ফুটবল

কাতার বিশ্বকাপে স্টেডিয়ামের ভেতরে মদ্যপানের ব্যবস্থা থাকছে

ফুটবল বিশ্বকাপ মানেই বহু সংস্কৃতির মিলন কেন্দ্র। ইউরোপ, আমেরিকা, এশিয়া আফ্রিকাসহ বিশ্বের নানান প্রান্তের মানুষ খেলা দেখতে ছুটে যান ভেন্যুগুলোতে। তাদের অভ্যাসের সঙ্গে মধ্যপ্রাচ্যের সংস্কৃতির বিরোধ নিয়ে তৈরি হয়েছিল শঙ্কা।
ফাইল ছবি

প্রতিটি ফুটবল বিশ্বকাপেই স্টেডিয়ামের ভেতর দর্শকদের জন্য মদ্যপানের ব্যবস্থা থাকে। কিন্তু এবার কাতার বিশ্বকাপে দেশটির সংস্কৃতির জন্য তা বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছিল। অবশেষে মদ্যপানে অভ্যস্ত দর্শকদের জন্য আয়োজকরা নিজেদের নিয়মে ছাড় দিচ্ছে। আয়োজক কমিটির প্রধান নির্বাহী নাসের আল খাতের জানিয়েছেন, স্টেডিয়ামের ভেতরে মদ থাকছে।

ফুটবল বিশ্বকাপ মানেই বহু সংস্কৃতির মিলন কেন্দ্র। ইউরোপ, আমেরিকা, এশিয়া আফ্রিকাসহ বিশ্বের নানান প্রান্তের মানুষ খেলা দেখতে ছুটে যান ভেন্যুগুলোতে। তাদের অভ্যাসের সঙ্গে মধ্যপ্রাচ্যের সংস্কৃতির বিরোধ নিয়ে তৈরি হয়েছিল শঙ্কা।

বিশেষ করে পশ্চিমা দেশগুলোর সমর্থকরা ফুটবলের আনন্দ উপভোগ করতে আরও নানান অনুষঙ্গের দিকে ঝুঁকেন। কিন্তু কাতারে মদ নিষিদ্ধ থাকায় কিছুটা সংশয়ে পড়েছিলেন তারা। আল খাতের শুরুতে জানিয়েছিলেন, ফ্যান জোন ও লাইসেন্সপ্রাপ্ত হোটেলেই কেবল মদ থাকবে। কাতারে প্রকাশ্যে কেউ মদ্যপান করতে পারবেন না।

বিষয়টি নিয়ে তুমুল আলোচনা-সমালোচনা চলে। অবশেষে কাতার তাদের কঠোর অবস্থান থেকে সরে এসেছে। বিপুল দর্শকের চাপের মুখে নিয়মে ছাড় দিচ্ছেন তারা।

খাতের জানিয়েছেন অন্য সব বিশ্বকাপের মতই সবই থাকবে কাতারে, 'স্টেডিয়ামের ভেতরে মদের ব্যবস্থা থাকবে। অন্য যেকোনো বিশ্বকাপের মতো করেই আমরা আয়োজনটা করতে যাচ্ছি। এই বিবেচনায় এটা থাকা (মদ) খুব স্বাভাবিক।'

খাতের জানান, সব রকম সংস্কৃতির মানুষকে আতিথেয়তা দেওয়ার চিন্তায় এগুচ্ছেন তারা, 'সব ধরনের মানুষের কথাই আমরা ভাবছি। দর্শক, সংবাদকর্মী, ম্যাচ পরিচালনাকারী। আমাদের বিশ্বাস বিশ্বকাপ তাদের দারুণ অভিজ্ঞতা দেবে। আমরা চাই সবাই অসাধারণ বিশ্বকাপ হিসেবেই একে মনে রাখুক।'

Comments