এক নম্বরেই যেকোনো অপারেটর ব্যবহারের সুবিধা চালু

দেশে প্রথমবারের মত মোবাইল ফোন নম্বর পোর্টেবিলিটি (এমএনপি) সেবা চালু করা হয়েছে। আজ সোমবার সকালে বিশ্বের ৭২তম দেশ হিসেবে এই সেবা চালু করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। এখন থেকে একটি নম্বরেই যেকোনো অপারেটরের সেবা নিতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। অর্থাৎ অপারেটর পরিবর্তন করলেও আর মোবাইল নম্বর পরিবর্তন হবে না।

দেশে প্রথমবারের মত মোবাইল ফোন নম্বর পোর্টেবিলিটি (এমএনপি) সেবা চালু করা হয়েছে। আজ সোমবার সকালে বিশ্বের ৭২তম দেশ হিসেবে এই সেবা চালু করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। এখন থেকে একটি নম্বরেই যেকোনো অপারেটরের সেবা নিতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। অর্থাৎ অপারেটর পরিবর্তন করলেও আর মোবাইল নম্বর পরিবর্তন হবে না।

৭২ ঘণ্টার মধ্যে অপারেটর পরিবর্তনের জন্য ৫০ টাকা দিতে হবে গ্রাহকদের। তবে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দ্রুত এমএনপি সেবা পেতে তাদের ১০০ টাকা দিতে হবে। উভয় ক্ষেত্রেই ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট প্রযোজ্য হবে। অপারেটর পরিবর্তনের জন্য গ্রাহকদের নতুন অপারেটরের গ্রাহক সেবাকেন্দ্রে যোগাযোগ করতে হবে।

একবার অপারেটর বদল করার পর অন্য অপারেটর ব্যবহারের জন্য গ্রাহকদের ৯০ দিন অপেক্ষা করতে হবে।

যদিও ২০১৩ সালের জুন মাসে মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোকে ২০১৪ সালের জানুয়ারির মধ্যে এই সেবাটি চালু করতে বলেছিল বিটিআরসি। কিন্তু সে নির্দেশনাও বিফলে যায়।

পরবর্তীতে ২০১৬ সালে এমএনপি চালুর জন্য একটি তৃতীয় পক্ষকে দায়িত্ব দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় বিটিআরসি। ২০১৭ সালের নভেম্বর মাসে এমএনপি সেবা প্রদানের লক্ষ্যে ইনফোজিলিয়ন নামের একটি প্রতিষ্ঠানকে লাইসেন্স দেওয়া হয়। সে বছর মে মাসের ১ তারিখে সেবাটি চালুর কথা বলা হলেও, অপারেটর কোম্পানিগুলো প্রস্তুত নয় জানিয়ে দুইবার এর সময় পেছানো হয়।

এই সেবা ১৯৯৭ সালে প্রথম চালু করে সিঙ্গাপুর। কয়েক বছর হলো পাকিস্তান এবং ভারতেও এ সেবার সুবিধা পাচ্ছেন গ্রাহকেরা।

Comments