রাহুলের হাফসেঞ্চুরিতে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ভারতের লিড

মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ৫ উইকেটে জিতেছে স্বাগতিকরা। টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শেষদিকে টপাটপ উইকেট হারিয়ে ৩৫.৪ ওভারে ১৮৮ রানে অলআউট হয় অজিরা। জবাবে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৯১ রান তুলে জয় তুলে নেয় হার্দিক পান্ডিয়ার নেতৃত্বাধীন দল।
ছবি: বিসিসিআই

মিচেল মার্শের টি-টোয়েন্টিসুলভ বিস্ফোরক ইনিংসের পর নড়ে গেল অস্ট্রেলিয়ার মজবুত ভিত। তাদেরকে দুইশর নিচে থামালেন পেসার মোহাম্মদ শামি ও মোহাম্মদ সিরাজ। আরেক গতি তারকা মিচেল স্টার্ক তোপ দাগায় লক্ষ্য তাড়ার শুরুতে বড় বিপদে পড়ল ভারত। সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে তারা জিতল লোকেশ রাহুলের দায়িত্বশীল ফিফটিতে।

শুক্রবার মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে প্রথম ওয়ানডেতে ৫ উইকেটে জিতে তিন ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেছে স্বাগতিকরা। টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শেষদিকে টপাটপ উইকেট হারিয়ে ৩৫.৪ ওভারে ১৮৮ রানে অলআউট হয় অজিরা। জবাবে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৯১ রান তুলে জয় তুলে নেয় হার্দিক পান্ডিয়ার নেতৃত্বাধীন দল। তখনও বাকি ছিল ইনিংসের ৬১ বল।

ব্যাট হাতে ভারতের জয়ের নায়ক রাহুল ৯১ রানে অপরাজিত থাকেন। তিনি ৭৫ বল মোকাবিলায় মারেন ৭ চার ও ১ ছক্কা। ষষ্ঠ উইকেটে রবীন্দ্র জাদেজার সঙ্গে ১২৩ বলে অবিচ্ছিন্ন ১০৮ রান যোগ করেন তিনি। জাদেজা খেলেন ৫ চারে হার না মানা ৬৯ বলে ৪৫ রানের ইনিংস।

আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ট্রাভিস হেডের উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া। তাকে বোল্ড করে দেন সিরাজ। ধাক্কা সামলে আরেক ওপেনার মার্শ জুটি বাঁধেন অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথের সঙ্গে। ওভারপ্রতি গড়ে ছয়ের চেয়ে বেশি গতিতে রান আনতে থাকেন তারা। সেখানে আক্রমণাত্মক ভূমিকায় ছিলেন মার্শ।

৬৩ বলে ৭২ রানের জুটি ভাঙে স্মিথের বিদায়ে। হার্দিক পান্ডিয়ার বল কাট করতে গিয়ে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন তিনি। ৩০ বলে ২২ রান আসে তার ব্যাট থেকে।

মার্শ হাফসেঞ্চুরি পূরণ করেন ৫১ বলে। এরপর তার ব্যাট ওঠে জোয়ার। ফলে ১৭তম ওভারেই অজিদের সংগ্রহ স্পর্শ করে তিন অঙ্ক। তরতর করে রান বাড়াতে বাড়াতে সেঞ্চুরির আভাস দেন মার্শ। তবে তার তাণ্ডবের অবসান ঘটিয়ে ভারতকে জরুরি ব্রেক থ্রু দেন জাদেজা।

মাত্র ৬৫ বলে ৮১ রান করে থামেন মার্শ। তিনি ১০ চারের সঙ্গে মারেন ৫ চার। নির্বিষ এক ডেলিভারিতে আউটসাইড এজ হয়ে শর্ট থার্ড ম্যানে ধরা পড়েন তিনি। ১২৯ রানে তৃতীয় উইকেটের পতনের পর থেকে শুরু অস্ট্রেলিয়ার পথ হারানো।

মার্শের সঙ্গে ৪৩ বলে ৫২ রানের জুটির পর মারনাস লাবুশেন ফেরেন থিতু হওয়ার আগে। জস ইংলিস ও ক্যামেরন গ্রিনকে আগে বাড়তে দেননি শামি। নিজের পরপর দুই ওভারে দুজনেরই স্টাম্প উপড়ে নেন তিনি। তাদের ৩০ রানের জুটি ভাঙলে হুড়মুড়িয়ে অলআউট হয়ে যায় সফরকারীরা। ১৯ রানে পড়ে তাদের শেষ ৬ উইকেট।

ভারতকে চালকের আসনে বসানো শামি এরপর বিদায় করেন মার্কাস স্টয়নিসকেও। স্লিপে ক্যাচ তুলে ব্যক্তিগত শূন্য রানে বেঁচে গিয়েছিলেন তিনি। সেই সুযোগ হাতছাড়া করা শুবমান গিলেরই তালুবন্দি হন পরে।

অজিদের আশার আলো হয়ে থাকা শেষ স্বীকৃত ব্যাটার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল জাদেজার দ্বিতীয় শিকার হওয়ার পর সিরাজ ছাঁটেন বাকিটা। তখনও বাকি ছিল ইনিংসের ১৪.২ ওভার। ভারতের পক্ষে শামি ৩ উইকেট নেন ১৭ রানে। সমানসংখ্যক উইকেট নিতে সিরাজের খরচা ২৯ রান।

Comments

The Daily Star  | English
Bangladesh Expanding Social Safety Net to Help More People

Social safety net to get wider and better

A top official of the ministry said the government would increase the number of beneficiaries in two major schemes – the old age allowance and the allowance for widows, deserted, or destitute women.

5h ago