ময়মনসিংহে ছাত্রদল-পুলিশের সংঘর্ষ: ৫০০ জনের বিরুদ্ধে পুলিশের ২ মামলা

ময়মনসিংহে গতকাল বৃহস্পতিবার ছাত্রদলের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনায় দুটি মামলা করেছে পুলিশ। মামলায় কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামলসহ ৩৮ জনের নামে এবং অজ্ঞাতসহ মোট ৫০০ জনকে আসামি করা হয়েছে।
ময়মনসিংহে গতকাল পুলিশের সঙ্গে ছাত্রদলের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপ, লাঠিচার্জ ও গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটে। ছবি: সংগৃহীত

ময়মনসিংহে গতকাল বৃহস্পতিবার ছাত্রদলের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনায় দুটি মামলা করেছে পুলিশ। মামলায় কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামলসহ ৩৮ জনের নামে এবং অজ্ঞাতসহ মোট ৫০০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

আজ শুক্রবার কোতোয়ালি মডেল থানার উপপরিদর্শক মানিকুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলা দুটি করেন।

কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফিরোজ তালুকদার মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি দ্য ডেইলি স্টারকে জানান, বিস্ফোরক আইনে এবং পুলিশের কাজে বাঁধা ও হামলার ঘটনায় দুটি মামলা হয়েছে।

তিনি বলেন, 'কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামলসহ ৩৮ জনের নাম এবং অজ্ঞাত চার-পাঁচশ জনকে মামলায় আসামি করা হয়েছে।'

সংঘর্ষের পর আটক ছাত্রদলের আট নেতাকর্মীকে ওই দুই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আজ আদালতে হাজির করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

তিনি জানান, ঘটনাস্থল থেকে জব্দ করা ২০টি মোটরসাইকেল নিয়ে ট্রাফিক আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে, ছাত্রদল আয়োজিত জিয়াউর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকীর আলোচনা সভা পণ্ড করে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদকসহ নেতাকর্মীদের ওপর পুলিশের হামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে ময়মনসিংহ জেলা বিএনপি।

আজ শুক্রবার সকালে ময়মনসিংহ প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় দপ্তরের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, 'বৃহস্পতিবার চরকালিবাড়ি এলাকায় শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৪০তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে ছাত্রদল আয়োজিত আলোচনা সভায় পুলিশ প্রথমে বাঁধা দেয়। পরে জোর করে সভা বন্ধ করতে গিয়ে বিনা উসকানিতে লাঠিচার্জ ও নির্বিচারে গুলিবর্ষণ করে।'

'ন্যাক্কারজনক এই হামলায় ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হাবিবুর রশিদ হাবিব, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামলসহ ছাত্রদলের প্রায় ১০০ নেতাকর্মী আহত হন,' বলেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, 'এর মধ্যে ১৭ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন ও চার জনের মাথা ফেটেছে। ১০ জন নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার ও ২৮টি মোটরসাইকেল জব্দ করেছে পুলিশ।'

পুলিশের হামলা ও মিথ্যা মামলার নিন্দা জানিয়ে গ্রেপ্তারকৃতদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি ও মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান তিনি।

আরও পড়ুন:

ময়মনসিংহে ছাত্রদল-পুলিশ সংঘর্ষ, ওসিসহ আহত ৩০

Comments

The Daily Star  | English

Not feasible to share Teesta water: Mamata

West Bengal Chief Minister Mamata Banerjee today said no discussion on sharing of the Teesta water and the Ganges should be held with Bangladesh without the involvement of her state

25m ago