শ্রীলঙ্কার বিবর্ণ ব্যাটিং প্রদর্শনীর ম্যাচে সিরিজ জিতল ইংল্যান্ড

১১ বল বাকি থাকতে ৫ উইকেটে জিতে সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছে স্বাগতিকরা।
england vs sri lanka
ছবি: এএফপি

শ্রীলঙ্কার ব্যাটিংয়ের স্কোরকার্ড দেখে বোঝার উপায় নেই এটা টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। পুরো ২০ ওভার খেলে তারা মারতে পারল মোটে ছয়টি বাউন্ডারি। সেসবও এলো কেবল দুজন ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকে। সবচেয়ে চমকপ্রদ ব্যাপার হলো, পাওয়ার প্লেতে হয়নি কোনো বাউন্ডারি!

চারে নেমে কুসল মেন্ডিস ৩৯ বলে ৩৯ করলেন ৩ চার ও ১ ছক্কায়। আটে নামা ইসুরু উদানা ১৪ বলে ১৯ রানে অপরাজিত থাকলেন একটি করে চার ও ছয়ে। তাদের বাইরে দুই অঙ্কে পৌঁছাতে পারলেন কেবল লঙ্কান অধিনায়ক কুসল মেন্ডিস। তার ২৫ বলে ২১ রানের ইনিংসে নেই কোনো বাউন্ডারি।

বৃহস্পতিবার কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেন্সে টস জেতার পর এমন বিবর্ণ ব্যাটিংয়ে ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১১১ রান তোলে শ্রীলঙ্কা। সহজ লক্ষ্য তাড়া করতে নামা ইংল্যান্ডের ইনিংসের মাঝপথে হানা দেয় বৃষ্টি। ডি/এল পদ্ধতিতে তাদের পরিবর্তিত লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৮ ওভারে ১০৩ রান। ১১ বল বাকি থাকতে তা ছুঁয়ে ৫ উইকেটে জিতে সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছে স্বাগতিকরা।

আগের ম্যাচের মতো এ ম্যাচেও উইকেট ছিল মন্থর। বল ধীরে ব্যাটে আসায় শট খেলা কঠিন ছিল। তবে ইংল্যান্ডের দারুণ বোলিং সত্ত্বেও শ্রীলঙ্কার ব্যাটসম্যানদের অ্যাপ্রোচ ছিল বিস্ময়কর।

অল্প পুঁজি নিয়েও লঙ্কান বোলাররা অবশ্য লড়াই করেন বেশ। সপ্তম ওভারে ৩৬ রানে ৪ উইকেট খুইয়ে ফেলেছিল ইংলিশরা। সাজঘরে ফিরে গিয়েছিলেন জনি বেয়ারস্টো, ডাভিড মালান, জেসন রয় ও দলনেতা ওয়েন মরগ্যান। কিন্তু লক্ষ্য বড় না হওয়ায় চাপ জেঁকে বসতে পারেনি তাদের ওপর।

ইংল্যান্ডের রান যখন ১২ ওভারে ৪ উইকেটে ৬৯, তখন বৃষ্টি বাগড়া দেয়। আধা ঘণ্টা পর আবার খেলা চালু হলে তাদের প্রয়োজন দাঁড়ায় ৩৬ বলে ৩৪ রান। পঞ্চম উইকেটে স্যাম বিলিংস ও লিয়াম লিভিংস্টোনের ৪৮ বলে ৫৪ রানের জুটিতে তা হয়ে পড়ে অনায়াস।

২৯ বলে ২৪ করে বিলিংস বিদায় নেওয়ার পর স্যাম কারানকে নিয়ে বাকিটা সারেন ম্যাচসেরা লিভিংস্টোন। তার ব্যাট থেকে আসে ২৬ বলে ২৯ রান। আকিলা দনাঞ্জয়াকে ছক্কা মেরে খেলা শেষ করা কারান অপরাজিত থাকেন ৮ বলে ১৬ রানে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শ্রীলঙ্কা: ২০ ওভারে ১১১/৭ (গুনাথিলাকা ৩, আভিশকা ৬, কুসল পেরেরা ২১, কুসল মেন্ডিস ৩৯, ডিকভেলা ৩, শানাকা ৮, হাসারাঙ্গা ৩, উদানা ১৯*, দনাঞ্জয়া ২*; উইলি ০/১৭, কারান ১/৮, জর্ডান ১/৩১, লিভিংস্টোন ০/১০, উড ২/১৮, রশিদ ২/২৪)

ইংল্যান্ড: (লক্ষ্য ১৮ ওভারে ১০৩) ১৬.১ ওভারে ১০৮/৫ (রয় ১৭, বেয়ারস্টো ০, মালান ৪, মর্গ্যান ১১, বিলিংস ২৪, লিভিংস্টোন ২৯*, কারান ১৬*; চামিরা ১/২৯, বিনুরা ১/১৭, উদানা ১/২৫, হাসারাঙ্গা ২/২০, দনাঞ্জয়া ০/১৩)

ফল: ডি/এল পদ্ধতিতে ইংল্যান্ড ৫ উইকেটে জয়ী।

সিরিজ: তিন ম্যাচের সিরিজে ইংল্যান্ড ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে।

ম্যাচসেরা: লিয়াম লিভিংস্টোন।

Comments

The Daily Star  | English
IMF loan conditions

3rd Loan Tranche: IMF team to focus on four key areas

During its visit to Dhaka, the International Monetary Fund’s review mission will focus on Bangladesh’s foreign exchange reserves, inflation rate, banking sector, and revenue reforms.

10h ago