ফেসবুককে সর্তক করল কলকাতা হাইকোর্ট

​ফেসবুককে সর্তক করেছে কলকাতা হাইকোর্ট। বুধবার একটি মামলায় শুনানির সময় কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি দেবাংশু বসাক ফেসবুককে সর্তক করেন। একই সঙ্গে তিনি কেন্দ্রীয় সরকারকেও এই নিয়ে তার বক্তব্য দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।
ফেসবুককে সর্তক করল কলকাতা হাইকোর্ট

ফেসবুককে সর্তক করেছে কলকাতা হাইকোর্ট। বুধবার একটি মামলায় শুনানির সময় কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি দেবাংশু বসাক ফেসবুককে সর্তক করেন। একই সঙ্গে তিনি কেন্দ্রীয় সরকারকেও এই নিয়ে তার বক্তব্য দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

সম্প্রতি ভারতের পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যের শিলিগুড়ির এক গৃহবধূ তার স্বামী এবং স্বামীর বন্ধুর বিরুদ্ধে ফেসবুক ওয়ালে আপত্তিকর পোস্ট করার অভিযোগে সাইবার আইনে মামলা করেছিলেন। ওই মামলার তদন্ত করতে পুলিশ কর্মকর্তা ফেসবুক কর্তৃপক্ষের সাহায্য চেয়ে অভিযুক্ত দুই জনের ‘আইপি এ্যাড্রেস’ চেয়েছিল।

কিন্তু ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তাকে উত্তরে জানিয়ে দেয়, ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য দিতে প্রস্তুত নয় তারা। সেটা নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয় পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ।

বুধবার ওই মামলায় কেন্দ্রের সলিসিটর জেনারেল কৌশিক চন্দ্র যখন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি দেবাংশু বসাকের এজালাসে প্রসঙ্গটি উত্থাপন করেন। ঠিক তখনই ওই বিচারপতি বিস্মিত হয়ে বলেন, “ফেসবুকের মতো সংস্থা এই দেশে ব্যবসা করছে, এই দেশের মানুষ নিয়ে কাজ করছে অথচ তারা এই দেশের আইন মানবে না- এটা হতে পারে না।”

বিচারপতি আরো বলেন, “ভারতে ব্যবসা করছে অথচ দেশের সরকারের তাদের উপরে কোনও নিয়ন্ত্রণ নেই- এটাও ভাবা যায় না।”

বিচারপতি এদিন প্রশ্ন তুলে বলেন, “কেন কেন্দ্রীয় সরকার এদের বাধ্য করবে না এই দেশের আইন মানতে। অন্য সব সংস্থার যদি এই দেশে অফিস থাকতে পারে তাহলে ফেসবুকের নয় কেন?”

কলকাতাসহ গোটা পশ্চিমবঙ্গে প্রতিদিন অসংখ্য সাইবার ক্রাইমের মামলা নথিভুক্ত হচ্ছে রোজ। ফেসবুক সংক্রান্ত মামলা এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক।

আদালতে পুলিশের পক্ষ থেকে এদিন বলা হয়, মামলার তদন্ত করতে হলে ফেসবুকের সাহায্য ছাড়া সেই তদন্ত এগোবে না। অথচ ফেসবুক কর্তৃপক্ষ কোন ভাবেই পুলিশ প্রশাসনকে সাহায্য করছে না।

তবে আদালতে ফেসবুক কর্তৃপক্ষের পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিলেন না।

Comments

The Daily Star  | English

Cyclone disrupts 10,000 telecom towers, leaving millions out of mobile service

Power outage due to cyclone Remal has caused over 10,000 mobile towers or base transceiver stations (BTS) to go out of service, affecting the mobile and internet services of millions of people in the southern districts

1h ago