এবার হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর মিশন

প্রথম দুই ম্যাচেই হার, তাও বিশাল ব্যবধানে। সিরিজে ফেরার আর কোন উপায় নেই।দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে ওয়ানডে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচটা তাই হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর মিশন।
শেষ ওয়ানডেতে কি জ্বলে উঠবেন সাকিব আল হাসান? ছবি: সাকিব সোবহান

প্রথম দুই ম্যাচেই হার, তাও বিশাল ব্যবধানে। সিরিজে ফেরার আর কোন উপায় নেই।দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে ওয়ানডে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচটা তাই বাংলাদেশের হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর মিশন। 

প্রথম দুই ম্যাচে বাংলাদেশের বোলিং হয়েছে যাচ্ছেতাই। ব্যাটিংয়ে দেখা যায়নি বুদ্ধির ছাপ। আগে কিংবা পরে ব্যাট করেও একই হাল। ব্যাটসম্যানরা খেলেছেন প্রচুর ডট বল, স্লগ ওভারে আনতে পারেননি প্রত্যাশামত রান। আর বোলাররা আলগা বল তো দিয়েছেনই, বলে ছিল না পেসের ঝাঁজ। বাংলাদেশের এলেবেলে বোলিং পাত্তাই পায়নি হাশিম আমলা, এবিডি ভিলিয়ার্সদের কাছে। ২৭৮ রান করেও প্রথম ম্যাচে ১০ উইকেটে হার। পরেরটায় ৩৫৩ রান দিয়ে ১০৪ রানে হার। মড়ার উপর খাড়ার ঘা হয়ে এসেছে তামিম ইকবাল ও মোস্তাফিজুর রহমানের চোটে পড়ে ছিটকে যাওয়া। 

সবদিক থেকেই বিপর্যস্ত দল। অধিনায়ককে তবু শোনাতে হয় ইতিবাচক কথা, ঘুরে দাঁড়ানোর ভরসা খুঁজতে হয় হারের বৃত্তে ঘুরপাক খাওয়া সতীর্থদের কাছেই।শেষ ম্যাচের আগে তাই মাশরাফিও শোনালেন আশাবাদ, ‘ঘুরে দাঁড়ানো তো অবশ্যই সম্ভব। তবে শেষ দুটি ম্যাচ যেভাবে খেলেছি ওইভাবে চিন্তা করলে খুব কঠিন। আমি বিশ্বাস করি, এই দলের সামর্থ্য আছে এর চেয়ে অনেক ভালো ক্রিকেট খেলার।’

অধিনায়ক হিসেবে বাংলাদেশকে ৫০তম ওয়ানডেতে নেতৃত্ব দিতে যাচ্ছেন মাশরাফি মর্তুজা। কিন্তু নিজের মাইলফলকের ম্যাচে একদমই নির্ভার থাকার জো নেই। করতে হচ্ছে নানা কঠিন হিসেব-নিকেশ। এই পরিস্থিতি থেকে কি জিততে পারবে বাংলাদেশ? টনিকের খুঁজে অধিনায়ক,  ‘এই পরিস্থিতিতে সেটা অনেক কঠিন মনে হচ্ছে। বোলিংয়ে দুটি উইকেট দলকে উজ্জীবিত করে। ব্যাটিংয়ে ভালো একটি জুটি ওই ম্যাচে দলকে উজ্জীবিত করে। আমাদের তেমন শুরু দরকার হবে।’

সিরিজ থেকে পাওয়ার কিছু নেই। তবে হোয়াইটওয়াশ এড়াতে পারলেও বড় অর্জন দেখছেন টাইগার কাপ্তান,‘সবাই দেশের জন্য খেলছি। বড় পরিসরে দেখলে আমরা সিরিজ হেরেছি। কিন্তু এখান থেকে একটা ম্যাচেও যদি ভালো করে যেতে পারি সেটা আমাদের জন্য বড় অর্জন হবে। এই সব দিক থেকে চিন্তা করলে সবকিছু এখনও ইতিবাচকভাবে নেওয়া যায়। যেহেতু একটা ম্যাচ বাকি আছে আমরা সর্বস্ব দেওয়ার চেষ্টা করবো।’

শেষ ম্যাচটায় প্রোটিয়ারা বিশ্রাম দিয়েছে হাশিম আমলাকে। তার বদলে খেলবেন এইডেন মার্করাম। দলের হয়ে কথা বলতে এসে অলরাউন্ডার জেপি ডুমিনি জানালেন উকেটের চরিত্র, ‘উইকেট মনে হচ্ছে একটু স্লো ও লো হবে।’ বল নিচু হয়ে, ধীরে আসে। এমন উইকেট অবশ্য বাংলাদেশের জন্য বরং আদর্শ। দেশের মাঠে তো সারাবছরই এমন উইকেটে খেলেন ক্রিকেটাররা। 

তামিম না থাকায় তৃতীয় ওয়ানডেও একটা পরিবর্তন নিশ্চিতই। ওপেনিংয়ে ইমরুল কায়েসের সঙ্গী হয়ে ফিরতে পারেন সৌম্য সরকার। রঙীন পোশাকে নামার সুযোগ পেতে পারেন মুমিনুল হক। তামিমের বদলে কে খেলবেন তাও অবশ্য জানা যায়নি। 

 

Comments

The Daily Star  | English
national election

Human rights issues in Bangladesh: US to keep expressing concerns

The US will continue to express concerns on the fundamental human rights issues in Bangladesh including the freedom of the press and freedom of association and urge the government to uphold those, said a senior US State Department official

3h ago