ধর্ষণের দায়ে দানি আলভেজের কারাদণ্ড

একই সঙ্গে দেড় লাখ ইউরো জরিমানা করা হয়েছে আলভেজকে।

শেষ পর্যন্ত দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন দানি আলভেজ। ২০২২ সালে বার্সেলোনার একটি নাইট ক্লাবে এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে এই ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডারকে সাড়ে চার বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে কাতালুনিয়ার শীর্ষ আদালত।

একই সঙ্গে আদালত আরও নির্দেশ দিয়েছে যে আলভেজ ভুক্তভোগীকে দেড় লাখ ইউরো প্রদান করবে। কাতালুনিয়ার আদালত রায়ে বলেছেন, 'ভুক্তভোগী সম্মতির কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। বাদীর করা ধর্ষণের অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে।'

আলভেজ জোরপূর্বক যৌনতা বজায় রাখার বিষয়টি প্রমাণ হওয়ায় প্রসিকিউটর নয় বছরের কারাদণ্ড চেয়েছিলেন। তবে শেষ পর্যন্ত শুনানির পর চার বছর ছয় মাসের কারাদণ্ড দেয় আদালত।

স্পেনের প্রথম সারির এক সংবাদপত্র এবিসি তাদের এক প্রতিবেদনে জানায়, ২০২২ সালের গত ৩০ ডিসেম্বর মধ্যরাতে বার্সেলোনার সাটন নামে এক নাইটক্লাবে বন্ধুদের সঙ্গে নাচার সময় সেই নারীর সম্মতি ছাড়াই তার অন্তর্বাসের ভিতরে হাত ঢুকিয়ে দিয়েছিলেন আলভেজ।

এই অভিযোগে গত বছরের জানুয়ারিতে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে তার জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে জেলে পাঠানোর নির্দেশ দেয় স্পেনের আদালত। তখন থেকেই কাতালুনিয়ার একটি কারাগারে আছেন বার্সেলোনার সাবেক এই ডিফেন্ডার।

শুরুতে সব অস্বীকার করলেও পরে গত এপ্রিলে অভিযোগকারী নারীর সঙ্গে যৌন সম্পর্কের কথা শিকার করে নেন আলভেজ। তবে তা সম্মতিক্রমেই হয়েছিল বলে দাবি করেন এই ব্রাজিলিয়ান।

তবে মামলাটি শুধুমাত্র আলভেজের প্রোফাইলের কারণে নয় বরং লিঙ্গ সহিংসতা স্পেনে ক্রমেই বেড়ে ওঠায় বিষয়টি আরও প্রভাবশালী হয়ে উঠে আলাদা মনোযোগ আকর্ষণ করে।

 

Comments

The Daily Star  | English

Quota protesters need to move the court, not the govt: PM

Hasina says protesters have to move the court, not the govt to resolve the issue, warns them against destructive activities

3h ago