রাস্তায় নেমেছে শিক্ষার্থীরা

বাস চাপায় কলেজ শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার প্রতিবাদে আজ চতুর্থ দিনের মতো রাজধানীতে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে শিক্ষার্থীরা। ঢাকার বাইরে গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জ থেকেও ছাত্র বিক্ষোভের খবর পাওয়া গেছে।
বিমানবন্দর সড়কে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ। ছবি: প্রবীর দাশ

-বিমানবন্দর সড়কে দুইটি গাড়ি ভাঙচুর, প্রায় এক হাজার ছাত্রের বিক্ষোভ

-কাকরাইল মোড়ে উইল লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলের কয়েকশো শিক্ষার্থীর অবরোধ

-শাহবাগে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও ইডেন কলেজের শিক্ষার্থীরা

 

বাস চাপায় কলেজ শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার প্রতিবাদে আজ চতুর্থ দিনের মতো রাজধানীতে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে শিক্ষার্থীরা। ঢাকার বাইরে গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জ থেকেও ছাত্র বিক্ষোভের খবর পাওয়া গেছে।

সকালে ফার্মগেটে রাজপথে অবস্থান নেয় সরকারি বিজ্ঞান কলেজের ছাত্ররা। তাদের অবস্থানের কারণে কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউয়ের এক পাশে প্রায় ২০ মিনিটের জন্য যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার ঘটনায় বিচার চেয়ে তাদেরকে বিভিন্ন স্লোগান দিতে দেখা যায়।

সকাল ১০টায় ফার্মগেটে পুলিশ বক্সের কাছে শিক্ষার্থীরা জড়ো হয়। পরে তারা মিছিল করে কারওয়ান বাজারের দিকে যায়। এখানে ছাত্ররা বাসে উঠে চালকদের লাইসেন্স দেখতে চেয়েছে। বেশ কয়েকজন বাস চালকের কাছ থেকে তারা গাড়ির চাবি নিয়ে গেছে।

রোববার দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার স্থান বিমানবন্দর সড়কসহ ঢাকার অন্যান্য এলাকাতেও শিক্ষার্থীরা মিছিল ও সড়ক অবরোধ করেছে। ঢকার বাইরে নারায়ণগঞ্জ ও গাজীপুর থেকেও ছাত্র বিক্ষোভের খবর পাওয়া গেছে।

সায়েন্স ল্যাবরেটরি: ঢাকা সিটি কলেজ, আইডিয়াল কলেজ, ঢাকা কলেজসহ বেশ কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সায়েন্স ল্যাবরেটরি মোড়ে অবস্থান নিলে মিরপুর রোড ও এলিফ্যান্ট রোডে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। মিছিল নিয়ে সহস্রাধিক শিক্ষার্থী সেখান থেকে মিছিল করে শাহবাগে গিয়ে রাস্তা অবরোধ করে।

কাকরাইল: দুপুর ১২টার দিকে উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলের কয়েকশো শিক্ষার্থী কাকরাইল মোড়ে এসে সড়ক অবরোধ করে।

বিমানবন্দর সড়ক: দুপুর ১২টার দিকে প্রায় দেড় হাজার শিক্ষার্থী বিমানবন্দর সড়কের দুই পাশে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। সেখান থেকে দ্য ডেইলি স্টারের ফটো জার্নালিস্ট জানান, বিক্ষুব্ধ ছাত্ররা দুটি গাড়ি ভাঙচুর করেছে।

শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের শিক্ষার্থীরা সকাল ১১টার দিকে সেখানে রাস্তা অবরোধ করার চেষ্টা করে। তবে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা সেখান থেকে তাদের বাসে তুলে পাঠিয়ে দেয়।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়: নিরাপদ সড়ক ও ঘাতক চালকদের বিচারের দাবিতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শতাধিক শিক্ষার্থী মানববন্ধন করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সুমনা গুপ্ত শিক্ষার্থীদের মানববন্ধনে সংহতি জানিয়েছেন।

মিরপুর ১০: শিক্ষার্থী নিহত ঘটনার বিচার চেয়ে ব্যানার ও প্ল্যাকার্ড নিয়ে মিরপুরে বিভিন্ন স্কুল-কলেজের প্রায় ৫০০ শিক্ষার্থী মিরপুর ১০ এলাকায় মিছিল করেছে।

গত দুদিনের মতো আজকেও রাজধানীতে কম সংখ্যক বাস নেমেছে। রাজধানীর প্রবেশমুখ গাবতলী বাস টার্মিনাল থেকে অল্প কিছু বাস ছাড়তে দেখা গেছে। তবে দূরপাল্লার বাস চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

রাস্তায় বাস কম থাকায় সমস্যায় পড়েছেন যাত্রীরা। দীর্ঘ সময় অপেক্ষার পরও বাস না পেয়ে অনেককেই হেঁটে গন্তব্যের দিকে রওনা দিতে দেখা গেছে।

Comments

The Daily Star  | English

Cyclone Remal: Coastal people reeling from heavy losses

Dipali Sardar of Gopi Pagla village in Khulna’s Paikgacha upazila used to rear ducks to support her family.

13m ago