আবারো হারল রিয়াল

সময়টা খুবই বাজে যাচ্ছে রিয়াল মাদ্রিদের। পুঁচকে দিপার্তিভো আলাভেসের কাছেও হেরে গেছে দলটি। শেষ মুহূর্তের গোলে ০-১ ব্যবধানে হারে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নরা। এ নিয়ে চলতি মৌসুমে টানা চার ম্যাচ জয়হীন তারা। টানা চার ম্যাচ গোল বঞ্চিতও সের্জিও রামোসের দল। গোল করতেই যেন ভুলে গেছেন দলের ফরোয়ার্ডরা।

সময়টা খুবই বাজে যাচ্ছে রিয়াল মাদ্রিদের। পুঁচকে দিপার্তিভো আলাভেসের কাছেও হেরে গেছে দলটি। শেষ মুহূর্তের গোলে ০-১ ব্যবধানে হারে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নরা। এ নিয়ে চলতি মৌসুমে টানা চার ম্যাচ জয়হীন তারা। টানা চার ম্যাচ গোল বঞ্চিতও সের্জিও রামোসের দল। গোল করতেই যেন ভুলে গেছেন দলের ফরোয়ার্ডরা।

লা লিগায় সেভিয়ার মাঠে ৩-০ গোলের হারের পর রিয়াল নিজেদের ঘরের মাঠে গোলশূন্য ড্র করে আতলেতিকো মাদ্রিদের সঙ্গে। এরপর চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচে অপেক্ষাকৃত দুর্বল দল সিএসকেএ মস্কোর কাছে ১-০ গোলে হেরে যায় দলটি। ম্যাচে গোল তো করতেই পারেনি, পুরো ম্যাচে গোছানো কোন আক্রমণও করতে পারেনি রিয়াল। সে তুলনায় গোল করার মতো বেশ কিছু সহজ সুযোগ পেয়েছিল আলাভেস। বলের নিয়ন্ত্রণ অবশ্য রিয়ালই রেখেছিল বেশি। ৭০ শতাংশ বল পায়ে রেখেও হারতে হয় ফরোয়ার্ডদের ব্যর্থতায়।

তবে ৫ মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারতো রিয়াল। দানি কাবায়োসের দূরপাল্লার কোণাকোণি শট ঝাঁপিয়ে ফিরিয়ে দেন আলাভেস গোলরক্ষক ফের্নান্দো পাচেকো। ১০ মিনিটে বেনজেমার হেড গোল লাইন থেকে ফিরিয়ে দেন প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়। এরপর আর তেমন কোন গোছানো আক্রমণ করতে পারেনি রিয়াল। মাঝ মাঠের নিয়ন্ত্রণ রাখলেও অ্যাটাকিং থার্ডে গিয়ে খেই হারিয়েছে তারা।

২৮ মিনিটে গোলের দারুণ সুযোগ ছিল আলাভেসের। কিন্তু সতীর্থের ক্রসে মাথা ছোঁয়াতে পারেননি ইবাই গোমেস। ৭৭ মিনিটে গোল করার মতো দিনের সবচেয়ে সহজ এক সুযোগ পেয়েছিল আলাভেস। প্রতি আক্রমণ থেকে গোলরক্ষককে একা পেয়ে গিয়েছিলেন জনি। তার শট লক্ষ্যে না থাকলে গোলবঞ্চিত হয় দলটি।

তবে যোগ করা সময়ের শেষ মুহূর্তে গোল পায় আলাভেস। কর্নার থেকে উড়ে আসা বলে হেড নিয়েছিলেন রুবেন সুবরিনো। তার হেড গোলরক্ষক থিবো কর্তুয়া ঠিকভাবে ফেরাতে না পারলে ফাঁকায় বল পেয়ে যান মানু গার্সিয়া। গোল লাইন থেকে হেডে বল জালে জড়াতে কোন ভুল করেননি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে ধারে খেলতে আসা এ মিডফিল্ডার।

৮ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে আছে রিয়াল। দারুণ এ জয়ে রিয়ালের সমান ১৪ পয়েন্ট আলাভেসেরও। তবে গোল ব্যবধানে নিয়ে তিন নম্বরে আছে তারা। এক ম্যাচ কম খেলা বার্সেলোনার ১৪ হলেও গোল পার্থক্যে শীর্ষে রয়েছে দলটি।

Comments