খুলনা বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২২ মৃত্যু, শনাক্তের হার ৩৪.৪৯

গত ২৪ ঘণ্টায় খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় করোনাভাইরাসে একদিনে সর্বোচ্চ ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে বিভাগে এ পর্যন্ত ৭৯৭ জন করোনায় মারা গেছেন। এর আগে গত বৃহস্পতিবার বিভাগে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সর্বোচ্চ ২০ জনের মৃত্যু হয়েছিল।
Coronavirus.jpg
ছবি: সংগৃহীত

গত ২৪ ঘণ্টায় খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় করোনাভাইরাসে একদিনে সর্বোচ্চ ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে বিভাগে এ পর্যন্ত ৭৯৭ জন করোনায় মারা গেছেন। এর আগে গত বৃহস্পতিবার বিভাগে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সর্বোচ্চ ২০ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

এছাড়া, গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের ১০ জেলায় মোট এক হাজার ৮১২টি নমুনা পরীক্ষায় ৬২৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে, শনাক্তের হার ৩৪ দশমিক ৪৯ এর আগের ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে সর্বোচ্চ এক হাজার ৩৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল। এ নিয়ে বিভাগে এ পর্যন্ত ৪৪ হাজার ২৬৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

আজ শনিবার দুপুরে খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক রাশেদা সুলতানা দ্য ডেইলি স্টারকে এ সব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে কুষ্টিয়ায় সাত জন, খুলনায় তিন জন, সাতক্ষীরায় চার জন, যশোরে তিন জন, চুয়াডাঙ্গায় দুই জন, মেহেরপুরে দুই জন ও ঝিনাইদহে একজন মারা গেছেন।

জেলাভিত্তিক করোনা সংক্রান্ত তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, খুলনায় ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৪৯ জনের। আগের ২৪ ঘণ্টায় এই শনাক্ত ছিল ২২৬ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট ১২ হাজার ৫৯৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ২০৬ জন ও সুস্থ হয়েছেন নয় হাজার ৯৩৪ জন।

খুলনার পরেই কুষ্টিয়া জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১২২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আগের ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ছিল ১৫৬ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট ছয় হাজার ১৭৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ১৪৭ জন ও সুস্থ হয়েছেন চার হাজার ৯৭৩ জন।

বাগেরহাটে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে তিন জনের। আগের ২৪ ঘণ্টায় ৮৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এ নিয়ে জেলায় মোট দুই হাজার ৪৮২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৬৩ জন ও সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৭২২ জন।

সাতক্ষীরায় ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৫৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর আগের ২৪ ঘণ্টায় ৮৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এ নিয়ে জেলায় মোট দুই হাজার ৮৫২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৬০ জন ও সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ১৯২৮ জন।

যশোরে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৬৩ জনের। এর আগের ২৪ ঘণ্টায় ২৯১ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এ নিয়ে জেলায় মোট নয় হাজার ৪০৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ১০৪ জন ও সুস্থ হয়েছেন ছয় হাজার ৭৪১ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় নড়াইলে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৮ জনের। এর আগের ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ছিল ৪৬ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট দুই হাজার ২১৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৩০ জন ও সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৮৪৭ জন।

মাগুরায় গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ১০ জনের। এর আগের ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয় ১০ জনের। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে এক হাজার ৩৮৫ জনের। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ২৪ জন ও সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ২২০ জন।

অপরদিকে ঝিনাইদহে ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ২৪ জনের। এর আগের ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ছিল ৫৪ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট তিন হাজার ৩০৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৬২ জন ও সুস্থ হয়েছেন দুই হাজার ৮৬৮ জন।

চুয়াডাঙ্গায় ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৭৬ জনের। এর আগের ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ছিল ৫৯ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট দুই হাজার ৫২৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৬৮ জন ও সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৯৩৮ জন।

মেহেরপুরে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৪ জনের। এর আগের ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ছিল ৩৩ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট এক হাজার ৩১৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৩৩ জন ও সুস্থ হয়েছেন ৯৫৫ জন।

খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক রাশেদা সুলতানা সাংবাদিকদের জানান, বিভাগ জুড়েই করোনার তীব্রতা আছে। পরীক্ষার ওপর ভিত্তি করে শনাক্তের হার বাড়া-কমা করছে।

তিনি জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির ওপর জোর দেন।

আরও পড়ুন:

খুলনা বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় পরীক্ষা ২৫২৫ শনাক্ত ১০৩৩, শনাক্তের হার ৪০.৯

খুলনার ১০ জেলায় করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি অব্যাহত

খুলনা বিভাগে শনাক্ত ১১৫ জন

খুলনা বিভাগে এক দিনের ব্যবধানে নতুন আক্রান্ত দ্বিগুণ, মৃত্যু ৭

ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টের হটস্পট হতে পারে খুলনা বিভাগ

Comments

The Daily Star  | English
Sheikh Hasina's Sylhet rally on December 20 | Hasina doubts if JP will stay in the race

PM expresses shock over Bailey Road building blaze

Prime Minister Sheikh Hasina today expressed deep shock and sorrow over the fire incident at a commercial-cum-residential building on Bailey Road in Dhaka that claimed dozens of lives

34m ago