নিজেদের তৈরি ভ্যাকসিন নিলেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা খামেনি

ইরানের স্থানীয়ভাবে তৈরি করোনা ভ্যাকসিন কোভইরান বারেকাতের প্রথম ডোজ নিয়েছেন দেশটির সর্বোচ্চ নেতা আলী হোসেইনি খামেনি।
ভ্যাকসিন নিচ্ছেন আলী খামেনি। ছবি: রয়টার্স

ইরানের স্থানীয়ভাবে তৈরি করোনা ভ্যাকসিন কোভইরান বারেকাতের প্রথম ডোজ নিয়েছেন দেশটির সর্বোচ্চ নেতা আলী হোসেইনি খামেনি।

শুক্রবার খামেনি ইরানের ভ্যাকসিন প্রস্তুতের বিষয়টিকে ‘জাতীয় গর্ব’ বলে অভিহিত করেন।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদনে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

কোভইরান বারেকাত ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নেওয়ার পর ৮২ বছর বয়সী খামেনি বলেন, ‘কেউ কেউ কিছুদিন আগে আমাকে ভ্যাকসিন নিতে বলেছিলেন। কিন্তু, আমি কোনো বিদেশি ভ্যাকসিন ব্যবহার করতে চাইনি। আমি বলেছিলাম, আমরা অপেক্ষা করব, ইনশাল্লাহ, স্থানীয় ভ্যাকসিন উৎপাদিত হবে এবং আমরা নিজস্ব ভ্যাকসিন ব্যবহার করতে পারব।’

ইরানের এই সর্বোচ্চ নেতা জানুয়ারিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্যের তৈরি ভ্যাকসিনের ব্যবহার অবৈধ ঘোষণা করেছিলেন। বিশেষ করে ফাইজার এবং মডার্না ভ্যাকসিন। তখন তিনি বলেছিলেন, ‘তাদের বিশ্বাস করা যায় না।’

ডিসেম্বরের শেষের দিকে কোভইরান বারেকাত ভ্যাকসিনের ট্রায়াল শুরু হয়। তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালে প্রায় ২৪ হাজার স্বেচ্ছাসেবক ভ্যাকসিনটি নেন এবং সম্প্রতি এর ট্রায়াল শেষ হয়েছে।

ভ্যাকসিনটি চলতি মাসের শুরুতে জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন পেয়েছে এবং আগামী সপ্তাহে বৃহৎ আকারে এর ব্যবহার শুরু হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

যদিও এই ভ্যাকসিনের বিস্তারিত বৈজ্ঞানিক তথ্য জনসমক্ষে প্রকাশ করা হয়নি। তবে, ডেভেলপাররা দাবি করেছেন- ট্রায়ালের দ্বিতীয় পর্যায়ে ১৮ থেকে ৭৫ জন ব্যক্তির মধ্যে ৯৩.৫ শতাংশ কার্যকর ছিল এই ভ্যাকসিন।

কোনো দেশের নাম উল্লেখ না করে ইরান দাবি করেছে, এশিয়া, দক্ষিণ আমেরিকা এবং ইউরোপের ১২টি দেশ তাদের এই ভ্যাকসিন কিনতে চায়।

Comments