ফুটবল

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে বার্সেলোনার 'অভিশপ্ত ভূমি' ইতালি!

ইতালি থেকে জয় নিয়ে ফিরতে পারবে বার্সেলোনা?

দুই মৌসুম পর আবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নকআউট পর্বের ম্যাচে খেলতে নামছে বার্সেলোনা। তাও আবার ইতালিতে। যেখানে তাদের রেকর্ড বেশ বাজেই বলা চলে। রীতিমতো 'অভিশপ্ত ভূমি'তে পরিণত হয়েছে। শেষ ষোলোর প্রথম লেগের আগে তাই ইতিহাস নিয়ে কিছুটা হলেও দুশ্চিন্তায় রয়েছেন ভক্ত-সমর্থকরা।

আজ বুধবার রাতে নাপোলির স্তাদিও দিয়াগো আরমান্দো মারাদোনাতে স্বাগতিকদের মুখোমুখি হবে বার্সেলোনা। এর আগে মিলান, তুরিন, রোম, উদিনে, নাপোলি ও ফ্লোরেন্সের মাঠে খেলেছে দলটি। কিন্তু তেমন সুখকর স্মৃতি নেই তাদের। কেবল মিলান, উদিনে ও রোমে জয় দেখেছে তারা। নাপোলিতে জয় এখনও অধরা।

এই ম্যাচের আগে স্বাভাবিকভাবেই ঘুরে ফিরে আসছে ইতিহাস। নাপোলিতে অধরা জয় এবার তুলে নিতে পারবে বার্সেলোনা? কিন্তু নাপোলি তো বটেই ইতালির মাঠেই ফলাফল তাদের পক্ষে কথা বলছে না। ইতালিতে এখন পর্যন্ত খেলা ২৫টি ম্যাচের মধ্যে মাত্র ৬টি ম্যাচে জিতে ফিরতে পেরেছে তারা।

আর নকআউট পর্বে তো আরও যাচ্ছেতাই অবস্থা। ইতালিতে মোট ১০ বার প্লে-অফের ম্যাচ খেলেছে বার্সা। সেখানে জয় মাত্র দুইটি ম্যাচে। আর দুটি জয়ই এসেছে এসি মিলানের বিপক্ষে। যার একটি ১৯৫৯ সালে। এরপর ৪৭ বছর পর ২০০৬ সালে ফের জয় পায় তারা। অর্থাৎ শেষ জয়টিও এসেছে প্রায় দেড় যুগ আগে।

এরপর পেপ গার্দিওলার বার্সেলোনাও ২০১০ সালে খেলেছিল ইন্টার মিলানের মাঠে। তর্কসাপেক্ষে বার্সেলোনার ইতিহাসের সেরা দলটি নিয়েও সেবার তারা হেরে ফিরেছিল ১-৩ গোলের ব্যবধানে। ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে জুভেন্তাসের কাছে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত হয় বার্সা। পরের বছর এএস রোমার কাছেও একই ব্যবধানে হেরে ফিরেছিল দলটি। 

তার উপর আবার সাম্প্রতিক সময়টা একেবারেই ভালো যাচ্ছে না কাতালান ক্লাবটির। লা লিগায় শিরোপা লড়াই থেকে অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছে। শীর্ষে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের চেয়ে ৮ পয়েন্ট পেছনে তারা। অন্যান্য ঘরোয়া প্রতিযোগিতা থেকে আগেই বিদায় নিয়েছে দলটি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগই শেষ ভরসা। কিন্তু সেখানে বাঘাবাঘা প্রতিপক্ষের সঙ্গে কতোটুকু কুলিয়ে উঠতে পারবে তারা?

Comments

The Daily Star  | English

The taste of Royal Tehari House: A Nilkhet heritage

Nestled among the busy bookshops of Nilkhet, Royal Tehari House is a shop that offers students a delectable treat without burning a hole in their pockets.

2h ago