বিশ্বকাপে যেমন আয় করবেন রেফারিরা

অপেক্ষার পালা প্রায় শেষ, দীর্ঘ চার বছরের প্রতীক্ষার পর অবশেষে রাশিয়ায় পর্দা উঠতে যাচ্ছে বিশ্বকাপ ফুটবলের ২১ তম আসরের। বাছাইপর্ব শেষে সেরা ৩২ টি দল লড়বে বিশ্বসেরার মুকুট মাথায় তুলতে। মাঠে মূল আকর্ষণের কেন্দ্রে হয়তো থাকবেন মেসি-রোনালদো-নেইমারদের মতো তারকারা, তবে খেলার গতিপ্রকৃতি কিন্তু নির্ধারণ করবেন রেফারিরাই।
রেফারি
ফাইল ছবি (রয়টার্স)

অপেক্ষার পালা প্রায় শেষ, দীর্ঘ চার বছরের প্রতীক্ষার পর অবশেষে রাশিয়ায় পর্দা উঠতে যাচ্ছে বিশ্বকাপ ফুটবলের ২১ তম আসরের। বাছাইপর্ব শেষে সেরা ৩২ টি দল লড়বে বিশ্বসেরার মুকুট মাথায় তুলতে। মাঠে মূল আকর্ষণের কেন্দ্রে হয়তো থাকবেন মেসি-রোনালদো-নেইমারদের মতো তারকারা, তবে খেলার গতিপ্রকৃতি কিন্তু নির্ধারণ করবেন রেফারিরাই।

এবারের বিশ্বকাপের ৬৪ টি ম্যাচ পরিচালনার জন্য গত মার্চে রেফারিদের তালিকা চূড়ান্ত করেছে ফিফা। ফিফার অধীনে থাকা ছয় মহাদেশীয় ফেডারেশন থেকে বহু যাচাই বাছাইয়ের পর মোট ৩৫ জন রেফারি ও ৬২ জন সহকারী রেফারিকে নির্ধারণ করেছে বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। মূল পর্বে অংশগ্রহণের জন্য কেবল দলগুলোকেই নয়, বাছাইপর্ব পেরিয়ে আসতে হয়েছে এই  রেফারিদেরও। ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে শুরু হওয়া এই বাছাইপর্ব শেষে অবশেষে মাস তিনেক আগে রেফারিদের চূড়ান্ত তালিকা দিয়েছে ফিফা।

এতজন রেফারির মধ্য থেকে বাছাই করার প্রক্রিয়াটা কিন্তু মোটেও সহজ কিছু নয়। প্রত্যেক রেফারির ম্যাচ পরিচালনা করার দক্ষতা ও ব্যক্তিত্ব, ফুটবল বোঝার দক্ষতা এবং ম্যাচের পরিস্থিতি পড়তে পারার ক্ষমতা ও দুই দলের ট্যাকটিকস বুঝতে পারার ক্ষমতা- এই বিষয়গুলোকে রেফারি নির্বাচনের মানদণ্ড হিসেবে ব্যবহার করেছে ফিফা।

ছয় মহাদেশীয় ফেডারেশনের মধ্যে সর্বোচ্চ ১০ জন রেফারি আছেন উয়েফা থেকে। এছাড়া এশিয়া অঞ্চল থেকে পাঁচ জন, আফ্রিকা, লাতিন ও কনক্যাকাফ অঞ্চল থেকে ছয় জন ও ওশেনিয়া অঞ্চল থেকে মোট দুইজন রেফারিকে বাছাই করা হয়েছে ম্যাচ পরিচালনার জন্য। আর মাঠের মূল রেফারিদের সহায়তা করার জন্য থাকছেন আরও ৬২ জন সহকারী রেফারি। এছাড়া এবারই প্রথম বিশ্বকাপে যোগ হওয়া ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি প্রযুক্তির জন্য মোট ১৩ জন রেফারিকে বাছাই করেছে ফিফা।

তবে মাঠের তারকাদের আয় সম্পর্কে কম বেশি ধারণা থাকলেও ম্যাচ পরিচালনা করার দায়িত্বে নিয়োজিত রেফারিদের আয় সম্পর্কে খুব বেশি তথ্য দেয় না ফিফা। ফিফা এবারও রেফারিদের আয় সম্পর্কে নিশ্চিতভাবে কোন তথ্য জানায়নি, তবে ইউওএল এস্পোর্তের প্রতিবেদন অনুযায়ী, এবারের বিশ্বকাপের সবচেয়ে দক্ষ ও অভিজ্ঞ রেফারিরা এক মাসের এই মহাযজ্ঞ শেষে আনুমানিক ৭০ হাজার ডলারের মতো আয় করবেন, বাংলাদেশি মুদ্রায় যা দাঁড়ায় প্রায় ৬০ লাখ টাকার কাছাকাছি। এছাড়া প্রতিটি ম্যাচ পরিচালনার জন্য অতিরিক্ত হিসেবে পাবেন আরও ৩ হাজার ডলার করে।

এছাড়া ম্যাচ পরিচালনার দায়িত্বে থাকা সহকারী রেফারিদের আয়টাও একেবারে মন্দ হবে না। ইউওএল এস্পোর্তের একই প্রতিবেদন অনুযায়ী, পুরো বিশ্বকাপের জন্য একেকজন সহকারী রেফারির সর্বনিম্ন আয় হবে ২৫ হাজার ডলার করে, আর প্রতি ম্যাচ পরিচালনার জন্য অতিরিক্ত হিসেবে পাবেন আরও ২ হাজার ডলার করে।

 

 

Comments

The Daily Star  | English

Cyclone Remal: Great danger signal number 10 for Mongla, Payra

Cox's Bazar and Chattogram seaports asked to hoist danger signal number 9

1h ago