‘এটিই আর্জেন্টিনার ইতিহাসের সবচেয়ে বাজে দল’

ক্রোয়েশিয়ার কাছে এভাবে হারাটা যে স্বাভাবিকভাবে নেয়নি আর্জেন্টাইনরা, সেটি তাদের একের পর এক মন্তব্য থেকেই পরিষ্কার। মেসিদের সমালোচনায় এবার যোগ দিলেন বিশ্বকাপজয়ী মিডফিল্ডার ওসভালদো আর্দিলেসও। ১৯৭৮ বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য আর্দিলেস বলছেন, আর্জেন্টিনার ইতিহাসের সবচেয়ে বাজে দল এটি।
Argentina
ক্রোয়েশিয়ার কাছে বিধ্বস্ত হওয়া আর্জেন্টিনা দল, ফাইল ছবিঃ রয়টার্স

ক্রোয়েশিয়ার কাছে এভাবে হারাটা যে স্বাভাবিকভাবে নেয়নি আর্জেন্টাইনরা, সেটি তাদের একের পর এক মন্তব্য থেকেই পরিষ্কার। মেসিদের সমালোচনায় এবার যোগ দিলেন বিশ্বকাপজয়ী মিডফিল্ডার ওসভালদো আর্দিলেসও। ১৯৭৮ বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য আর্দিলেস বলছেন, আর্জেন্টিনার ইতিহাসের সবচেয়ে বাজে দল এটি।

গ্রুপ পর্বের প্রথম দুই ম্যাচে আর্জেন্টিনার পারফরম্যান্সে একদমই খুশি হতে পারেননি মারিও কেম্পেসদের সাথে বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ পাওয়া আর্দিলেস। নিজ দেশের খেলোয়াড় ও কোচের সমালোচনা ঝরে পড়েছে তাঁর কণ্ঠে। ৬৫ বছর বয়সী সাবেক এই টটেনহাম খেলোয়াড় টুইট করেছেন, ‘এক সময়ের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন থেকে এখন আর্জেন্টিনা ইতিহাসের সবচেয়ে বাজে দল।’ সাম্পাওলির এই দল দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের সম্মান মাটিতে মিশিয়ে দিয়েছে বলেও অভিমত আর্দিলেসের।

কোচ সাম্পাওলির উপর একটু বেশিই ক্ষিপ্ত আর্দিলেস। সাম্পাওলির ট্যাকটিকসে তিতিবিরক্ত হয়ে তাঁকে ‘বিরক্তিকর, জেদি ও মূর্খ’ বলেও দাবি করেছেন বিশ্বকাপজয়ী এই মিডফিল্ডার! দলকে অতিরিক্ত মেসি নির্ভর করে ফেলার জন্য আর্দিলেসের সমালোচনার মুখে পড়তে হচ্ছে সাম্পাওলিকে, ‘এই দলের কোন প্ল্যান “বি” নেই। সাম্পাওলির প্রথম পরিকল্পনাই হলো, মেসির কাছে বল দাও, আর অভাবনীয় কিছুর অপেক্ষায় থাকো। সেটা যদি কাজে না লাগে, তাহলে সাম্পাওলির হাতে আর কোন বিকল্প পরিকল্পনা নেই। এই দলের কোন প্ল্যান “বি” নেই।’ বিশ্বের সেরা খেলোয়াড় নিজেদের দলে থাকার পরেও দলটাকে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ করে তুলতে না পারার দায়টা তিনি সাম্পাওলিকেই দিচ্ছেন।

তবে আর্জেন্টিনাকে প্রায় একা হাতে বিশ্বকাপে তোলা লিওনেল মেসির প্রশংসাই করেছেন আর্দিলেস। এতদিন ধরে আর্জেন্টিনাকে যা যা দিয়ে এসেছেন, তার জন্য মেসিকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন তিনি, ‘আর্জেন্টিনার গত কয়েক বছরের দুর্দশা ঢাকা পড়ে গেছে একমাত্র মেসির পারফরম্যান্সের কারণে। আমাদের সৌভাগ্য যে মেসি আমাদের দেশে জন্মেছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত এত চাপ ওর একার পক্ষে সামলানোও সম্ভব হয়নি। লিও, তোমাকে আমি সবকিছুর জন্য ধন্যবাদ দিতে চাই। ভবিষ্যতের জন্য অনেক শুভকামনাও জানাতে চাই।’

আরেকটি ঘটনার উপরেও আলোকপাত করেছেন আর্দিলেস। ক্রোয়েশিয়া ম্যাচের শেষভাগে হতাশ হয়ে পড়া নিকোলাস ওটামেন্ডি খুবই দৃষ্টিকটুভাবে লাথি মেরে বসেন ক্রোয়েশিয়ার ইভান রাকিটিচকে। ঘটনাটি রেফারির দৃষ্টি এড়িয়ে গেলেও ওটামেন্ডির এরকম ব্যবহার একেবারেই ভালো লাগেনি আর্দিলেসের। এমন আচরণের জন্য রাকিটিচের কাছে ক্ষমাও চাইতে বলেছেন ম্যানচেস্টার সিটি ডিফেন্ডার ওটামেন্ডিকে।

 

 

Comments