হেফাজতের হত্যা মামলার আসামিদের ‘তোয়াজ’ করে পুলিশ: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার এমপি মোকতাদির

পুলিশ হত্যা মামলার আসামি হেফাজত নেতাদের ‘তোয়াজ’ করে বলে মন্তব্য করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল জিটিভির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী। ছবি: সংগৃহীত

পুলিশ হত্যা মামলার আসামি হেফাজত নেতাদের ‘তোয়াজ’ করে বলে মন্তব্য করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের  সংসদ সদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী।

আওয়ামী লীগের এই এমপি বলেন, ‘হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামি হেফাজত নেতারা বসে কমিটি করে। সেই কমিটিতে যারা অন্তর্ভুক্ত হয়, তারা একজনও ভালো লোক হওয়ার কথা না। তারাও অনেকে অনেক মামলার আসামি। তাদেরকে তোয়াজ করছে রাষ্ট্রের যারা আইন প্রয়োগের দায়িত্বে আছে, তারা। এরচেয়ে ন্যক্কার ও নিন্দাজনক আর কী হতে পারে?’

শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল জিটিভির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোকতাদির চৌধুরী এসব কথা বলেন।

হেফাজতে ইসলামের শীর্ষ নেতা জুনায়েদ বাবুনগরীকে ‘ইডিয়ট’ উল্লেখ করে এই সাংসদ বলেন, ‘পুলিশের বড় বড় কর্তাব্যক্তিরাও বলছেন, আহমদ শফীর হত্যাকারীদের একজন জুনায়েদ বাবুনগরী। অথচ রাষ্ট্রের যারা আইন প্রয়োগের দায়িত্বে আছেন, তাদের সঙ্গেই বৈঠক করেন বাবুনগরী। তাহলে এখানে তো আইন বৈষম্যমূলক হয়ে গেল। আমার জন্য একরকম, সাধারণ মানুষের জন্য আরেক রকম, আর বাবুনগরীর জন্য আরেক রকম। একটা অদ্ভুত অবস্থার মধ্যে আমরা আছি।’

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডবের ঘটনায় হেফাজতের দুই শীর্ষ নেতার বিরুদ্ধে তার নিজের দায়ের করা এজাহার মামলা হিসেবে নথিভুক্ত না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করে এমপি বলেন, ‘দেশের লাখ লাখ মানুষ দেখেছে এবং শুনেছে জামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসার লোকেরা আমার বিরুদ্ধে কী বলেছে। আমার নেতৃত্বে নাকি ছাত্রলীগ-যুবলীগ মাদ্রাসায় হামলা চালিয়েছে। আমি নাকি পাখির মতো মানুষ মেরেছি। পাখির মতো যদি মেরে থাকে, তাহলে পুলিশ মেরেছে। আমি একজন এমপি, একজন দায়িত্বশীল মানুষ। আমি একটা মামলা করেছি, সেই মামলার এজহারে দেওয়া ফেসবুক লিংক নাকি সিআইডি খুঁজে পায় না। এখন আইন বৈষম্যমূলক হয়ে গেছে। আইন সবার জন্য সমান নয়।’

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবের সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন জামির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার মেয়র নায়ার কবির, জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর দপ্তর) আবু সাঈদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জাবেদ রহিম বিজন, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাত প্রমুখ।

Comments

The Daily Star  | English
Inflation edges up despite monetary tightening. Why?

Inflation edges up despite monetary tightening. Why?

Bangladesh's annual average inflation crept up to 9.59% last month, way above the central bank's revised target of 7.5% for the financial year ending in June

2h ago