আর্জেন্টিনা সমর্থক শহিদুল যে কারণে করলেন রোনালদোর সেলিব্রেশন

শহিদুলের দুর্দান্ত বোলিংয়েই ফরচুন বরিশালকে হারিয়ে রংপুর রাইডার্সের সঙ্গে যৌথভাবে শীর্ষে উঠেছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

ফরচুন বরিশালের বিপক্ষে আগের দিন কী দারুণ বোলিংই না করলেন পেসার শহিদুল ইসলাম। তাতে দলও পায় দারুণ এক জয়। নকআউট পর্বে ওঠার রাস্তাটাও অনেকটাই নিশ্চিত হয়েছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের। তবে এমন নজর কাড়া পারফরম্যান্সের পরও শহিদুল আলোচনায় এসেছেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর মতো সেলিব্রেশন করে। কারণ নিজে আবার আর্জেন্টিনা সমর্থক।

মঙ্গলবার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শহিদুলের নৈপুণ্যে ফরচুন বরিশালকে ১৬ রানে হারিয়েছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। টস হেরে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে তারা ৫ উইকেটে তোলে ১৪৫ রান। জবাবে শহিদুলের তোপে ৮ উইকেটে ১২৯ রানের বেশি করতে পারেননি তামিম ইকবালের দল। চার ওভার বল করে মাত্র ১৩ রানের খরচায় ৩ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হন শহিদুল।

সংবাদ সম্মেলনে রোনালদোর মতো উদযাপনের কারণ জানিয়ে এই তরুণ বলেন, 'একটু চেষ্টা ছিল যে রোনালদোর…রোনালদোকে আমার ভালো লাগে। মেসিকেও ভালো লাগে.. তবে রোনালদোকে ভালো লাগে তার কঠোর পরিশ্রমের জন্য। চেষ্টা করেছি ওরকম উদযাপন করার। কিন্তু আমার কাছে মনে হয় যে, ভালোভাবে হয়নি। আরেকটু উন্নত করতে হবে এটা। প্র্যাকটিস করব (হাসি)…। '

তবে এর কিছুক্ষণ পরই নিজের পছন্দের দলটার নাম জানিয়ে দিলেন শহিদুল। বললেন, 'ভাই আমি আর্জেন্টিনা (সমর্থক)!'

নিজের বোলিং নিয়ে এই তরুণ পেসার বললেন, 'স্লগে শেষের দিকে সেই জেতে যার মাথা একটু ঠাণ্ডা থাকে। হোক সেটা ব্যাটার কিংবা বোলার। যে মাথা ঠাণ্ডা রেখে ঐ সময় বল করতে পারবে তার জন্য সফল হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। চেষ্টা করেছি যতটা সম্ভব মাথা ঠাণ্ডা রেখে যেন সিদ্ধান্ত নিতে পারি। যাতে তাদের জোনে বল না পায়। ঐ চেষ্টাই করেছি, আলহামদুলিল্লাহ হয়েছে।'

এই ধারা ধরে রাখার প্রত্যয় জানিয়ে আরও বলেন, 'এটা (ধারাবাহিকতা ধরে রাখা) আমার কাছেও মনে হয়। গত কয়েক বিপিএলেই, শেষের দিকে ওভার আলহামদুলিল্লাহ আমার ভালো হচ্ছে। হয়ত পরিকল্পনা ঠিক আছে। এই পরিকল্পনাতেই ঠিক থাকতে চাই। আমার পরিকল্পনা সাধারণ- যেটা ভালো পারি সেটাই করব। সবচেয়ে বড় জিনিস মাথা ঠাণ্ডা রেখে সিদ্ধান্ত নেওয়া।'

Comments

The Daily Star  | English

PM's comment ignites protests across campuses

Hundreds of students from several public universities, including Dhaka University, took to the streets around midnight to protest what they said was a "disparaging comment" by Prime Minister Sheikh Hasina earlier in the evening

46m ago