প্রবাসে

দুবাইয়ে শেকড়ের খোঁজে’র ‘অগ্নিবীণায় গীতাঞ্জলি’

করোনা মহামারির দুর্বিষহ সময়ে মরুর বুকে এক সন্ধ্যায় ‘রবীন্দ্রনাথ-নজরুল’ উৎসব মেতে উঠেছিলেন দুবাই প্রবাসী বাংলাদেশিরা। ‘অগ্নিবীণায় গীতাঞ্জলি’ শীর্ষক কয়েক ঘণ্টার এই অনুষ্ঠান প্রবাসীর মনের গভীরে নাড়া দেন কবিগুরু ও জাতীয় কবি।
দুবাইয়ে ‘শেকড়ের খোঁজে’-এর আয়োজন ‘অগ্নিবীণায় গীতাঞ্জলি’। ছবি: সংগৃহীত

করোনা মহামারির দুর্বিষহ সময়ে মরুর বুকে এক সন্ধ্যায় ‘রবীন্দ্রনাথ-নজরুল’ উৎসব মেতে উঠেছিলেন দুবাই প্রবাসী বাংলাদেশিরা। ‘অগ্নিবীণায় গীতাঞ্জলি’ শীর্ষক কয়েক ঘণ্টার এই অনুষ্ঠান প্রবাসীর মনের গভীরে নাড়া দেন কবিগুরু ও জাতীয় কবি।

শুক্রবার সন্ধ্যায় সংযুক্ত আরব আমিরাতের বাণিজ্যিক ও ব্যস্ত শহরটির সুউচ্চ ভবন ক্রাউন প্লাজায় এই আয়োজন করে বাংলাদেশিদের সংগঠন ‘শেকড়ের খোঁজে’।

নাচ, গান, অভিনয়, কবিতায় প্রবাসী শিল্পীরা স্মরণ করেন বাঙালি চেতনার দুই আলোক বর্তিকা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এবং কাজী নজরুল ইসলামকে।

সন্ধ্যা হতেই অনুষ্ঠানে হাজির হন দেশি-বিদেশি অতিথিরা। স্বল্প আলোয় মঞ্চস্থ হয় সাহিত্যের দুই মহারথীর একেকটি সৃষ্টি। কখনো নজরুলের বিদ্রোহের কবিতা কখনো রবি ঠাকুরের প্রেমের গান।

ফাঁকে ফাঁকে সংগঠনের সদস্যদের কবিতা আবৃতি ও নৃত্য পরিবেশনায় পুরো সময়জুড়ে আগত অতিথিদের স্মরণের দুয়ারে এসে হাজির হন সাহিত্যের এই দুই নক্ষত্র।

দুই কবির সম্পর্ক কিংবা শিল্পচর্চা নিয়ে কথা বলেন অনুষ্ঠানের সঞ্চালক মামুন রেজা, আরিফা নুশরাত ও শেফা।

সংগঠনের সভাপতি কাজী গুলশান আরার পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন দুবাই বাংলাদেশ কনস্যুলেটের ডেপুটি কনসাল জেনারেল সাহেদুল ইসলাম।

এ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন শিক্ষাবিদ খন্দকার হাবিবুর রহমান, শিল্পোদ্যোক্তা মাহতাবুর রহমান নাসির, সংগঠক প্রকৌশলী মুয়াজ্জেম হোসেন, বাইজুন নাহার চৌধুরী।

অতিথিরা বলেন, যুগ-যুগ ধরে সবাইকে এই মহান দুই কবির সৃষ্টিশীল কর্ম চলার পথে প্রেরণা যুগিয়েছে। পাশ্চাত্য ধারা যতই এদেশে জায়গা করে নেওয়ার চেষ্টা করুক, রবীন্দ্র-নজরুলের চেতনা মানুষকে বরাবরই আলোর পথ দেখিয়ে যাবে।

বিদেশের মাটিতে দেশীয় সংস্কৃতি ও সাহিত্য চর্চায় এমন আয়োজনের ভূয়সী প্রশংসা করে তারা বলেন, প্রবাসে বাঙালি সংস্কৃতি কিংবা সাহিত্য চর্চায় শেকড়ের খোঁজে সংগঠনটি অবদান রাখছে। ‘অগ্নিবীণায় গীতাঞ্জলীর আয়োজন সেই ধারাবাহিকতার অংশ।

সভাপতি কাজী গুলশান বলেন, আমরা যারা প্রবাসে থাকি, সঙ্গত কারণে তারা বাংলা সাহিত্য-সংস্কৃতি থেকে অনেক দূরে আছি। আমাদের প্রবাসী প্রজন্মের কাছ বাংলা সাহিত্যের দুই মহারথী রবীন্দ্রনাথ -নজরুলকে তুলে ধরা এবং তাদের চেতনা সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতেই আমাদের আয়োজনের উদ্দেশ্য।

তিনি জানান, বাংলা সাহিত্য-শিল্প-সংস্কৃতি তুলে ধরতে আগামীতেও আমাদের দেশীয়  এমন আয়োজন অব্যাহত থাকবে।

Comments

The Daily Star  | English

No electricity at JU halls, protesters fear police crackdown

Electricity supply was cut off at Jahangirnagar University halls this night spreading fear of a crackdown among students

1h ago