আমিরাতে ‘এ’ দলের সফর ভেস্তে যাওয়ায় বিকল্প খুঁজছে বিসিবি

জাতীয় দলের ব্যস্ততার মাঝে ‘এ’ দলকেও খেলার মধ্যে রাখার পরিকল্পনা ছিল বিসিবির। টেস্ট ও ওয়ানডে স্কোয়াডের ক্রিকেটারদের আফগানিস্তান ‘এ’ দলের বিপক্ষে খেলার কথা ছিল পাকা। কিন্তু আফগান ক্রিকেট বোর্ডের অর্থনৈতিক সংকটে তা আর হচ্ছে না।
Nizamuddin Chowdhury Sujon
বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন। ফাইল ছবি: বিসিবি

জাতীয় দলের ব্যস্ততার মাঝে 'এ' দলকেও খেলার মধ্যে রাখার পরিকল্পনা ছিল বিসিবির। টেস্ট ও ওয়ানডে স্কোয়াডের ক্রিকেটারদের আফগানিস্তান 'এ' দলের বিপক্ষে খেলার কথা ছিল পাকা। কিন্তু আফগান ক্রিকেট বোর্ডের অর্থনৈতিক সংকটে তা আর হচ্ছে না।

অক্টোবরে সংযুক্ত আরব আমিরাতে দুটি চারদিনের ও তিনটি একদিনের ম্যাচ খেলতে যাওয়ার কথা ছিল 'এ' দলের। আফগানদের বিপক্ষে চারদিনের ম্যাচগুলোতে মুমিনুল হক ও একদিনের সিরিজে তামিম ইকবালও খেলবেন বলে শোনা যাচ্ছিল। আসছে ডিসেম্বরে ঘরের মাঠে ভারত সিরিজের আগে বেশ ভালো প্রস্তুতিই হতো তাদের।

কিন্তু আফগান ক্রিকেট বোর্ড বিসিবিকে শেষ মুহূর্তে নিজেদের অপরাগতার কথা জানিয়ে দিয়েছে। বাংলাদেশ 'এ' দলকে আতিথিয়েতা দেওয়ার মতো অবস্থা আপাতত তাদের নেই। পরে সুবিধাজনক কোন সময়ে সিরিজটি আয়োজনে আগ্রহী তারা।

রোববার মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী জানান, এই সময়টায় বিকল্প চিন্তায় হাঁটছেন তারা,  'আমাদের কাছে আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের একটা প্রস্তাব ছিল, অক্টোবরে 'এ' দলের একটা প্রোগ্রাম করা ছিল। দুবাই বা আবুধাবিতে হওয়ার কথা ছিল। পরবর্তীতে অতি সম্প্রতি আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড আমাদের জানায় যে, তারা রিশিডিউল করতে চাচ্ছে। তাই অক্টোবরে আমাদের 'এ' দলের সূচি অন্য সময়ে নিয়ে যেতে হবে। আমরা চেষ্টা করছি, এই সময়টা যেহেতু খালি থাকছে অন্য কোনো দেশ বা অন্য কারও সঙ্গে এই সময়ে একটা লঙ্গার ভার্সন সিরিজ খেলা যায় কি না।'

'এ' দলের সেই সিরিজে থাকার কথা ছিল জাতীয় দলের প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর। টি-টোয়েন্টি থেকে তাকে সরিয়ে দেওয়ায় আপাতত ছুটিতে নি দেশে আছেন তিনি। ওয়ানডে ও টেস্টের দায়িত্ব থাকায় 'এ' দলের ক্রিকেটারদের সঙ্গে তাকে কাজে লাগানোর পরিকল্পনা ছিল। সেটাও ভেস্তে গেল। তবে সিইও জানালেন, এই সময়ে অন্য কোন সিরিজ আয়োজন করা হলে ডমিঙ্গোর ডাক পড়বে।

Comments