ক্রিকেট

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে বিদায় বাংলাদেশের

বাংলাদেশ নারী দলকে ৭১ রানে হারিয়েছে নিউজিল্যান্ড নারী দল। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৩ উইকেটে ১৮৯ রান করে কিউইরা। জবাবে নিজেদের নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১১৮ রানের বেশি করতে পারেনি বাংলাদেশ।

শ্রীলঙ্কা ও অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে বিদায়টা এক অর্থে নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশের মেয়েদের। তবে কাগজে কলমে টিকে ছিল আশা। সে আশাও শেষ হয়ে গেল নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হেরে। ফলে এক ম্যাচ বাকি থাকতেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিশ্চিত হয়ে গেল নিগার সুলতানা জ্যোতির দলের।

শুক্রবার ক্যাপটাউনে আইসিসি নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশ নারী দলকে ৭১ রানে হারিয়েছে নিউজিল্যান্ড নারী দল। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৩ উইকেটে ১৮৯ রান করে কিউইরা। জবাবে নিজেদের নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১১৮ রানের বেশি করতে পারেনি বাংলাদেশ। 

লক্ষ্য তাড়ায় শুরু থেকেই চাপে ছিল বাংলাদেশের মেয়েরা। কিউইদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে রানের গতি বাড়াতে পারেননি তেমন কেউই। চতুর্থ উইকেটে মুর্শিদা খাতুনের সঙ্গে ৪৬ রানের জুটি গড়ে কিছুটা লড়াইয়ের আভাস দিয়েছিলেন স্বর্ণা। তবে এ জুটি ভাঙতেই শেষ হয় তাদের প্রতিরোধ। মাত্র ১৩ রানের ব্যবধানে ৫টি উইকেট হারায় তারা।

কেবল স্বর্ণাই টি-টোয়েন্টি ধাঁচের ব্যাটিং উপহার দিতে পেরেছেন। যদিও ইনিংস লম্বা করতে পারেননি। লিয়া তাহুহুর বলে উইকেটরক্ষকের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ২২ বলে ৪টি চারের সাহায্যে ৩১ রান আসে তার ব্যাট থেকে। ৩০ রানের ইনিংস খেলেছিলেন মুর্শিদা। তবে মোকাবেলা করেছেন ৩৮টি বল। যখন রানের গতি বাড়ানোর চেষ্টা চালান, তখন কাউ কর্নারে হান্নাহ রোয়ের হাত ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি।  

এছাড়া আর কোনো ব্যাটারই জ্বলে উঠতে পারেননি। এ দুই ব্যাটার ছাড়া দুই অঙ্ক স্পর্শ করতে পেরেছেন কেবল ওপেনার শামিমা সুলতানা (১৪)। নিউজিল্যান্ডের পক্ষে ১৮ রানের খরচায় ৩টি উইকেট পান এডেন কার্সন। ২টি শিকার হান্নাহর। 

এর আগে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা দারুণ করে নিউজিল্যান্ড। দুই ওপেনার বের্নাডিন বেজুডেনহোট ও সুজি ব্যাটসের জুটিতে আসে ৭৭ রান। বের্নাডিনকে ফিরিয়ে এ জুটি ভাঙেন স্বর্ণা আক্তার। তাকে স্টাম্পিংয়ের ফাঁদে ফেলেন তিনি।

এরপর অ্যামিলিয়া কেরকে নিয়ে ৩০ রানের আরও একটি জুটি গড়েন সুজি। তবে দলীয় ১০৭ রানে কিউই শিবিরে জোড়া ধাক্কা দিয়ে বাংলাদেশকে ম্যাচে ফিরিয়েছিলেন ফাহিমা খাতুন। অ্যামিলিয়াকে নিজেই ক্যাচ ধরে জুটি ভাঙেন। আর পরের বলে কিউই অধিনায়ক সোফি ডিভাইনকে বোল্ড করে দেন এ স্পিনার।

তবে চতুর্থ উইকেটে ম্যাডি গ্রিনকে নিয়ে ফের বাংলাদেশের হতাশা বাড়ান সুজি। গড়েন অবিচ্ছিন্ন ৮২ রানের দারুণ এক জুটি। তাতেই বড় পুঁজি মিলে যায় নিউজিল্যান্ডের। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮১ রানের ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন সুজি। ৬১ বলে ৭টি চার ও ১টী ছক্কায় এ রান করেন তিনি।

এছাড়া বের্নাডিন ও ম্যাডি দুইজনের ব্যাট থেকেই আসে ৪৪ রান। ২০ বলে ৭টি চারের সাহায্যে এ রান করে অপরাজিত থাকেন ম্যাডি। আর ২৬ বলে বের্নাডিন এ রান করেন ৫টি চারের সাহায্যে। বাংলাদেশের পক্ষে ৩৬ রানের খরচায় ২টি উইকেট পান ফাহিমা। একটি শিকার স্বর্ণার।

আগামী মঙ্গলবার নিজেদের শেষ ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকা নারী দলের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশের মেয়েরা।

Comments

The Daily Star  | English

Trees are Dhaka’s saviours

Things seem dire as people brace for the imminent fight against heat waves and air pollution.

4h ago