পয়েন্ট খুইয়ে রেফারির উপর ক্ষোভ ছাড়লেন বার্সা কোচ

মৌসুমের প্রথম ম্যাচে গেতাফের মাঠে নেমে পয়েন্ট খুইয়েছে বার্সেলোনা।

মৌসুমের প্রথম ম্যাচে গেতাফের মাঠে নেমেছিল বার্সেলোনা। প্রথম দিনেই হোঁচট বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের। গোলশূন্য ড্র করে পয়েন্ট খুইয়েছে তারা। তবে গোল না হলেও ম্যাচে ঘটনা ছিল অনেক। লাল কার্ডই দেখানো হয়েছে তিনটি। যার একটি পেয়েছেন বার্সা কোচ জাভি হার্নান্দেজও। ম্যাচ শেষে তাই রেফারির উপর ক্ষোভ ঝাড়লেন এই স্প্যানিশ কোচ।

ম্যাচে অবশ্য গোল করার মতো বেশ কিছু সুযোগই ছিল বার্সেলোনার। কিন্তু ফরোয়ার্ডরা ছিলেন ব্যর্থ। তার উপর পুরো ম্যাচে বারবার ফাউলের কারণে স্বাভাবিক খেলা উপহার দিতে পারেনি দলটি। মোট ৩১ বার ফাউলের বাঁশি বাজানো হয়েছে। তাতেও বিরক্ত জাভি।

এদিন ম্যাচের প্রথমার্ধেই লাল কার্ড দেখেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড রাফিনহা। দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য গেতাফের জেমি মাতাও লাল কার্ড দেখেন। ৫৭তম মিনিটে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে বহিষ্কার হন তিনি। এরপর ৭১তম মিনিটে রেফারির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করে লাল কার্ড দেখেন জাভিও।

সবমিলিয়ে বেশ ক্ষিপ্ত বার্সা কোচ, 'রেফারিই সবকিছু এতটা বাড়াবাড়ি পর্যায়ে নিয়ে গেছে। এটাই সত্যি কথা। আমি তাকে বললাম যে, "আপনি খুব বেশি ফাউল ধরছেন।" এজন্য তিনি আমাকে মাঠ থেকে বের করে দিলেন! আমার লাল কার্ড কোনো ব্যাপার নয়, কঠিন একটি প্রতিপক্ষের সঙ্গে আমরা সম্ভব সবকিছুই চেষ্টা করেছি। কিন্তু মাত্র এক পয়েন্ট পেয়েছি, যা যথেষ্ট নয়। খুবই হতাশার এটি।'

ম্যাচের যোগ করা সময়ে পেনাল্টির জোরালো আবেদন করেছিল বার্সা। ডি-বক্সে রোনাল্দ আরাহোকে করা ফাউলে পেনাল্টি পেতে দলটি। কিন্তু ভিএআরে যাচাইয়ের পর বিল্ড-আপে 'হ্যান্ডবল' দেখতে পান রেফারি। তবে এ নিয়েও অভিযোগ করেন জাভি, 'আমার চোখে কোনো হ্যান্ডবল ধরা পড়েনি।'

এ ধরণের রেফারিংয়ের কারণে ফুটবলের জনপ্রিয়তা হারাচ্ছে বলেও মনে করেন বার্সা কোচ, 'এজন্যই লোকে ফুটবল দেখতে চায় না এখন। আজকে যা হয়েছে, এটি কোনো ম্যাচ ছিল না। যা হয়েছে, তা অপমানজনক। রেফারিই এটি হতে দিয়েছেন, আর কোনো কারণ নেই। তারা অনেক বেশি (ফাউল) ধরেছেন। লা লিগাকে আমরা আকর্ষণীয় করে তুলতে চাই ও ছড়িয়ে দিতে চাই, কিন্তু সেখানে এরকম হলে তা কোনো কাজের কিছু নয়।'

Comments

The Daily Star  | English

Home minister says it's a planned murder

Three Bangladeshis arrested; police yet to find his body

1h ago