চলতি বছরই বিসিবি প্রধানের দায়িত্ব ছাড়বেন পাপন!

মন্ত্রী হয়ে বিসিবি সভাপতির দায়িত্ব পালনে কোনো আইনগত বা গঠনতান্ত্রিক বাধা নেই।
Nazmul Hasan Papon

মন্ত্রিসভার সদস্য হওয়ার পর থেকেই নানা গুঞ্জন চাউর হয় ক্রিকেট মহলে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন দায়িত্বে আর নাও থাকতে পারেন। তবে আপাতত থাকছেন তিনিই। যদিও চলতি বছরের মধ্যেই বিসিবি প্রধানের দায়িত্ব ছেড়ে দেওয়ার চেষ্টা করবেন বলে জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার বঙ্গভবনে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন পাপন। এরপর বিসিবি দায়িত্ব নিয়ে বলেন, 'প্রথম কথা হচ্ছে বিসিবির সঙ্গে এটার কোনো সম্পর্ক নেই…ছাড়ার। আগেও আমাদের অনেক মন্ত্রী ছিলেন যারা বিসিবির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। বিদেশেও আছে। সেটা ইস্যু না।'

২০১২ সালে প্রথমবার বিসিবি প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন পাপন। এরপর থেকেই এ দায়িত্বে আছেন। ২০২১ সালের অক্টোবরে টানা তৃতীয়বারের মতো বিসিবি সভাপতি হিসেবে পুনঃনির্বাচিত হন। তবে চলতি মেয়াদেই এ দায়িত্ব শেষ করতে চান বলে জানিয়েছিলেন তিনি, 'কথা হচ্ছে, আগে থেকেই ইচ্ছে ছিল এবারই আমার লাস্ট টার্ম। টার্মটা আবার সামনের বছর (শেষ হবে)। আমি চেষ্টা করব, এই বছরই টার্মটা শেষ করা যায় কি না।'

'আইসিসির আবার কিছু নিয়ম-কানুন আছে। ওদের বেশ কিছু কমিটিতে আছি, বিশেষ করে চেয়ারম্যানও আছি। ওরা আবার এটা বদল করে না। নতুন কেউ গেলেও আইসিসিতে তারা এটা দেয় না। শ্রীলঙ্কাতে দেখেছেন, ওখানে তারা অনুমতি দেয়নি। ওদের টার্মটা শেষ করতে হবে। আমার ধারণা… সামনের বছর তো এমনিই করতাম, চেষ্টা করব এ বছরের মধ্যে শেষ করা যায় কি না,' যোগ করেন পাপন।

মন্ত্রী হয়ে বিসিবি সভাপতির দায়িত্ব পালনে কোনো আইনগত বা গঠনতান্ত্রিক বাধা নেই। এর আগেও ছিলেন অনেকে। পররাষ্ট্র মন্ত্রীর দায়িত্ব সামলানোর পাশাপাশি বিসিবি প্রেসিডেন্ট ছিলেন আনিসুল ইসলাম মাহমুদ ও মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান। এছাড়া নৌ-পরিবহন উপমন্ত্রী ছিলেন সাবের হোসেন চৌধুরী।

Comments

The Daily Star  | English
illegal footpath occupation in Dhaka

Dhaka footpaths, a money-spinner for extortionists

On the footpath next to the General Post Office in the capital, Sohel Howlader sells children’s clothes from a small table.

11h ago