রোহিঙ্গাদের সহায়তায় ১০০ মিলিয়ন ডলার অনুদান দিচ্ছে এডিবি

বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সহায়তা হিসেবে ১০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের অনুদান দিচ্ছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)।
Rohingya refugee camps
মিয়ানমারে জাতিগত সহিংসতার কারণে গত বছরের আগস্ট থেকে নতুন করে সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা সীমান্ত পেরিয়ে প্রতিবেশী বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। ছবি: রয়টার্স ফাইল ফটো

বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সহায়তা হিসেবে ১০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের অনুদান দিচ্ছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)।

বাংলাদেশে মৌলিক অবকাঠামো নির্মাণ এবং শরণার্থী রোহিঙ্গাদের সহায়তা হিসেবে মোট ২০০ মিলিয়ন ডলারের অনুদানের মধ্যে প্রথম পর্যায়ে ১০০ মিলিয়ন ডলার দেবে এডিবি।

মিয়ানমারে জাতিগত সহিংসতার কারণে গত বছরের আগস্ট থেকে নতুন করে সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা সীমান্ত পেরিয়ে প্রতিবেশী বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। নির্যাতনের শিকার হয়ে দেশছাড়া শরণার্থীরা বর্তমানে মিয়ানমারের সঙ্গে বাংলাদেশের সীমান্ত জেলা কক্সবাজারের বিভিন্ন জায়গায় স্থাপিত আশ্রয় শিবিরে বসবাস করছেন।

আজ (৬ জুলাই) এডিবির প্রেসিডেন্ট তাকিহিকো নাকাও বলেন, “মানবিক প্রয়োজনে কক্সবাজারে রোহিঙ্গা সংকট মোকাবেলায় সরকারকে সমর্থন দেওয়ার জন্য আমরা বিশ্বব্যাংক ও অন্যান্য উন্নয়ন অংশীদার সমন্বয় সাধন করছি।”

ম্যানিলা থেকে এক বিবৃতিতে এডিবি জানায়, গত মে মাসের শুরুর দিকে রোহিঙ্গাদের জন্য সহায়তা দিতে সংস্থাটির প্রেসিডেন্টকে আহ্বান জানান বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। পরে এ বিষয়ে জরুরি ভিত্তিতে প্রকল্প উন্নয়ন প্রক্রিয়া শুরু করে এডিবি।

এডিবির ১০০ মিলিয়ন ডলারের প্রকল্পগুলোর মাধ্যমে কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলায় রোহিঙ্গাদের জন্য আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ, পানি সরবরাহ, পয়নিষ্কাশন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, ঝুঁকি হ্রাস, সড়ক নির্মাণ প্রভৃতি কাজে সহায়তা দেওয়া হবে।

আড়াই বছরে প্রকল্পটির প্রথম পর্বে ১২০ মিলিয়ন ডলার ব্যয় হবে। এর মধ্যে ১০০ মিলিয়ন ডলার দেবে এডিবি, বাকিটা দেবে বাংলাদেশ সরকার। প্রথম পর্বের অগ্রগতির ভিত্তিতে পরবর্তীতে প্রকল্পের দ্বিতীয় পর্বের জন্য আরও ১০০ মিলিয়ন ডলার অনুদান দেবে সংস্থাটি।

এসব প্রকল্পের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় খাদ্য বিতরণ এবং সংরক্ষণ কেন্দ্র, হাসপাতাল, শিক্ষা সুবিধা এবং জরুরি কাজের জন্য আশ্রয়কেন্দ্রগুলোর সড়ক পুনর্নির্মাণ করবে। এছাড়াও, কক্সবাজার থেকে টেকনাফ ও অন্যান্য এলাকার যাতায়াতের জন্য সড়ক পুনর্নির্মাণ করা হবে।

Comments

The Daily Star  | English

New School Curriculum: Implementation limps along

One and a half years after it was launched, implementation of the new curriculum at schools is still in a shambles as the authorities are yet to finalise a method of evaluating the students.

6h ago