বাংলাদেশের লক্ষ্য ২০০, তাড়া করা সম্ভব বলছে নিউজিল্যান্ড

তৃতীয় দিন শেষে তাই মূল প্রশ্ন কতো রানের লক্ষ্য দিলে নিরাপদ থাকবে টাইগাররা?

প্রথম দিনের খেলা শেষে স্পষ্টতই এগিয়ে ছিল বাংলাদেশ। তখন মনে হয়েছিল কিছু হলেও লিড মিলবে টাইগারদেরই। কিন্তু গ্লেন ফিলিপসের ব্যাটেই বদলে যায় সব। তার অসাধারণ ব্যাটিংয়ে উল্টো লিড পায় কিউইরা। জমে ওঠে মিরপুর টেস্ট। তৃতীয় দিন শেষে তাই মূল প্রশ্ন কতো রানের লক্ষ্য দিলে নিরাপদ থাকবে টাইগাররা?

স্বাভাবিকভাবে সংবাদ সম্মেলনেও উঠে আসে এমন প্রশ্ন। উত্তরে স্পিনার নাঈম হাসান বলেন, 'আমার মনে হয় আমরা যত লম্বা সময় ব্যাটিং করতে পারি আমাদের জন্য ভালো। ২০০-২২০ রান করতে পারলে ইনশাল্লাহ আমরা ডিফেন্ড করতে পারবো।'

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের উইকেট বরাবরই স্পিন সহায়ক। এবার তো স্পিনারদের জন্য রীতিমতো স্বর্গ। উইকেটের চিত্র ভালোভাবে জানেন বলেই চতুর্থ ইনিংসে ২০০ রানের লক্ষ্য দিয়ে জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী নাঈম।

আত্মবিশ্বাসী হলেও প্রথম ইনিংসে লিড নিতে না পারার আক্ষেপ লুকাতে পারেননি এই তরুণ। যদিও কিউইদের লিডের জন্য ফিলিপসের ব্যাটিংয়ের প্রশংসা করেছেন। তবে নিজেরা লিড পেলে ভালো হতো বলে মনে করেন তিনি, 'আসলে ওরাওতো (নিউজিল্যান্ড) খেলতে এসেছে… আর একটা জুটি হতেই পারে, যে কেউই একজন ভালো খেলতেই পারে। এখন ওদের মধ্যে (ফিলিপস) ভালো খেলছে, এজন্য ওরা লিড নিতে পারছে। লিড পেলে ভালো হতো… এখন আমরা দিন শেষে লিডে আছি, আমরা যদি ভালো ব্যাটিং করি, ভালো একটা স্কোর হবে।'

তবে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটাররা ভালো কিছু করে সেই ঘাটতি পূরণ করে দিবেন বলে আশা করছেন এই স্পিনার, 'আমরা যদি ভালো ব্যাটিং করে একটা ভালো স্কোর করতে পারি তাহলে আমরা ম্যাচ জিততে পারবো। আমরা এখন ম্যাচে এগিয়ে আছি, এটা আমরা ধরে রাখতে পারবো। এখান থেকে আমরা যতক্ষণ ব্যাটিং করবো, যত ভালো ব্যাটিং করবো তত ভালো হবে।'

তবে ২০০ রানের লক্ষ্য পেলে অখুশি নয় নিউজিল্যান্ডও। মিরপুরের উইকেটে কাজটা কঠিন হলেও অসম্ভব কিছু নয় বলে জানান ফিলিপস। এদিন তার ব্যাটেই ম্যাচে টিকে থাকে কিউইরা। অন্যথায় আগের দিন পাঁচ উইকেট নেওয়া বাংলাদেশ এদিন দলীয় সংগ্রহ ১০০ রানের আগেই আরও দুটি উইকেট নিয়েছিল। এরপর লেজের বাটারদের নিয়ে উল্টো লিড এনে দেন এই ফিলিপসই। 

উইকেট খুব বেশি পরিবর্তন না হলে ২০০ রানের লক্ষ্য পারি দেওয়ার প্রত্যয় দেখিয়ে এই অলরাউন্ডার বলেন, 'আমার মনে হয় ১৮০ থেকে ২০০ পর্যন্ত একটি ভালো স্কোর এবং তাড়া করা কঠিন হবে। করা অসম্ভব নয়, তবে স্পষ্টতই এর জন্য কাজ করতে হবে, এবং আমাদের ম্যাচ পরিকল্পনাগুলোয় দৃঢ়ভাবে আটকে থাকতে হবে। তবে, যদি আমরা তাদের ২০০ বছরের নিচে রাখতে পারি তাহলে আমরা সত্যিই খুশি হব।'

'স্পষ্টতই প্রথম ইনিংসে আমাদের শুরুটা কিছুটা কঠিন ছিল। বাংলাদেশের ছেলেরা কয়েকটি দুর্দান্ত ক্যাচ নিয়েছে যা আমাদেরকে খুব দ্রুত ব্যাকফুটে ফেলে দেয়। আমার মনে হয় যদি পিচ পরিবর্তন না হয়, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে পুরো ম্যাচ জুড়ে এটা একই রকম থাকবে।'

Comments

The Daily Star  | English

Israeli occupation 'affront to justice'

Arab states tell UN court; UN voices alarm as Israel says preparing for Rafah invasion

1h ago