করোনাভাইরাস

ভারতে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু বেড়ে ৪০০২, শনাক্ত ৮৪৩৩২

ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরও চার হাজার দুই জন। গতকাল শুক্রবার দেশটিতে করোনায় মারা যান তিন হাজার ৪০৩ জন।

ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরও চার হাজার দুই জন। গতকাল শুক্রবার দেশটিতে করোনায় মারা যান তিন হাজার ৪০৩ জন।

করোনায় এ পর্যন্ত ভারতে মারা গেছেন তিন লাখ ৬৭ হাজার ৮১ জন।

একই সময়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও ৮৪ হাজার ৩৩২ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। দেশটিতে মোট শনাক্ত হয়েছেন দুই কোটি ৯৩ লাখ ৫৯ হাজার ১৫৫ জন। সংক্রমণের দিক থেকে বিশ্বের মধ্যে ভারতের অবস্থান বর্তমানে দ্বিতীয়তে।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সুস্থ হয়েছেন আরও এক লাখ ২১ হাজার ৩১১ জন। মোট সুস্থ হয়েছেন দুই কোটি ৭৯ লাখ ১১ হাজার ৩৮৪ জন।

আজ শনিবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ভারতে সংক্রমণ সবচেয়ে বেশি মহারাষ্ট্রে। এরপর রয়েছে কর্ণাটক, কেরালা, তামিলনাড়ু, অন্ধ্রপ্রদেশ, উত্তর প্রদেশ, পশ্চিমবঙ্গ, দিল্লি, ছত্তিশগড় ও রাজস্থান।

গত ২৪ ঘণ্টায় মহারাষ্ট্রে শনাক্ত হয়েছেন ১১ হাজার ৭৬৬ জন।

ভারতে মোট শনাক্ত দুই কোটি ৯৩ লাখ ৫৯ হাজার ১৫৫ জনের মধ্যে বর্তমানে আক্রান্ত রয়েছেন ১০ লাখ ৮০ হাজার ৬৯০ জন।

ভারতে এখন পর্যন্ত ২৫ কোটি মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে এনডিটিভির প্রতিবেদনে।

পরিসংখ্যান নিয়ে কাজ করা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, ভারতের মোট জনসংখ্যা ১৩৯ কোটির বেশি। সেখানে প্রতি ১০ লাখ মানুষের মধ্যে গড়ে দুই লাখ ৬৮ হাজার ৭০০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। আর বাংলাদেশে জনসংখ্যা ১৬ কোটি ৬০ লাখের বেশি। এখানে প্রতি ১০ লাখ মানুষের মধ্যে গড়ে ৩৬ হাজার ৯৬৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৩০ জানুয়ারি ভারতে প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, সংক্রমণের দিক থেকে বর্তমানে বিশ্বে ভারতের অবস্থান দুই নম্বরে। ভারতের আগে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও পরে ব্রাজিল।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৭ কোটি ৬০ লাখ ৪৭ হাজার ৫০৫ জন এবং মারা গেছেন ৩৮ লাখ ৬৯১ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ১৫ কোটি ৯৬ লাখ ২১ হাজার ২৭৩ জন।

Comments

The Daily Star  | English

Traffic jam, delay in train schedule mar Eid journey

With people starting to leave the capital ahead of the Eid-ul-Azha, many endured sufferings today due to a snarl-up on a major highway and delayed departure of at least 10 trains

2h ago