‘দক্ষিণ আফ্রিকায় দ্বিতীয় টেস্টের সময় কিছু একটা হয়েছে’

সোমবার কোচের পদত্যাগ ও নতুন কোচের বিষয়ে গণমাধ্যমে কথা বলেছেন বিসিবি প্রধান। তার সাক্ষাতকারের বিস্তারিত...
Nazmul Hassan Papon
ফাইল ছবি

বাংলাদেশের হেড কোচ হিসেবে ২০১৯ বিশ্বকাপ পর্যন্ত চুক্তি ছিল চন্ডিকা হাথুরুসিংহের। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের মধ্যেই পদত্যাগপত্র লেখেন তিনি। বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান পাপনের ধারণা দক্ষিণ আফ্রিকায় দ্বিতীয় টেস্টের সময় কিছু একটা হয়েছে, যার কারণে পদ ছেড়েছেন কোচ।

সোমবার কোচের পদত্যাগ ও নতুন কোচের বিষয়ে গণমাধ্যমে কথা বলেছেন বিসিবি প্রধান। তার সাক্ষাতকারের বিস্তারিত...

প্রশ্ন: বাংলাদেশকে বিপদে ফেলতেই হাথুরুর এমন সিদ্ধান্ত?

নাজমুল: আমার এমনটাই মনে হয় না। প্রথম টেস্টের পর হাথুরুসিংহে যে ধরনের পরিকল্পনা নিয়ে কথা বলছিল, পরবর্তী বিশ্বকাপের জন্য কি করতে হবে সেইসব নিয়ে পরিকল্পনা করছিল। কাজেই আমার মনে হয় না, এটা পূর্বপরিকল্পিত কোন কিছু। তবে দ্বিতীয় টেস্ট যখন শেষ হলো, তারপরই সে পদত্যাগপত্রটা লিখেছে। তাতে বোঝা যায় ওই সময়টার মধ্যে কিছু একটা হয়েছে, সিদ্ধান্তটা ওই সময়ের মধ্যেই নিয়েছে হাথুরুসিংহে।

প্রশ্ন:সামারাবিরা ওখানে জয়েন করার পরই প্রেক্ষাপটটা তৈরি হয়েছে?

নাজমুল:মনে হয় না। এটার সঙ্গে কোন সম্পর্ক নেই। সামারাবিরা নেওয়ার পর, আমরাই ঠিক করেছিলাম তাকে দিয়ে কন্টিনিউ করাবো না। এমন না যে সামারাবিরা নিজের থেকে চলে যেতে চেয়েছে।

প্রশ্ন: কারণটা কি পরিষ্কার হয়েছে?

নাজমুল: একদম পরিষ্কার করে যে কিছু বলেছে সেটা নয়, এইজন্যই আমরা তার আসার অপেক্ষা করছিলাম। সে বলুক, কেন সে এই সিদ্ধান্তটা নিয়েছে। ২-১ দিনের মধ্যেই তার আসার কথা ছিল। সিইওর সঙ্গে কথা হয়েছে, সে জানিয়েছে কয়েকদিন পরে আসবে।

প্রশ্ন: সিনিয়র ক্রিকেটারদের সঙ্গে তার কোন সমস্যাই ছিল কি না-এ ব্যাপারে আপনি কি বলবেন?

নাজমুল: এটা আমি রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত বলতে পারবো না। তবে হাথুরু সিদ্ধান্তটা যে ওই সময়েই (দ্বিতীয় টেস্ট) নিয়েছে এ ব্যাপারে কোন সন্দেহ নেই।

প্রশ্ন: কতটা হতাশার?

নাজমুল: দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে বাংলাদেশ যে খুব ভালো কিছু করবে সেটা আমরা আশা করিনি। আমাদের ধারনা ছিল ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে আমরা আরও একটু ভালো খেলতে পারবো। টেস্টে খুব একটা ছিল না প্রত্যাশা।

প্রত্যেকটা সফরে আমি থাকি কিংবা আমাদের বোর্ডের কেউ থাকে। এবার কিন্তু তার সঙ্গে আমার যোগাযোগ হয়নি। প্রথম টেস্টের পর একদিনই তার সঙ্গে কথা হয়েছিল। ওটাই পুরো সফরের একমাত্র কথা। কথা বলে মনে হয়েছে এমন কোন সমস্যা নেই। সব নরম্যাল। দ্বিতীয় টেস্টের পর যেহেতু সে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছে, মনে হয় ওই সময় তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কি কারণে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছে, তার কাছ থেকে না শুনে মন্তব্য করা আসলে কঠিন। এগুলো আমরা আন্দাজ করতে পারি, কিন্তু নিশ্চিত হয়ে বলতে পারি না। ওই সময় নির্বাচন ছিল, মামলা মোকাদ্দমা ছিল। নানা ব্যস্ততায় যোগাযোগটা একটু কম হয়েছে।

প্রশ্ন: এখন কি করবেন?

নাজমুল: আমি আগেও বলেছি কেউ যদি থাকতে না চায়, তাকে আমরা জোর করে রাখতে চাই না। আমি ব্যক্তিগত ভাবে তাই মনে করি। সেটা করা উচিত হবে না। আমরা সেদিকে যাইনি। তবে তার কাছ থেকে কিছু জিনিস জানা দরকার। একজন পেশাদার কোচ হিসেবে সে সব সময় যা করে, পুরো সিরিজের রিপোর্ট এবং পদত্যাগের কারণ জানা দরকার। এখন সে যদি মনে করে কোন কারণ ছাড়া শ্রীলঙ্কা দলের কোচের দায়িত্ব পালন করবেন, সেটা ভিন্ন ইস্যু। সেটা তার মুখ থেকে জানা দরকার।

প্রশ্ন: রিভার্স মনে হচ্ছে না…



নাজমুল:  হতে পারে। রিভার্সতো বটেই। সে খুব আশার মধ্যে ছিল। শ্রীলঙ্কা সিরিজ নিয়ে সে বলেছিল অবশ্যই আমরা এই সিরিজ জিতবো। এই সময়টাতে যে চিন্তা ভাবনা ছিল, যে পরিকল্পনা ছিল, সেখান থেকে পরিবর্তনতো আসবেই। নতুন কোচ নিয়ে আসলেও পরিবর্তন হবে। কেননা অন্যরকম স্ট্যাটেজি হবে অন্যরকম পরিকল্পনা হবে। খেলোয়াড়দের সঙ্গে, আমাদের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার ব্যাপার আছে।

প্রশ্ন: এই অভিজ্ঞতার পর পরবর্তী কোচের ক্ষেত্রে এমন কোন শর্ত দেবেন কিনা? দায়িত্ব ছাড়ার পর ৬ মাস কোথাও চাকরি করতে পারবে না।

নাজমুল:   আমার মনে হয় না এমন আছে। ক্রিকেট আমরা কখনো এটা শুনিনি। ক্রিকেটে অনেক ভালো ভালো কোচ আছে। আমরা নিয়েছিলাম কারণ, ওই সময় আমরা যত জনের সঙ্গে কথা বার্তা বলেছি আমাদের টিমটা তার পরিকল্পনার সঙ্গে মিলে যায়। বিশেষ করে আমার সঙ্গে ইকুয়েশনটা ভালো মিলেছিল। যেভাবে আমি ভেবেছিলাম, তার পরিকল্পনাগুলো অনেকটা তেমনই ছিল। সেই জন্য তাকে সিলেক্ট করা হয়েছিল।

প্রশ্ন:  শ্রীলঙ্কা সিরিজের আগে

নাজমুল: শ্রীলঙ্কা সিরিজ শুরু হওয়ার আগে আমরা যদি বাইরের কোচ না আনি তাহলে অবশ্যই আমাদের স্থানীয় কোচ হবে। আমাদের খালেদ মাহমুদ সুজন আছে। তার সম্ভাবনাই সবচেয়ে বেশি।

প্রশ্ন: অ্যান্ডি ফ্লাওয়ার নাম শোনা যাচ্ছে

নাজমুল: অনেকের সঙ্গেই কথা হচ্ছে। অনেকে নিজে থেকেই যোগাযোগ করেছে। ওই রকম ফাইনা্ল কোন কিছু না।

প্রশ্ন: অপেক্ষা? 

নাজমুল: হাথুরুসিংহের জন্য আমরা অপেক্ষা করছি না। অপেক্ষা করছি তার রিপোর্টের জন্য। সে বলেছে দিবে….২-৩ সপ্তাহের মধ্যে দিবে! আমাদের জানতে হবে, আমাদের কোন কারণে নাকি ওর ব্যক্তিগত কারণে সে যাচ্ছে। ওর ব্যক্তিগত হলে সমস্যা নেই। আমাদের যদি কিছু থাকে তাহলে যেন জানায়। ওটা জানলেই যে কিছু একটা হবে তেমন না। জাস্ট আমাদের জানা দরকার।

প্রশ্ন: এশিয়া কাপ

নাজমুল: এসিসির মিটিং যেখানে হবে সেখানেই এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হবে।

প্রশ্ন: পেশাদার মনে হয়েছে?

নাজমুল: যতোদিন আমাদের এখানে ছিল, আমাদের কাছে মনে হয়েছে সে পেশাদার। গত সিরিজ থেকে ওর সঙ্গে আমাদের কমিনিউকেশন গ্যাপ হয়ে আছে। কাজেই হঠাৎ করে কেন একজন পেশাদার লোক অপেশাদার হয়ে গেলো-এটা বলা মুশকিল। কথা না বলে বলাটা খুব কঠিন।

প্রশ্নসিনিয়র খেলোয়াড়দের সঙ্গে কোচের কোন সমস্যা পেয়েছেন?

নাজমুল:  সমস্যা আছে এটা মিডিয়াতেই বেশি আসতো। আমাকে জিজ্ঞেস করলে আমি বলবো, গত কয়েক বছরে আমি কোন সমস্যাই দেখিনি। সিনিয়র খেলোয়াড় বলতে আমরা পাঁচজনকে ধরি। এখানে মাশরাফি-তামিম-সাকিব কাছে কখনোই শুনিনি সমস্যা আছে। রিয়াদেরতো কার সঙ্গেই কোন সমস্যা নেই। একটা থাকতে পারে, যেহেতু মুশফিকের কয়েকটা স্টেইটম্যান্ট কিছু কথা হয়েছে। এই সিরিজেও হয়েছে। তারপরও আমার মনে হয় কোন সমস্যা থাকার কথা নয়।  

Comments

The Daily Star  | English
Shipping cost hike for Red Sea Crisis

Shipping cost keeps upward trend as Red Sea Crisis lingers

Shafiur Rahman, regional operations manager of G-Star in Bangladesh, needs to send 6,146 pieces of denim trousers weighing 4,404 kilogrammes from a Gazipur-based garment factory to Amsterdam of the Netherlands.

4h ago