আরও এক বিপদে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট

বল টেম্পারিং ঘটনায় বিপাকে থাকা অস্ট্রেলিয়ার জন্য আরও এক খারাপ খবর ফাঁস করেছে আল-জাজিরা। তাদের এক অনুসন্ধানে গত বছর অস্ট্রেলিয়ার ভারত সফরের রাঁচি টেস্টে স্পষ্ট ফিক্সিংয়ের অভিযোগ উঠেছে দুজন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে। তবে তাদের নাম প্রকাশ করেনি আল-জাজিরা। আর ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া জানিয়েছে, এখনো বিশ্বাসযোগ্য কোন প্রমাণ পায়নি তারা।
James Sutherland
ক্রিকেটারদের বিরুদ্ধে এবার স্পট ফিক্সিংয়ের অভিযোগ উঠায় মাথা ঘামাতে হচ্ছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সিইও জেমস সাদারল্যান্ডকে। ফাইল ছবি: এএফপি

বল টেম্পারিং ঘটনায় বিপাকে থাকা অস্ট্রেলিয়ার জন্য আরও এক খারাপ খবর ফাঁস করেছে আল-জাজিরা। তাদের এক অনুসন্ধানে গত বছর অস্ট্রেলিয়ার ভারত সফরের রাঁচি টেস্টে স্পষ্ট ফিক্সিংয়ের অভিযোগ উঠেছে দুজন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে। তবে তাদের নাম প্রকাশ করেনি আল-জাজিরা। আর ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া জানিয়েছে, এখনো বিশ্বাসযোগ্য কোন প্রমাণ পায়নি তারা।

খেলাধুলায় দুর্নীতি নিয়ে ধারাবাহিক প্রতিবেদনের এক পর্বে উঠে এসেছে ভারত-অস্ট্রেলিয়ার রাঁচি টেস্টের কথা। কাতারভিত্তিক গণমাধ্যমটির অভিযোগ গত বছর মার্চে জুয়াড়িদের ধরিয়ে দেওয়া ফর্দ মেনে রাঁচি টেস্টে একটা সময় ধীর গতিতে রান তুলেছেন অস্ট্রেলিয়ানরা। অভিযোগ খতিয়ে দেখার জানার পর চ্যানেলটির কাছে ফুটেজ চেয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

তাদের ডকুমেন্টারিতে দেখা যায় অনিল মুনওয়ার নামে এক ভারতীয় দুই অসি ক্রিকেটারের নাম বলছেন। এই অনিল কুখ্যাত ক্রাইম সিন্ডিকেট ‘ডি কোম্পানির’ হয়ে কাজ করেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে ক্রিকেটারদের নাম ডকুমেন্টারি থেকে সম্পাদনা করে বাদ দেওয়া হয়েছে।

আল-জাজিরার দাবি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ চাইলে তারা সব তথ্য দেবে। ওই দুই ক্রিকেটার ছাড়া অস্ট্রেলিয়ার আর কেউ জড়িত কিনা তা নিয়ে অবশ্য নিশ্চিত নয় তারা।

চ্যানেলটির দাবি এক প্রতিবেদক ছদ্মবেশ নিয়ে পুরো বিষয়টি  জেনে যান। ওই টেস্টে রানের গতির ব্যাপারে জুয়াড়ি মুনাওয়ার ওই ছদ্মবেশী প্রতিবেদককে যে তথ্য দিয়েছিলেন পরে তা মিলে গেছে।

এই খবর ফাঁস হওয়ার পর ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটারদের দুর্নীতিতে জড়িত থাকার কোন বিশ্বাসযোগ্য প্রমাণ আইসিসি বা ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া পায়নি। তবে অভিযোগ উঠা সেই ফুটেজ এখনো দেখেনি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। ’

আল-জাজিরার ডকুমেন্টারিতে শ্রীলঙ্কার গলে পিচ ফিক্সিংয়ের অভিযোগ আনা হয়েছে। তাতে জুয়াড়িদের কথা মেনে ২০১৬ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে স্পিন বান্ধব পিচ ও ভারতের বিপক্ষে ব্যাটিং বান্ধব পিচ বানানো হয়েছিল। তবে ইএসপিএন ক্রিকইনফো বলছে,  অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে স্পিন পিচ চেয়েছিল স্বাগতিকরাই। স্বাগতিকদের দলের চাওয়া মতো কোন পিচ তৈরি করা নিয়মের মধ্যেই পড়ে। 

 

 

 

 

Comments

The Daily Star  | English

Recovering MP Azim’s body almost impossible: DB chief

Killers disfigured the body so much that it would be tough to identify those as human flesh

34m ago