‘ওই গোল ছাড়া বেলজিয়াম কোন সুযোগই তৈরি করতে পারেনি’

রোববার রাতে সেভিয়ায় বর্তমান চ্যাম্পিয়ন পর্তুগালকে ১-০ গোলে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ের ১ নম্বর দল বেলজিয়াম।

খেলার শুরু থেকে দুই দল ছিল বাড়তি সতর্ক। পরিকল্পিত আক্রমণ তাই খুব একটা দেখা যায়নি। বিরতির আগে থোর্গান হ্যাজার্ড আচমকা এক গোল করে বসেন। পরে পর্তুগাল মুহুর্মুহু আক্রমণ করলেও ওই গোলই গড়ে দিয়েছে ব্যবধান। ম্যাচ হেরে বিমর্ষ পর্তুগিজ মিডফিল্ডার জোয়াও পালহিনহা বলছেন, ওই একটা ছাড়া বেলজিয়ামের কোন সুযোগই তৈরি করতে পারেনি। আর জিততে পারে নিজেদের ভাগ্যবান মনে করেছেন থোর্গান হ্যাজার্ড।

রোববার রাতে সেভিয়ায় বর্তমান চ্যাম্পিয়ন পর্তুগালকে ১-০ গোলে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ের ১ নম্বর দল বেলজিয়াম।

ম্যাচ শেষে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ রেখেও জিততে না পারার হাহাকার ঝরেছে পালিনহার কণ্ঠে,  ‘আমরা বেলজিয়াম থেকে বেশি সুযোগ তৈরি করেছি। প্রথমার্ধে আমরা খেলাটা নিয়ন্ত্রণ করেছি বেশি। ওই গোলটা ছাড়া বেলজিয়ামের কোন সুযোগের কথা আমি মনে করতে পারছি না। প্রচণ্ড অসুখী হয়ে আমাদের পর্তুগাল ফিরতে হচ্ছে।’

বিরতির ঠিক আগে বা দিকে ডি বক্সের বাইরে বল পেয়ে দারুণ শটে বল জালে জড়ান থোর্গান হ্যাজার্ড। ম্যাচ জেতানো গোল করা এই ফুটবলারও স্বীকার করলেন বিরতির পর খেলায় ফিরতে মরিয়া পর্তুগালের আক্রমণ রক্ষা করতে পারাই ছিল তাদের জন্য ভাগ্যের ব্যাপার,  ‘প্রথমার্ধে আমরা আক্রমণ করে খেলতে চেয়েছি। কিন্তু বিরতির পর আমরা ভাগ্যবান যে জিতেছে। পর্তুগাল সত্যিই কঠিন পরিস্থিতি তৈরি করেছিল। আমাদের এখন ফোকাস থাকতে হবে।’

এই ম্যাচে দারুণ খেলেছেন বেলজিয়ামের গোলরক্ষক থিবো কর্তুয়া। প্রথমার্ধে বা দিকে ঝাঁপিয়ে ঠেকান ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর ফ্রি-কিক। শেষ দিকে অনেকগুলো আক্রমণ গিয়ে থামে তার গ্লাভসে। একবার তার গ্লাভস ফাঁকি দিলেও বল বাধা পায় বারে। কঠিন পরীক্ষায় পাশ করার স্বস্তি তার কণ্ঠেও,  ‘আগের তিন ম্যাচে আমাকে তেমন কিছু করতে হয়নি। আমি জানতাম পর্তুগালের সঙ্গে এমনটা হবে না। সতীর্থদের নিয়ে আমি গর্বিত। তারা ভাল রক্ষণ সামলেছে। ইতালিও কঠিন হবে। কিন্তু আমরা আজ প্রমাণ করেছি এটা করতে পারব।’

Comments

The Daily Star  | English

Finance is key to Bangladesh’s energy transition

Bangladesh must invest more in renewable energy and energy efficiency to reduce fossil fuel imports to reverse the increasing trajectory of the subsidy burden.

9h ago