ভারতের কাছে বিধ্বস্ত হয়ে বাংলাদেশের সোনা জয়ের স্বপ্ন শেষ

কঠিন উইকেটে শক্তিশালী প্রতিপক্ষের বিপরীতে একটুও লড়াই জমাতে পারল না বাংলাদেশ দল।
ছবি: এএফপি

দুর্বল মালয়েশিয়ার বিপক্ষে শেষ ওভারের রোমাঞ্চে কোনোমতে জিতেছিল বাংলাদেশ। এবার কঠিন উইকেটে শক্তিশালী প্রতিপক্ষের বিপরীতে একটুও লড়াই জমাতে পারল না তারা। এশিয়ান গেমসের প্রথম সেমিফাইনালে ভারতের কাছে স্রেফ উড়ে গেছে বাংলাদেশ। এতে অবসান ঘটেছে সাইফ হাসানের নেতৃত্বাধীন দলটির সোনার পদক জয়ের স্বপ্নের।

শুক্রবার হাংজুতে একপেশে সেমিতে প্রতিবেশী দেশটির বিপক্ষে ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ। টস হেরে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে পুরো ২০ ওভার খেলতে পারে তারা। কিন্তু স্কোরবোর্ডে জমা হয় ৯ উইকেটে ৯৬ রানের মামুলি সংগ্রহ। এতে মাঝপথেই অনেকটা নিশ্চিত হয়ে যায় যে ম্যাচে কী ফল হতে যাচ্ছে। এরপর ৬৪ বল হাতে রেখে মাত্র ১ উইকেট হারিয়েই লক্ষ্য ছুঁয়ে ফাইনালে উঠেছে ভারত।

উইকেট ছিল ব্যাটিংয়ের জন্য কঠিন। বড় বড় সব টার্ন মিলছিল। সেই সুবিধা কাজে লাগিয়ে ভারতের স্পিনাররা তুলে নেন ৮ উইকেট। বাঁহাতি স্পিনার সাই কিশোর ১২ রানে ৩ ও অফ স্পিনার ওয়াশিংটন সুন্দর ১৫ রানে ২ উইকেট পান। একটি করে নেন তিলক ভার্মা, শাহবাজ আহমেদ ও রবি বিষ্ণোই। তবে সহজ লক্ষ্য তাড়ায় সেই একই পিচে তাণ্ডব চালান রুতুরাজ গায়কোয়াড় ও তিলক।

ভারতের অধিনায়ক রুতুরাজ ২৬ বলে ৪০ রানে অপরাজিত থাকেন। তার ব্যাট থেকে আসে ৪টি চার ও ৩টি ছক্কা। রুতুরাজের চেয়েও বিস্ফোরক মেজাজে ছিলেন তিলক। সমানসংখ্যক বল মোকাবিলায় তিনি করেন অপরাজিত ৫৫ রান। দুটি চারের সঙ্গে ৬টি ছয় হাঁকান তিনি। দ্বিতীয় উইকেটে দুজনের ৫২ বলে ৯৭ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে শেষ হয়ে যায় খেলা।

ভারতের ইনিংসের চতুর্থ বলে যশস্বী জয়সোয়াল সাজঘরে ফেরেন ব্যক্তিগত ও দলীয় শূন্য রানে। রিপন মণ্ডলের বলে শর্ট ফাইন লেগে মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরীর হাতে ক্যাচ দেন তিনি। বোলিংয়ে বাংলাদেশের সাফল্য কেবল এটুকুই। এরপর রুতুরাজ ও তিলকের আগ্রাসী ব্যাটিংয়ের সামনে বাধা হতে পারেননি বাকি বোলাররা। অধিনায়ক সাইফ এক ওভারে দেন ১০ রান। মৃত্যুঞ্জয়ের একমাত্র ওভার থেকে আসে ১৪ রান। এক ওভারে রাকিবুল হাসানের খরচা ১৭ রান।

এর আগে বাংলাদেশের ব্যাটিং ছিল হতশ্রী। টি-টোয়েন্টির কোনো ধাঁচ পাওয়া যায়নি মূল ব্যাটারদের কাছ থেকে। ওপেনার পারভেজ হোসেন ইমন ৩২ বলে করেন ২৩ রান। সাতে নেমে জাকের আলী ২৯ বলে ২৪ রানে অপরাজিত থাকেন। এছাড়া, মাহমুদুল হাসান জয় ১০ বলে ৫ ও আফিফ ১৫ বলে ৭ রান করেন। সাইফ ২ বল খেলে ১ রানে আউট হন। ২ বল মোকাবিলায় রানের খাতা খুলতে পারেননি জাকির হাসান।

ক্রিজে যাওয়া বাংলাদেশের ১০ ব্যাটারের মধ্যে একশর বেশি স্ট্রাইক রেট ছিল কেবল রাকিবুলের। এই বাঁহাতি স্পিনার নয়ে নেমে ৬ বলে ১৪ রানের ইনিংস খেলেন। তার ব্যাট থেকে আসে দুটি চার ও একটি ছয়।

চীনে চলমান এশিয়ান গেমসের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে পাকিস্তান খেলবে আফগানিস্তানের বিপক্ষে। এই ম্যাচে হেরে যাওয়া দলের বিপক্ষে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে অংশ নেবে বাংলাদেশ। ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে আগামীকাল। যারা জিতবে, তারা পাবে ব্রোঞ্জের পদক।

Comments

The Daily Star  | English
biman flyers

Biman does a 180 to buy Airbus planes

In January this year, Biman found that it would be making massive losses if it bought two Airbus A350 planes.

9h ago