খুশি ভক্তরা, নাখোশ বিষ্ণই সম্প্রদায়

দুদিনেই পাল্টে গেল পুরো চিত্র। দুদিন আগে কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলায় বলিউড সুপারস্টার সালমান খানের পাঁচ বছরের কারাদণ্ডে নাখোশ হয়েছিলেন তাঁর ভক্তরা আর উল্লাস প্রকাশ করেছিলেন বিষ্ণই সম্প্রদায়।
Salmans Khan greets fans
বাবা সালিম খানকে পাশে নিয়ে ভক্তদের শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন কৃষ্ণহরিণ হত্যা মামলায় সদ্য জামিন পাওয়া বলিউড সুপারস্টার সালমান খান। ছবি: সংগৃহীত

দুদিনেই পাল্টে গেল পুরো চিত্র। দুদিন আগে কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলায় বলিউড সুপারস্টার সালমান খানের পাঁচ বছরের কারাদণ্ডে নাখোশ হয়েছিলেন তাঁর ভক্তরা আর উল্লাস প্রকাশ করেছিলেন বিষ্ণই সম্প্রদায়।

দুদিন বাদে পাল্টে গেল সেই চিত্র। মামলাটিতে সালমানের জামিন হওয়ায় যখন ‘সাল্লু ভাইয়ের’ ভক্তরা উল্লাস প্রকাশ করছেন তখন বিষ্ণই সম্প্রদায়ের লোকেরা সেই জামিনকে চ্যালেঞ্জ করতে যাচ্ছেন রাজস্থান হাইকোর্টে।

গত ৫ এপ্রিল রাজস্থানের যোধপুর দায়রা আদালত ‘এক থা টাইগার’-এর অভিনেতাকে কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলায় কারাদণ্ড দেওয়ার পর গত ৭ এপ্রিল সন্ধ্যায় সে মামলায় জামিন লাভ করেন তিনি।

Salmans Khan fans celebrate his bail
বলিউড সুপারস্টার সালমান খানের বাসার সামনে ভক্তদের উল্লাস। ছবি: সংগৃহীত

কিন্তু, এই জামিনের বিরোধিতা করে বিষ্ণই টাইগার ফোর্স এর রাম নিওয়াজ ধরি ভারতীয় গণমাধ্যমকে বলেন, “এটি আমাদের জন্যে খুবই খারাপ একটি দিন। কেননা, সালমান খানের পাঁচ বছর কারাদণ্ড দেওয়ার মাত্র দুদিন পরই তাকে জামিন দেওয়া হলো।”

এদিকে, বিষ্ণই বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ নিয়ে কাজ করছে এমন একটি সংগঠনের নেতা রণ নিওয়াজ বুধনগর জানান, তারা জামিনের বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন। তিনি বলেন, “আমরা শুধু এই জামিনকেই চ্যালেঞ্জ করব না, এছাড়াও, অপর চারজনকে এই মামলা থেকে খালাস দেওয়ার সিদ্ধান্তটিকেও চ্যালেঞ্জ করবো।”

প্রমাণিত না হওয়ায় মামলার অপর আসামি বলিউড তারকা সাইফ আলী খান, টাবু, সোনালি বেন্দ্রে এবং নীলমকে খালাস দেন যোধপুর দায়রা আদালত।

গত ১৯৯৮ সালে ‘হাম সাথ সাথ হ্যায়’ চলচ্চিত্রের শুটিং চলাকালে যোধপুরের কানকানি গ্রামে দুটি কৃষ্ণসার হরিণ হত্যার অভিযোগ উঠেছিল সালমান ও তার সহ শিল্পীদের বিরুদ্ধে। গত ৫ এপ্রিল মামলার রায়ে সালমান খানকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত।

উল্লেখ্য, বিলুপ্তপ্রায় বন্যপ্রাণী কৃষ্ণসার হরিণকে ‘দেবতা’ হিসেবে গণ্য করেন বিষ্ণই সম্প্রদায়ের লোকেরা।

তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

Comments

The Daily Star  | English

Lifts at public hospitals: Where Horror Abounds

Shipon Mia (not his real name) fears for his life throughout the hours he works as a liftman at a building of Sir Salimullah Medical College, commonly known as Mitford hospital, in the capital.

5h ago