বাঁচানো গেল না মুক্তামণিকে

​ডান হাতের রক্তনালীতে টিউমারে আক্রান্ত মুক্তামণি মারা গেছে। আজ সকালে সাতক্ষীরার সদর উপজেলার দক্ষিণ কামার বাইশা গ্রামে সে তার নিজ বাড়িতে মারা যায়।
Muktamoni dies
ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বিছানায় মুক্তামণি। আজ সকালে সে তার নিজ বাড়িতে মারা গেছে। ছবি: স্টার

ডান হাতের রক্তনালীতে টিউমারে আক্রান্ত মুক্তামণি মারা গেছে। আজ সকালে সাতক্ষীরার সদর উপজেলার দক্ষিণ কামার বাইশা গ্রামে সে তার নিজ বাড়িতে মারা যায়।

১২ বছরের মুক্তামণির বাবা ইবরাহিম হোসেন বলেন, আজ সকাল ৮টার দিকে মুক্তামণি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করে।

রক্তনালীতে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে টিউমার অপসারণের পর ২৩ ডিসেম্বর তাকে বাড়ি নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। তখন থেকে সে বাড়িতেই ছিল। তার বাবা জানান, গত কিছুদিন ধরেই সংকটজনক অবস্থায় ছিল তার মেয়ে। হাতের সংক্রমণ সারা শরীরে ছড়িয়ে পড়েছিল।

এক হাত ফুলে যাওয়ার খবর প্রকাশের পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আলোচনায় আসে মুক্তামণি। প্রধানমন্ত্রী তার চিকিৎসার দায়িত্ব গ্রহণ করেছিল।

চিকিৎসার জন্য মুক্তামণিকে ১১ জুলাই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়। এখানেই ডাক্তাররা জানান মুক্তামণির রক্তনালীতে টিউমার হয়েছে। ২২ ডিসেম্বর পর্যন্ত হাসপাতালের বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেনের তত্ত্বাবধানে তার চিকিৎসা চলে।

বায়োপসি পরীক্ষার পর টিউমারের ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়ার পর ১২ আগস্ট ঢাকা মেডিকেলের ডাক্তাররা তার হাত থেকে তিন কিলোগ্রাম ওজনের টিউমার অপসারণ করেন। এর পর গত বছরই ২৯ আগস্ট, ৫ সেপ্টেম্বর ও ৮ অক্টোবর তিন দফায় তার হাতে অস্ত্রোপচার করা হয়।

জন্মের দেড় বছর পর মুক্তামণির হাতে সমস্যা ধরা পড়ে। প্রথমে হাত লাল হয়ে ফুলে উঠেছিল।পরে চার বছরের মধ্যে হাতটি ফুলে কোলবালিশের মতো হয়ে গেলে মুক্তামণি বিছানাবন্দী হয়ে পড়ে।

Comments

The Daily Star  | English

Anti-quota protest: Students block Shahbagh for an hour

Several hundred students blocked the Shahbagh intersection in the capital for an hour today protesting the police action on "Bangla Blockade" and the abolition of quota system in government jobs

1h ago