খেলা

মাশরাফির মতে মাঠের ঘটনা ‘হিট অব দ্য মোমেন্ট’

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচে একটি নো বল দেওয়া, না দেওয়া নিয়ে উত্তেজনা পৌঁছেছিল চরমে। অধিনায়ক সাকিব আল হাসান চটে গিয়ে ম্যাচ বয়কট করতেও উদ্যত হয়েছিলেন। মাঠের মধ্যে উত্তপ্ত বাক বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েছিলেন সাইড বেঞ্চের নুরুল হাসান সোহানও। ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার মতে এসব কিছুই আসলে ‘হিট অব দ্য মোমেন্ট’।
Nurul Hasan Sohan
থিসারা পেরেরার সঙ্গে বেধে যায় নুরুল হাসান সোহানের। ছবি: এএফপি

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচে একটি নো বল দেওয়া, না দেওয়া নিয়ে উত্তেজনা পৌঁছেছিল চরমে। অধিনায়ক সাকিব আল হাসান চটে গিয়ে ম্যাচ বয়কট করতেও উদ্যত হয়েছিলেন। মাঠের মধ্যে উত্তপ্ত বাক বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েছিলেন সাইড বেঞ্চের নুরুল হাসান সোহানও। ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার মতে এসব কিছুই আসলে ‘হিট অব দ্য মোমেন্ট’।

শুক্রবার অলিখিত সেমিফাইনালে পরিণত হওয়া ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ২ উইকেটে হারায় বাংলাদেশ। উত্তেজনা আর নাটকীয়তায় ঠাসা ম্যাচের শেষ ওভার আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত নিয়ে তর্কে জড়ায় বাংলাদেশ। এক পর্যায়ে গণ্ডগোল বেধে যায় লঙ্কান খেলোয়াড়দের সাথেও।

শনিবার মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে অনুশীলনে আসা মাশরাফি ভাষায় এই ঘটনা পরিস্থিতির তৈরি,  ‘আজ সকালে উঠে দেখেছি। বিস্তারিত এখনো জানি না। না জেনে আমাদের মতামত দেওয়া ঠিক হবে না। আর যেটা হয়েছে মাঠে হিট অব দ্য মোমেন্ট বলতে পারেন।’

মাশরাফি হিট অব দ্য মোমেন্ট বললেও শাস্তি এড়াতে পারেনি বাংলাদেশ। সাকিব ও সোহানের ম্যাচ ফির ২৫ শতাংস করে কাটা যায়। দুজনেই পেয়েছেন একটি করে ডিমেরিট পয়েন্ট।

যে নো বল না দেওয়া নিয়ে এত কাণ্ড। মাশরাফির মতে নো বলটি প্রাপ্য ছিল বাংলাদেশের, ‘ নো বলটা আমাদের পক্ষে আসা উচিত ছিল। টি-টোয়েন্টিতে দুইটা বাউন্সার মারলেন এটা তো ক্রিকেটিং নিয়মে নাই। হয়ত আরেকটু সংযত হলে ভালো হত। কিন্তু যেটা বললাম হিট অব দ্য মোমেন্টে হয়ে গেছে। ’

নো বল না দিলেও অবশ্য বিপদে পড়েনি বাংলাদেশ। পরে পরিস্থিতি শান্ত হলে শুরু হয় খেলা। যাতে ছক্কা মেরে দলকে ফাইনালে তোলে নায়ক বনে যান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ৩ বলে পূরণ করে ফেলেন ১২ রানের সমীকরণ।

এমন জয়ের পুরো কৃতিত্ব অভিজ্ঞ মাহমুদউল্লাহকেই দিচ্ছেন মাশরাফি,  ‘চার বলে যখন ১২ লাগবে। তখন রিয়াদ প্রথম চারটা মারল। তখন মনে হয়েছে সম্ভব। তার আগে নো বলটা আমাদের পক্ষে আসতে পারত। তারপর রিয়াদ যেভাবে খেলেছে অসাধারণ। ১৮ বলে ৪৩। প্রথম থেকে এসেই যেভাবে অ্যাটাক করেছে ওটা ছিল দারুণ। টি-টোয়েন্টি ম্যাচে আসলে এরকম একজনকে খেলতে হয়। ’

 

নিদহাস কাপে লঙ্কানদের বিপক্ষে প্রথম দেখায় ২১৫ রান তাড়া করে ইতিহাস গড়ে জিতেছিল বাংলাদেশ। পরের ম্যাচ জিতল রোমাঞ্চকরভাবে। বাংলাদেশের এ পর্যন্ত সব টি-টোয়েন্টির মধ্যে এই দুটোকেই এগিয়ে রাখলেন ওয়ানডে অধিনায়ক, ‘বাংলাদেশের সেরা দুই টি-টোয়েন্টি যদি হিসাব করা হয় তাহলে এই নিদহাস ট্রফিতেই দুইটা হবে। মুশফিক যেভাবে আগেরটা জেতালো। কালকে রিয়াদ করল। কোন অংশে তামিমের অবদান কম না, লিটনেরও অবদান ছিল। কাল তামিম আউট না হলে আরও আগে জিততে পারতাম। দুই ম্যাচেই তামিমের বিশাল অবদান আছে।’

Comments

The Daily Star  | English
Bank mergers in Bangladesh

Bank mergers: All dimensions must be considered

In general, five issues need to be borne in mind when it comes to bank mergers in Bangladesh.

9h ago