অমন গোল করার পরও চিন্তায় অস্থির হিউং মিন সন

এবার বিশ্বকাপে দক্ষিণ কোরিয়ার জন্য আনন্দের মুহূর্ত এসেছে একবারই। মেক্সিকোর কাছে হেরে যাওয়া ম্যাচ এক গোল শোধ দিয়েছিলেন হিউং মিন সন। চোখ ধাঁধানো গোলের তালিকা করলে তার গোলটি রাখতেই হবে। তবে অমন গোল করা সেই ফুটবলার আছেন অন্যরকম চিন্তায়। বাধ্যতামূলক সামরিক দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে দুই বছরের জন্য ফুটবল ছাড়তে হতে পারে টটেনহাম হটস্পারের এই তারকা ফুটবলারকে!
heung min son
হিউং মিন সন

এবার বিশ্বকাপে দক্ষিণ কোরিয়ার জন্য আনন্দের মুহূর্ত এসেছে একবারই। মেক্সিকোর কাছে হেরে যাওয়া ম্যাচ এক গোল শোধ দিয়েছিলেন হিউং মিন সন। চোখ ধাঁধানো গোলের তালিকা করলে তার গোলটি রাখতেই হবে। তবে অমন গোল করা সেই ফুটবলার আছেন অন্যরকম চিন্তায়। বাধ্যতামূলক সামরিক দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে দুই বছরের জন্য ফুটবল ছাড়তে হতে পারে টটেনহাম হটস্পারের এই তারকা ফুটবলারকে!

দক্ষিণ কোরিয়ার নিয়ম অনুযায়ী, ২৮ তম জন্মদিন পালন করার আগে প্রত্যেক পুরুষকে বাধ্যতামূলকভাবে ২১ মাসের সামরিক দায়িত্ব পালন করতে হয়। তবে কেউ বিশেষভাবে মওকুফ পেয়ে গেলে তাকে এই নিয়মের মধ্য দিয়ে যেতে হয় না।

নিয়ম অনুযায়ী ২৫ বছর বয়সী সনকে আগামী বছরের জুলাইয়ের মধ্যে সামরিক কাজে যোগদান করতে হবে। সেক্ষেত্রে ২০১৯/২০ ও ২০২০/২১ এই দুই মৌসুমে ফুটবল থেকে বাধ্যতামূলকভাবে বাইরে থাকতে হবে তাঁকে।

তবে খেলোয়াড়দের জন্য মাঝে মাঝে এই নিয়ম শিথিল করে দক্ষিণ কোরিয়া সরকার।  তবে শর্ত হলো, দেশের হয়ে মেজর কোন টুর্নামেন্টে উল্লেখযোগ্য পারফর্ম করতে হবে। সেই হিসেবে ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে পারফর্ম করে এই নিয়মের বেড়াজাল থেকে মুক্ত হয়ে যেতে পারেন সন।

কিন্তু জার্মানি, সুইডেন ও মেক্সিকোর সাথে একই গ্রুপে পড়া দক্ষিণ কোরিয়াকে প্রথম দুই ম্যাচের কোনটিতেই জেতাতে পারেননি সন। গ্রুপ পর্ব থেকেই বাদ হয়ে যাওয়ারও ভালো সম্ভাবনা আছে সনের দলের। সেক্ষেত্রে কি সামরিক দায়িত্ব পালনের জন্য ফুটবল থেকে বাধ্যতামূলকভাবে দূরে থাকতে হবে সনকে?

সে উত্তর পরে জানা জাবে, তবে রাশিয়া বিশ্বকাপে পারফর্ম করতে না পারলেও শেষ সুযোগ হিসেবে আরও দুটি মেজর টুর্নামেন্ট পাবেন সন। ২০১৮ এশিয়ান গেমস কিংবা ২০১৯ এশিয়ান কাপ, যেকোনো একটিতে দক্ষিণ কোরিয়াকে চ্যাম্পিয়ন করতে পারলেই সামরিক দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি পেয়ে যাবেন সন।

আগামী ১৮ আগস্ট থেকে ০২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ইন্দোনেশিয়ায় বসবে এশিয়ান গেমসের আসর। এই টুর্নামেন্টে প্রতিটি দলকে তাদের অনূর্ধ্ব ২৩ দল পাঠাতে হয়, তবে এর চেয়ে বেশি বয়সী তিনজন খেলোয়াড় পাঠানোরও সুযোগ পায় প্রতিটি দল। সেই তিনজনের একজন হিসেবে সনকে পাঠাতে চায় দক্ষিণ কোরিয়া। সেক্ষেত্রে আগামী মৌসুমে টটেনহামের হয়ে শুরুর চারটি ম্যাচ মিস করতে পারেন সন। ২০১৪ সালে এই টুর্নামেন্টে অংশ নিতে পারেননি সন, কারণ তাঁর তখনকার ক্লাব বেয়ার লেভারকুসেন তাঁকে টুর্নামেন্ট খেলার জন্য ছাড়েনি। আবার এশিয়ান কাপের দলেও সনকে রাখা হলে সেক্ষেত্রে টটেনহামের হয়ে আরও বেশ কিছু ম্যাচ মিস করতে পারেন সন। 

সন কি পারবেন দক্ষিণ কোরিয়ার হয়ে কিছু জিততে? না পারলে আইনের মারপ্যাঁচে পড়ে দুই বছরের জন্য স্থগিত হয়ে যেতে পারে প্রতিভাবান এই ফুটবলারের ক্যারিয়ার!

 

Comments

The Daily Star  | English
Is human civilisation at an inflection point?

Is human civilisation at an inflection point?

Our brains are being reprogrammed to look for the easiest solutions to our most vexing social and political questions.

8h ago