এক নজরে কান চলচ্চিত্র উৎসবের ‘প্রতিযোগিতা বিভাগ’

আগামী ৮ মে ফ্রান্সের কান শহরে শুরু হতে যাচ্ছে চলচ্চিত্র জগতের অন্যতম বড় আয়োজন- কান চলচ্চিত্র উৎসব। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হবে উৎসবের ৭১তম আসরে। উৎসবের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ‘প্রতিযোগিতা বিভাগ’-এ চলতি বছর থাকবে ২১টি চলচ্চিত্র।
এভরিবডি নোজ
অস্কার বিজয়ী ইরানি পরিচালক আসগর ফারহাদির ‘এভরিবডি নোজ’ চলচ্চিত্রের একটি দৃশ্য। ছবি: সংগৃহীত

আগামী ৮ মে ফ্রান্সের কান শহরে শুরু হতে যাচ্ছে চলচ্চিত্র জগতের অন্যতম বড় আয়োজন- কান চলচ্চিত্র উৎসব। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হবে উৎসবের ৭১তম আসরে। উৎসবের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ‘প্রতিযোগিতা বিভাগ’-এ চলতি বছর থাকবে ২১টি চলচ্চিত্র।

মোট ৮৫টি চলচ্চিত্র দেখানো হবে উৎসবের বিভিন্ন বিভাগে। তবে ‘প্রতিযোগিতা বিভাগ’ থেকেই একজন গ্রহণ করবেন উৎসবের সর্ব্বোচ্চ পুরস্কার ‘পালমে ডি’ওর’।

দুবার অস্কার বিজয়ী ইরানি পরিচালক আসগর ফারহাদির ‘এভরিবডি নোজ’ দিয়ে শুরু হতে যাওয়া উৎসব চলবে ১৯ মে পর্যন্ত। সেদিন উৎসবের পর্দা নামবে আমেরিকান-ব্রিটিশ পরিচালক টেরি গিলিয়ামের ‘দ্য ম্যান হু কিল্ড ডন কুইজট’-এর প্রদর্শনীর মধ্য দিয়ে। উৎসবের শেষ দিনেই ঘোষণা দেওয়া হবে বিজয়ীদের নাম।

‘প্রতিযোগিতা বিভাগ’-এর চলচ্চিত্র

এ বিভাগে রয়েছে ইরানি পরিচালক আসগর ফারহাদির ‘এভরিবডি নোজ’, ফরাসি পরিচালক স্তেফঁ ব্রিজের ‘অ্যাট ওয়ার’, তুর্কি চলচ্চিত্রকার নুরি বিলজে জিলানের ‘দ্য ওয়াইল্ড পিয়ার ট্রি’, কাজাখস্তানের পরিচালক সারগেই দভরৎসেভয়ের ‘আয়কা’, ইতালীয় পরিচালক মাত্তিয় গারোনোর ‘ডগম্যান’, ফরাসি-সুইস পরিচালক জঁ লুক গদারের ‘লে লিভরে দ’ইমাজ’ এবং ফরাসি পরিচালক ইয়ান গনজালেজের ‘নাইফ প্লাস হার্ট’।

এই তালিকায় আরও রয়েছে জাপানি পরিচালক রুসুকি হামাগুচির ‘আসাকো ওয়ান অ্যান্ড টু’, ফরাসি পরিচালক ক্রিস্তোফে হোনোরের ‘সরি অ্যাঞ্জেল’, ফরাসি পরিচালক ইভা হুসনের ‘গার্লস অব দ্য সান’, চীনা পরিচালক জিয়া ঝং-কের ‘অ্যাস ইজ পিউরিয়েস্ট হোয়াইট’, জাপানি পরিচালক হিরোকাজু কোরে-এদার ‘শপলিফটারস’, লেবানিজ পরিচালক নাদিন লাবাকির ‘ক্যাপারনাউম’ এবং দক্ষিণ কোরীয় পরিচালক লি চ্যাং-ডংয়ের ‘বার্নিং’।

বিভাগের বাকি চলচ্চিত্রগুলো হলো: আমেরিকান চলচ্চিত্রকার স্পাইক লির ‘ব্ল্যাককেক্লান্সম্যান’, আমেরিকান পরিচালক ডেভিড রবার্ট মিশেলের ‘আন্ডার দ্য সিলভার লেক’, ইরানি পরিচালক জাফর পানাহির ‘থ্রি ফেসেস’, পোলিশ-ব্রিটিশ পরচিালক পাওয়েল পাওলিকভস্কির ‘কোল্ড ওয়ার’, ইতলীয় পরিচালক আলিস রোহরেচারের ‘লাৎজারো ফেলিস’, মিশরীয়-অস্ট্রিয়ান পরিচালক আবু বকর শাওকির ‘ইয়োমেদ্দিন’ এবং রুশ চলচ্চিত্র পরিচালক কিরিল সেরেব্রেনিকভের ‘লেটো’।

তথ্যসূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

Comments

The Daily Star  | English

Quota protests: Trauma, pain etched on their faces

Lying in a hospital bed, teary-eyed Md Rifat was staring at his right leg, rather where his right leg used to be. He could not look away.

42m ago