ফুটবল

সমর্থকদের কাছে ক্ষমা চাইলেন লিভারপুল কোচ

এরচেয়ে বাজে আর কি হতে পারতো? বিভীষিকাময় একটি রাতই কাটাল লিভারপুল। রীতিমতো তাদের বিধ্বস্ত করে ছেড়েছে নাপোলি। এমন হারে স্বাভাবিকভাবে বিধ্বস্ত রেডস সমর্থকরাও। তাই ম্যাচ হারের তাদের কাছে ক্ষমা চাইলেন লিভারপুল কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপ।

এরচেয়ে বাজে আর কি হতে পারতো? বিভীষিকাময় একটি রাতই কাটাল লিভারপুল। রীতিমতো তাদের বিধ্বস্ত করে ছেড়েছে নাপোলি। এমন হারে স্বাভাবিকভাবে বিধ্বস্ত রেডস সমর্থকরাও। তাই ম্যাচ হারের তাদের কাছে ক্ষমা চাইলেন লিভারপুল কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপ।  

নাপোলির স্তাদিও দিয়াগো আরমান্দো ম্যারাডোনায় বুধবার রাতে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের 'এ' গ্রুপের ম্যাচে স্বাগতিকদের কাছে ৪-১ গোলে হেরেছে লিভারপুল। প্রথমার্ধেই তিন গোলের ব্যবধানে পিছিয়ে পড়ে তারা। ভিক্তর ওশিমান একটি পেনাল্টি শট মিস না করলে তো ব্যবধান বড় হতো আরও। 

এদিন ম্যাচের পঞ্চম মিনিটেই পিয়েতর জিয়েলিনস্কির গোলে পিছিয়ে পড়ে দলটি। এরপর এ তারকা গোল দিয়েছেন আরও একটি। একটি করে গোল পেয়েছেন আন্দ্রে-ফ্র্যাঙ্ক আঙ্গুসা ও জিওভান্নি সিমিওনি। লিভারপুলের হয়ে একটি গোল পরিশোধ করেন লুইস দিয়াজ।

শুধু চ্যাম্পিয়ন্স লিগই না, এবার ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগেও ধুঁকছে লিভারপুল। ছয় ম্যাচে জিততে পেরেছে মাত্র দুটি ম্যাচে। পয়েন্ট টেবিলের সেরা ছয়েই নেই দলটি। সবমিলিয়ে তাই সময়টা খুব বাজে যাচ্ছে দলটির।

ম্যাচ শেষ তাই ভক্তদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন ক্লপ, 'এটি অত্যন্ত হতাশাজনক একটি রাত ছিল তাই আমাকে তাদের (ভক্তদের) কাছে ক্ষমা চাইতে হবে। আমাদের সমস্যা ছিল স্পষ্ট। প্রথমত, নাপোলি সত্যিই ভালো খেলেছে এবং আমরা খুবই বাজে খেলেছি। এটি মেনে নেওয়া কঠিন ছিল, তবে আপনি ম্যাচটি দেখে থাকলে তা ব্যাখ্যা করা এত কঠিন নয়।'

নিজেদের অনেক পরিবর্তন করতে হবে বলেই মনে করছেন এ জার্মান কোচ, 'আমরা শুরুটাই ছিল খারাপ এবং দুটি পেনাল্টিকে উপেক্ষা করতে পারি না, কিন্তু ছেলেরা কেন ভালো খেলতে পারেনি সেটাই প্রশ্ন। এটা সমাধান করা আমার কাজ. এটা আমার দায়িত্ব। গোলবারে অ্যালিসন থাকার পর এই ফলাফল ঘটার জন্য আপনাকে সত্যিই খারাপ খেলতে হবে। মনে হচ্ছে যেন আমাদের নিজেদেরকে নতুন করে আবিস্কার করতে হবে। অনেক কিছুই অনুপস্থিত।'

একের পর এক বাজে ম্যাচের কারণে ছাঁটাই হওয়ার সম্ভাবনার কথাও উড়িয়ে দিলেন না ক্লপ, 'সত্যিই বলতে না, কিন্তু কে জানে? বিভিন্ন ধরনের মালিক আছে। আমাদের মালিকরা বেশ শান্ত এবং পরিস্থিতি সমাধানের জন্য আমার জন্য অপেক্ষা করছে, তবে অন্য কেউ এমনটি করবে বলে আশা করে না। এভাবেই সবসময় হয়েছে এবং যেদিন তারা তাদের মতামত পরিবর্তন করবে, তারা আমাকে বলবে।'

Comments

The Daily Star  | English

Iranian Red Crescent says bodies recovered from Raisi helicopter crash site

President Raisi, the foreign minister and all the passengers in the helicopter were killed in the crash, senior Iranian official told Reuters

4h ago