা করলেও, এখন পর্যন্ত কোনো সাফল্য আসেনি।’

আজ মঙ্গলবার টিআইবি পরিচালিত ‘করোনাভাইরাস সংকট মোকাবিলা: কোভিড-১৯ টিকা ব্যবস্থাপনায় সুশাসনের চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক  গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘সরকার যেটা নিজে সংগ্রহ করতে পারত, সেটা তৃতীয় পক্ষের একটি প্রতিষ্ঠানকে দায়িত্ব দিয়ে তাকে লাভবান করেছে।’ এছাড়া ভ্যাকসিন কেনার ক্ষেত্রে আইনানুগ প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়নি বলেও জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে টিআইবির রিসার্স ফেলো মো. জুলকারনাইন দেশের কোভিড-১৯ ব্যবস্থাপনা ও ভ্যাকসিন নিয়ে একটি গবেষণা প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন।

জুলকারনাইন বলেন, ‘সরকার যদি সরাসরি সেরাম ইনস্টিটিউটের কাছ থেকে ভ্যাকসিন সংগ্রহ করতো তাহলে ২৩১ কোটি টাকা বাঁচাতে পারতো।’

এছাড়া সুশাসনের সাতটি মানদণ্ড অনুযায়ী কোভিড-১৯ ব্যবস্থাপনা এবং টিকাদান কর্মসূচিতে কী ধরনের অব্যবস্থাপনা ছিল সেগুলোও ব্যাখ্যা করেন তিনি।

ড. ইফতেখারুজ্জামান জানান, দেশের ৮০ শতাংশ মানুষের জন্য কীভাবে ভ্যাকসিন সংগ্রহ করা হবে তার কোনও ফ্যাক্ট বেজড পরিকল্পনা নেই।

তিনি বলেন, ‘কোভিড-১৯-এর শুরু থেকে সরকারের তথ্য নিয়ন্ত্রণের প্রবণতা বেশি ছিল এবং এ ক্ষেত্রে সাংবাদিক রোজিনা ইসলামসহ বেশ কিছু এ ধরনের কিছু ঘটনা প্রত্যক্ষ করেছি। সরকার দুর্নীতি রোধের চেয়ে তথ্য নিয়ন্ত্রণে শতভাগ বেশি সক্রিয় ছিল।’

Comments

The Daily Star  | English

BCL men conduct late-night 'search of RU hall carrying rods, sticks’

Leaders and activists of Bangladesh Chhatra League's Rajshahi University unit searched different halls of the university early today carrying rods, stamps and sticks, students said

9m ago