স্মিথ-হেডের ব্যাটে প্রথম দিন অস্ট্রেলিয়ার

বুধবার লর্ডসে টেস্টের প্রথম দিন শেষে ৫ উইকেটে ৩৩৯ রান তুলেছে অস্ট্রেলিয়া।

টসটা জিতেছিল ইংল্যান্ডই। মেঘলা আকাশে নিচে বোলিংয়ের আদর্শ কন্ডিশনে তাই অজিদের ব্যাটিংয়ে পাঠান ইংলিশ অধিনায়ক বেন স্টোকস। কিন্তু তাদের হতাশ করে দারুণ একটি দিন পার করেছে অস্ট্রেলিয়া। শুরু ডেভিড ওয়ার্নার এরপর স্টিভ স্মিথ ও ট্রাভিস হেডের ব্যাটে প্রথম ইনিংসে বড় পুঁজির দিকেই যাচ্ছে দলটি।

বুধবার লর্ডসে টেস্টের প্রথম দিন শেষে ৫ উইকেটে ৩৩৯ রান তুলেছে অস্ট্রেলিয়া।

অজিদের সামনে মূল চ্যালেঞ্জ ছিল সকালে আদর্শ কন্ডিশনে জেমস অ্যান্ডারসন ও স্টুয়ার্ট ব্রডকে সামলানো। সে কাজটা খুব ভালোভাবেই করে দেন দুই ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার ও উসমান খাওয়াজা। খাওয়াজা অবশ্য এদিন ইনিংস লম্বা করতে পারেননি। ব্যক্তিগত ১৭ রানে ফিরেছেন ক্যারিয়ারে দ্বিতীয় টেস্ট খেলতে নামা জশ টংয়ের বলে বোল্ড হয়ে। তবে ৭০টি বল মোকাবেলা করেছেন তিনি। তাতে দিনের শুরুটা হতাশারই ছিল ইংলিশদের।

অবশ্য খাওয়াজাকে তুলে নেওয়ার কয়েক ওভার পর ওয়ার্নারকেও তুলে নেন টং। তাকেও বোল্ড করে দেন এই তরুণ পেসার। এরপর মার্নাস লাবুশেনকে নিয়ে দলের হাল ধরেন স্মিথ। গড়েন ১০২ রানের জুটি। এ জুটি ভাঙেন অলি রবিনসন। লাবুশেনকে উইকেটরক্ষক বেয়ারস্টোর ক্যাচে পরিণত করেন তিনি।

এরপর হেডের সঙ্গে আরও একটি দারুণ জুটি গড়েন স্মিথ। তৃতীয় উইকেটে ১১৮ রানের জুটি গড়েন এ দুই ব্যাটার। এরপর অবশ্য ইংলিশ শিবিরে কিছুটা স্বস্তি ফেরান সাবেক অধিনায়ক জো রুট। জোড়া আঘাত হানেন এ পার্ট টাইম স্পিনার। হেডকে স্টাম্পিংয়ে ফাঁদে ফেলে জুটি ভাঙার পর ক্যামেরুন গ্রিনকে ফেরান খালি হাতে।

তবে দিনের শেষভাগটা আলেক্স ক্যারিকে নিয়ে শেষ করেন স্মিথ। অবিচ্ছিন্ন ২৩ রানের জুটি গড়ে অপরাজিত রয়েছেন তারা।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮৫ রানের ইনিংস খেলে অপরাজিত রয়েছেন স্মিথ। ১৪৯ বলে ১০টি চারের সাহায্যে এ রান করেছেন তিনি। ওয়ানডে স্টাইলে ব্যাটিং করে ৭৩ বলে ৭৭ রান করেন হেড। ১৪টি চারের সাহায্যে খেলেন নিজের এই ইনিংস। ৮৮ বলে ৮টি চার ও ১টি ছক্কায় ৬৬ রান করেন ওয়ার্নার। এছাড়া লাবুশেন করেন ৪৭ রান।

ইংল্যান্ডের পক্ষে ২টি করে উইকেট নিয়েছেন টং ও রুট।

Comments

The Daily Star  | English
Sacrificial animal traders eye big sales ahead of Eid

Sacrificial animal traders eye big sales ahead of Eid

Livestock traders and farmers in Bangladesh are eyeing big sales of sacrificial animals centring this year’s Eid-ul-Azha, but their dreams of hefty profits may be thwarted by ongoing inflationary pressure.

21h ago